ঢাকা, শনিবার 4 July 2020, ২০ আষাঢ় ১৪২৭, ১২ জিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

রাজশাহী বিভাগে একদিনে আক্রান্ত বৃদ্ধি ৪৩ জন ॥ মোট রোগী ৭৬৬

 

রাজশাহী অফিস: রাজশাহী বিভাগের ৮ জেলায় একদিনে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে ৪৩ জন। এনিয়ে মোট রোগী দাঁড়িয়েছে ৭৬৬ জন। এদিকে ঢাকা থেকে রাজশাহীতে বদলি হয়ে আসা এক নারী পুলিশের করোনা পজিটিভ হয়েছে বলে জানা গেছে।

শুক্রবার দুপুরে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক জানান, রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় একদিনে ৪৩ জন করোনা রোগী বেড়েছে। নতুন এসব আক্রান্ত ব্যক্তিরা বৃহস্পতিবার শনাক্ত হয়েছেন। স্বাস্থ্য পরিচালক জানান, রাজশাহীর আট জেলায় এখন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা ৭৬৬ জন। বৃহস্পতিবার এই সংখ্যা ছিল ৭২৩। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, রাজশাহী জেলায় এখন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪৯ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১১ জন। হাসপাতালে আছেন আটজন। মারা গেছেন দুইজন। চাঁপাইনবাবগঞ্জে শনাক্ত হয়েছেন ৫৪ জন। এ জেলায় আটজন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। ইতোমধ্যে সুস্থও হয়েছেন আটজন। বিভাগে সর্বোচ্চ ২৭৫ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন বগুড়া জেলায়। এখানে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৪৩ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ২৮ জন। এ জেলায় একজন মারা গেছেন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৬৬ জন শনাক্ত হয়েছেন জয়পুরহাটে। এদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৭০ জন। এ পর্যন্ত এই জেলায় কারও মৃত্যু হয়নি। নওগাঁয় শনাক্ত হয়েছেন ১০৬ জন। এদের মধ্যে ৬৩ জন সুস্থ হয়েছেন। আর হাসপাতালে ভর্তি আছেন ছয়জন। নাটোরে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫ জন। এ জেলায় একজন মারা গেছেন। সুস্থ হয়েছেন নয়জন। এখানে কেউ হাসপাতালে ভর্তি নেই। বিভাগের সিরাজগঞ্জে করোনায় প্রাণ গেছে একজনের। এ জেলায় মোট ২৬ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে তিনজন সুস্থ হয়েছেন, একজন হাসপাতালে। পাবনায় শনাক্ত ব্যক্তির সংখ্যা ৩৫। এখানে কেউ মারা যাননি। তবে একজন হাসপাতালে রয়েছেন। আর সুস্থ হয়েছেন পাঁচজন। স্বাস্থ্য বিভাগের হিসাবে, করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া রোধে বিভাগে এ পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে ৩৭ হাজার ২২২ জনকে। এর মধ্যে কোয়ারেন্টাইন শেষ করেছেন ৩০ হাজার ৫৬৪ জন। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে ৫৬০ জনকে। এদের ৫০০ জন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন শেষ করেছেন। চিকিৎসার জন্য ৪৫৩ জনকে আইসোলেশনে নেয়া হলেও ছাড়পত্র পেয়েছেন ৩০৬ জন।

এদিকে রাজশাহীতে একজন নারী পুলিশ সদস্যের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। বৃহস্পতিবার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ল্যাবে তার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, এ দিন হাসপাতালে মোট ৯৪টি নমুনা নিয়ে পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ত্রুটি থাকায় ১০টি নমুনার রিপোর্ট হয়নি। বাকি ৮৪টি নমুনার মধ্যে তিনটি পজিটিভ। বাকি ৮১টি নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়নি। আক্রান্ত তিনজনের মধ্যে একজন রাজশাহী জেলা পুলিশে কর্মরত। অন্য দুইজনের একজনের বাড়ি নাটোরের বড়াইগ্রামে। আর অপরজন পাবনার সুজানগরের বাসিন্দা। বিষয়টি তিন জেলার সিভিল সার্জনকে জানানো হয়েছে। রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র ইফতেখায়ের আলম জানান, আক্রান্ত নারী কনস্টেবলের বয়স আনুমানিক ২০ বছর। তিনি ঢাকা মহানগর পুলিশে (ডিএমপি) কর্মরত ছিলেন। কয়েকদিন আগে তাকে রাজশাহীতে বদলি করা হয়েছে। রাজশাহী আসার পর থেকে তিনি জেলা পুলিশ লাইনে কোয়ারেন্টাইনে আছেন। তিনি আরো জানান, যেহেতু ওই নারী পুলিশ সদস্য বাইরে থেকে এসেছেন তাই তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়। এতে তার করোনা শনাক্ত হলো। এখন তিনি পুলিশ লাইনেই আইসোলেশনে থাকবেন। সেখানেই তার চিকিৎসা চলবে। তার মাধ্যমে অন্য কেউ যেন আক্রান্ত না হন সেটিও তারা নিশ্চিত করবেন। এর আগে বৃহস্পতিবার রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ল্যাবে চারজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে দুইজন রাজশাহীর বাসিন্দা। একজন পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের রাজশাহী শাখার ব্যবস্থাপক। অন্যজনের বাড়ি বাঘা উপজেলায়। আক্রান্ত অন্য দুইজনের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে। রাজশাহী জেলায় এ পর্যন্ত ৪৯ জন করোনা রোগী শনাক্ত হলেন। এদের মধ্যে দুইজন মারা গেছেন। সুস্থ হয়েছেন ১১ জন। রাজশাহী মহানগরীতে থাকা করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা বেড়ে ১০ জনে দাঁড়ালো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ