শুক্রবার ০৭ আগস্ট ২০২০
Online Edition

পুলিশী ক্ষমতার লাগাম টানতে সোচ্চার যুক্তরাষ্ট্র

৮ মে, এনবিসি নিউজ : যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশি ক্ষমতার লাগাম টানতে ওই বাহিনীতে সংস্কার আনার দাবি জোরালো হচ্ছে। কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিক জর্জ ফ্লয়েড হত্যার ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুলিশ বিভাগ ভেঙে দেওয়া, তাদের ক্ষমতা হ্রাস করা, তহবিল বরাদ্দ বন্ধ-সহ বিভিন্ন দাবি উঠেছে। এরইমধ্যে মিনিয়াপোলিসের পুলিশ বিভাগ ভেঙে দেওয়ার ব্যাপারে সম্মতি জানিয়েছে সিটি কাউন্সিলের সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশ। নিউ ইয়র্ক পুলিশের তহবিল কাটছাঁটের ঘোষণা দিয়েছেন স্থানীয় মেয়র বিল দে ব্লাসিও। পুলিশ বাহিনীতে সংস্কার আনার জন্য চাপ বাড়ছে কংগ্রেসের ওপরও। ২০২০ সালের ২৫ মে মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের বৃহত্তম শহর মিনিয়াপোলিসে পুলিশি হেফাজতে হত্যার শিকার হন জর্জ ফ্লয়েড। একজন প্রত্যক্ষদর্শীর ধারণ করা ১০ মিনিটের ভিডিওতে দেখা গেছে, হাঁটু দিয়ে নিরস্ত্র ফ্লয়েডের গলা চেপে ধরে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে ডেরেক চাওভিন নামের এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ সদস্য। এই হত্যার প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে বিক্ষোভ চলছে। পুলিশ বিভাগের কল্যাণ তহবিল বন্ধ করে দিয়ে তা অন্য কর্মসূচিতে ব্যয় করার দাবি জানাচ্ছেন বিক্ষোভকারীরা।

সোমবার (৮ জুন) পুলিশের অতিরিক্ত ক্ষমতা খর্ব করাসহ বেশ কিছু সংস্কার প্রস্তাব উত্থাপন করবে ডেমোক্র্যাটরা।

রবিবার (৭ জুন) এক কমিউনিটি বৈঠকে মিনিয়াপোলিস সিটি কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট লিসা বেন্ডার পুলিশ বিভাগের সঙ্গে শহরের সম্পর্ক ‘বিষাক্ত’ বলে উল্লেখ করেন। সবাইকে নিরাপদ রাখবে এমন একটি জননিরাপত্তা ব্যবস্থা পুনর্গঠনের শপথ নেন তিনি। লিসা বলেন, ‘আমাদের সংস্কার প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। কমিউনিটির প্রতিটি সদস্যকে নিরাপদ রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে এবং মিনিয়াপোলিস পুলিশ সেই কাজটি যে করছে না তা প্রকাশে আমরা বদ্ধপরিকর।’ মার্কিন সংবাদমাধ্যম এনবিসি নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কাউন্সিল সদস্য জেরেমিয়াহ এলিসন জানান, ১২ সদস্যের মধ্যে ৯ জন এ পদক্ষেপের ব্যাপারে সম্মতি জানিয়েছে। তিনি বলেন, ‘কোনও পরিকল্পনা ছাড়াই আমরা বিলোপ করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলছি না। সে কারণে আজ ওই পরিকল্পনা ঘোষণা করা হলো।’ তবে পুলিশ বিভাগকে ভেঙে দেওয়ার পক্ষপাতী নন মিনিয়াপেলিস মেয়র জ্যাকভ ফ্রে। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, পুলিশ বিভাগে ‘গভীর কাঠামোগত সংস্কার’ আনতে ‘পদ্ধতিগত বর্ণবাদের সংস্কৃতি দূর করতে পুলিশ প্রধান মেডারিয়া আরাডন্ড এর সঙ্গে ‘অব্যাহতভাবে’ কাজ করে যাবেন তিনি। জ্যাকভ ফ্রে বলেন, ‘আমাদের শহরের পক্ষ থেকে আরও বেশি করে কমিউনিটির নেতৃত্বাধীন জননিরাপত্তা কৌশল কার্যকর করতে আমরা প্রস্তুত। তবে মিনিয়াপোলিস পুলিশ বিভাগকে বিলুপ্ত করে দেওয়ার প্রস্তাব আমি সমর্থন করি না।’ গত সপ্তাহে মিনেসোটা গভর্নর টিম ওয়ালজ জানান, পুলিশ বিভাগ থেকে ‘পদ্ধতিগত বর্ণবাদের’ সংস্কৃতি নির্মূল করতে অঙ্গরাজ্য সরকার একটি নাগরিক অধিকার সংক্রান্ত তদন্ত শুরু করেছে। এর আওতায় গত দশক থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত পুলিশ বিভাগের নেওয়া বিভিন্ন নীতিমালা ও পদ্ধতি পর্যালোচনা করবেন তদন্তকারীরা। টিম ওয়ালজ-এর এ ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছে সিটি কাউন্সিল। তারা বলছে, ‘ক্ষমতার অপব্যবহার’ নিয়ে পুলিশ বিভাগকে জবাবদিহিতার মুখোমুখি করতে হবে। নিউ ইয়র্ক সিটির মেয়র বিল দে ব্লাসিও রবিবার (৭ জুন) পুলিশ বিভাগের তহবিল কাটছাঁট করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। অতিরিক্ত এ সঞ্চয় সমাজসেবায় ব্যয় করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নিউ ইয়র্ক শহরের পক্ষ থেকে করা একটি টুইট শেয়ার করেছেন মেয়র ব্লাসিও। সেখানে নিউ ইয়র্ক পুলিশ বিভাগের তহবিল যুব উন্নয়ন ও সমাজসেবা খাতে সরিয়ে নেওয়াসহ পুলিশ বিভাগে বিভিন্ন সংস্কারের রূপরেখা উল্লেখ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ