ঢাকা, শনিবার 4 July 2020, ২০ আষাঢ় ১৪২৭, ১২ জিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

রাস্তায় পড়ে ছিল ইমামের লাশ, এলাকায় করোনা আতঙ্ক

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: সিলেটের বিশ্বনাথে রাস্তায় পড়ে ছিল মিজান আহমদের লাশ। এ নিয়ে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে চিকিৎসকেরা নিশ্চিত করেছেন উচ্চ রক্তচাপের কারণে স্ট্রোক করেছেন মিজান আহমদ। মিজান আহমদ (৫৭) বিশ্বনাথের খাজাঞ্চি ইউনিয়নের বিলপার গোবিন্দনগর জামে মসজিদে প্রায় ২৫ বছর ধরে ইমামতি করছিলেন।

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) দুপুরে উপজেলার কান্দিগ্রাম রেলওয়ে সড়কের পাশে পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসীর সহায়তায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান। প্রশাসনের অনুমতিক্রমে এদিন সন্ধ্যায় তার লাশ গ্রামের বাড়ি চাঁদপুরে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় সাংবাদিক এমদাদুর রহমান মিলাদ জানান, প্রায় ৩০ বছর ধরে খাজাঞ্চি ইউনিয়নের বিলপার গোবিন্দনগর জামে মসজিদে ইমামতি করে আসছিলেন মিজান আহমদ। পাশাপাশি স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতাও করতেন তিনি।

খাজাঞ্চি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তালুকদার গিয়াস উদ্দিন জানান, ইমাম মিজানের উচ্চ রক্তচাপ ছিল। এদিন তিনি মসজিদের মোতোওয়াল্লিকে জোহরের নামাজ পড়াতে বলে পাশের গ্রামে দাওয়াত খেতে গিয়েছিলেন। বেলা ২টার দিকে স্থানীয় লোকজন কান্দিগ্রাম-রেলওয়ে সড়কের পাশে অচেতন অবস্থায় তাকে পড়ে থাকতে দেখে আমাকে খবর দেন।

দাওয়াত খেয়ে ফেরার পথে তিনি স্ট্রোক করেছেন বলে ধারণা করছেন চেয়ারম্যান।

পরে স্থানীয় ব্যক্তিদের সহযোগিতায় ইমামকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিশ্বনাথের ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. কামরুজ্জামান বলেন, সড়কে ওপর লাশ দেখে এলাকায় মানুষের মধ্যে করোনাভাইরাস আতঙ্ক দেখা দিয়েছিল। পরে চিকিৎসকেরা নিশ্চিত করেছেন, ঘটনাস্থলে উচ্চ রক্তচাপের কারণে স্ট্রোক করেছেন মিজান আহমদ। এতেই তার মৃত্যু হয়েছে।

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে বিশ্বনাথ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামীম মুসা জানান, মিজান আহমদ উচ্চ রক্তচাপের কারণে স্ট্রোক করে মারা গেছেন। তাঁর বাড়ি চাঁদপুরে। বিশ্বনাথে জানাজা শেষে বৃহস্পতিবার লাশ চাঁদপুরে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ