বুধবার ০৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

যুব ও ক্রীড়ায় ২২ কোটি ৩৭ লাখ টাকা বরাদ্দ বাড়লেও ফুটবলের জন্য বরাদ্দ নেই

স্পোর্টস রিপোর্টার: চলমান অর্থবছরের বাজেটে ফুটবলের জন্য ২০ কোটি টাকা বরাদ্দ থাকলেও এবার বাফুফে জন্য কোন বরাদ্দ রাখেনি সরকার। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) এবার চেয়েছিল দ্বিগুণ বরাদ্দ। অর্থাৎ ৪০ কোটি টাকা। কিন্তু প্রস্তুাবিত বাজেটে অর্থমন্ত্রী এক টাকাও ফুটবলের জন্য বরাদ্দ রাখেননি। তবে এ নিয়ে কোন ক্ষোভ নেই বাফুফের। বরং করোনাকালীন এই সময়ের বাস্তবতা মেনে বাফুফে সভাপতি বলেছেন, ‘এখন সরকারের আরও অনেক বড় সমস্যা মোকাবিলা করতে হচ্ছে।’

বাজেটে ফুটবলের জন্য বরাদ্দ না থাকার প্রতিক্রিয়ায় বাফুফে সভাপতি কাজি মো. সালাউদ্দিন  বলেছেন, ‘করোনা ভাইরাসের সময়ে ঘোষিত জাতীয় বাজেটে ফুটবল ফেডারেশনের জন্য কোন বরাদ্দ থাকবে সেটা আমি আশা করিনি, সেই চেষ্টাও করিনি। কারণ হলো, প্রথমে আমাদের সবাইকে বেঁচে থাকতে হবে। দেশে অনেক বড় বড় সমস্যা আছে সেগুলো সরকারকে মোকাবিলা করতে হবে।’

বাফুফে সভাপতি বলেছেন, ‘জানি বরাদ্দ না পাওয়ায় আমাদের সমস্যা হবে। সবার যেমন আর্থিক সমস্যা হচ্ছে, তেমনই বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনেরও সমস্যা হবে। এসব মোকাবিলা করাই হবে আমাদের কাজ।’তবে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর ফুটবলের জন্য সহযোগিতা চাইবেন বলে জানিয়েছেন কাজী মো. সালাউদ্দিন। তিনি বলেন, ‘এ নিয়ে (বাজেটে বরাদ্দ না থাকা) এখন চিন্তার কোন কারণ নেই। করোনাভাইরাসের পর যখন খেলা আরম্ভ হবে তখন দরকার হলে সরকারের কাছে আবার আবেদন করব অর্থ বরাদ্দের জন্য।’

এদিকে আগামী ২০২০-২১ অর্থবছরে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের জন্য ১৪৭৮ কোটি ৯৩ লাখ টাকার বাজেট প্রস্তাব করা হয়েছে। চলতি অর্থবছরে এ মন্ত্রণালয়ের বরাদ্দ ছিল ১৪৫৬ কোটি ৫৬ লাখ ৮৪ হাজার টাকা। অর্থাৎ চলতি অর্থ বছরের সংশোধিত বাজেটের চেয়ে আগামী ২০২০-২১ অর্থ বছরের বরাদ্দ ২২ কোটি ৩৭ লাখ ১৬ হাজার টাকা বেশি। ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবিত বাজেটের মোট বরাদ্দের মধ্যে উন্নয়ন খাতের জন্য রাখা হয়েছে ২৩৩ কোটি ২৯ লাখ টাকা এবং পরিচালন খাতের জন্য রাখা হয়েছে ১২৪৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকা।

উল্লেখ্য যে, ২০১৯-২০ অর্থবছরে সংশোধিত বাজেটে উন্নয়ন খাতের পরিমাণ ছিল ১৫৫ কোটি ২৯ লাখ টাকা এবং পরিচালন খাতের পরিমাণ ছিল ১৩০১ কোটি ২৭ লাখ ৮৪ হাজার টাকা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ