সোমবার ০৩ আগস্ট ২০২০
Online Edition

এ বছরই এশিয়া কাপ আয়োজনে আশাবাদী এসিসি

স্পোর্টস রিপোর্টার: করোনা ভাইরাসের কারণে ঝুলে রয়েছে এশিয়া কাপের ভাগ্য। এ বছরে এশিয়া কাপের ভাগ্য নির্ধারণে এশিয়া কাপ আয়োজনের ব্যাপারে সোমবার সভায় বসেছিল এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি)। টুর্নামেন্ট নিয়ে সভায় আলোচনা হয়েছে ঠিকই, কিন্তু এখনও চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি এসিসি। তবে এশিয়া কাপ আয়োজনে এখনও আশাবাদী এসিসি। ভিডিও কনফারেন্সে হওয়া সভায় নিরপেক্ষ ভেন্যুসহ টুর্নামেন্টটির ভাগ্য নিয়েও আলোচনা হয়েছে। তবে কোনও ধরনের সিদ্ধান্ত নেয়নি এসিসি। সদস্যরা সিদ্ধান্ত নিতে এই মাসের শেষ দিকে আরও একবার সভায় বসতে চেয়েছে। চলতি বছর সেপ্টেম্বরে পাকিস্তানে এশিয়া কাপের ১৫তম আসর বসার কথা রয়েছে। বিশ্বজুড়ে তাণ্ডব চালানো করোনা ভাইরাসের কারণে এশিয়া কাপ আয়োজন করা যাবে কিনা, এমন একটা সংশয় ছিল। তবে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের বোর্ড সভায় সেই সংশয় দূর হয়েছে। চলতি বছর এশিয়া কাপ আয়োজনের ব্যাপারে জোর দিয়েছে এসিসি। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ও এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) সভাপতি নাজমুল হাসানের নেতৃত্বে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এশিয়ার সব ক্রিকেট দেশের সভাপতি ও প্রধান নির্বাহীদের নিয়ে এসিসি’র বোর্ড সভা আয়োজিত হয়। যেখানে চলতি বছরের এশিয়া কাপ আয়োজনে বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়। ২০২০ এশিয়া কাপ পাকিস্তানের মাটিতেই হবে নাকি নিরপেক্ষ ভেন্যুতে আয়োজন করা হবে সেটি নিয়ে একটি বিতর্ক চলছিল। যা এই বৈঠকেও সমাধান হয়নি। তবে পৃথিবী জুড়ে চলমান মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রভাবের উপর নির্ভর করে সম্ভাব্য ভেন্যুর কথা ভাবছে এসিসি। এশিয়া কাপ আয়োজন নিয়ে নিজেদের বিবৃতিতে এসিসি বলেছে,‘আমরা ২০২০ এশিয়া কাপ আয়োজনের গুরুত্বের উপর জোর দিচ্ছি। কোভিড-১৯ বিপর্যয়ের প্রভাব বিবেচনায় নিয়ে আমরা চলতি বছর এশিয়া কাপের জন্য সম্ভাব্য ভেন্যু নিয়ে আলোচনা করেছি। আর যথাযথভাবেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে। কোভিড-১৯ এর প্রভাব ও পরিস্থিতি বিবেচনায় এশিয়া কাপের সম্ভাব্য ভেন্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে সেটি চূড়ান্ত করতে উপযুক্ত সময়ের কথা বলা হয়েছে।’ ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপকে মাথায় রেখে ২০১৮ সালের এশিয়া কাপ হয়েছিল ওয়ানডে ফরম্যাটে। দুবাইতে অনুষ্ঠিত হওয়া সেই আসরে বাংলাদেশ হয়েছিল রানার্স-আপ আর ভারত সপ্তমবারের মতো শিরোপার স্বাদ নিয়েছিল। তবে এবার বদলে যাচ্ছে এবারের এশিয়া কাপের ফরম্যাট। অক্টোবর-নভেম্বরের টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে দ্বিতীয়বারের মতো এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে হবে। এর আগে ২০১৬ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপ হয়েছিল সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে। এছাড়া ২০২২ সালে চীনে আয়োজিত হতে যাওয়া এশিয়ান গেমসের সঙ্গে এসিসি’র জড়িত থাকা এবং অগ্রগতি সম্পর্কেও অবহিত করা হয় বোর্ডগুলোকে। বৈঠক শেষে নিজেদের কাজের এবং সিদ্ধান্তের বিষয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে এসিসি। এদিকে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি হওয়ার পর প্রথমবারের মতো এসিসি’র বোর্ড সভায় অংশ নিয়েছেন সৌরভ গাঙ্গুলি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ