মঙ্গলবার ০২ জুন ২০২০
Online Edition

জাতীয় ঈদগাহে নয় বায়তুল মোকাররমে ঈদের জামায়াত

স্টাফ রিপোর্টার: করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে এবার জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে পাঁচটি ঈদের নামাযের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।
ইসলামিক ফাউেন্ডশন জানিয়েছে, পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে প্রতি বছরের মতো এবারও বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে পাঁচটি ঈদের নামাযের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৭টায়। এ জামাতের ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মাওলানা মিজানুর রহমান। মুকাব্বির থাকবেন মুয়াজ্জিন হাফেয কারী কাজী মাসুদুর রহমান।
দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়, এ জামাতের ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মুহিবুল্লাহিল বাকী নদভী। তৃতীয় জামাত সকাল ৯টা অনুষ্ঠিত হবে। এই জামাতের ইমামতি করবেন পেশ ইমাম হাফেয মাওলানা এহসানুল হক।
সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে চতুর্থ জামাত। এ জামাতে ইমামতি করবেন পেশ ইমাম মাওলানা মহিউদ্দিন কাসেম।
পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত সকাল ১০ টা ৪৫ মিনিটে অনুষ্ঠিত হবে। এ জামাতের ইমামিত করবেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুহাদ্দিস হাফেজ মাওলানা ওয়ালিয়ুর রহমান খান। এই পাঁচটি জামাতে কোনও ইমাম অনুপস্থিত থাকলে বিকল্প ইমাম হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুফতি মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

ঈদ-উল-ফিতরে সিটি মেয়রের বাণী
চট্টগ্রামে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মসজিদে ঈদ-জামাত অনুষ্ঠিত হবে
চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম. নাছির উদ্দীন পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরে নগরবাসীর প্রতি অগ্রীম ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়ে মুসলিম উম্মাহ, দেশবাসী ও বিশ্বমানবতার কল্যাণ শান্তি,সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি এবং মহান আল্লাহতায়ালার কাছে প্রাণ-প্রকৃতির সুরক্ষা কামনা করেছেন।
তিনি এক বার্তায় বলেছেন, বিশ্বব্যাপী এক অজানা, অচেনা ও অদৃশ্য প্রাণঘাতি অনুজীব তথা করোনা সংক্রমণের অপ্রতিরোধ্য বিস্তারের অশুভ থাবার মধ্য দিয়ে মাহে রমজান শেষে ঈদ-উল-ফিতরে খুশী-আনন্দ-মহামিলন উৎসবের ঐতিহ্যগত প্রাণ-মুখরিত আবেগ-অনুভূতির ঐশ্বর্য ও গরীমা হারিয়ে গেছে। কারণ পৃথিবী আজ গভীর অন্ধকারাচ্ছন্ন, মানুষ ও প্রাণ প্রকৃতির অবস্থা সংকটাপন্ন। তার উাপর যুক্ত হয়েছে সুপার সাইক্লোন আম্পানের ভয়াবহ ছোবল। এতে যথেষ্ট ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে এবং করোনা থাবার সাথে আরেকটি প্রাকৃতিক অপঘাতের যন্ত্রণায় মানুষ কাতর। তারপরও আশার আলো অবশ্যই দেখতে হবে। তবে স্রষ্টার  ইচ্ছায় জীবন প্রবহমান এবং এই জীবন রক্ষা-ই আমাদের আরাধ্য। জীবন রক্ষায় জীবিকা হলো অক্সিজেন। আজকের এই অদ্ভুত আধার একদিন কেটে যাবেই। কারণ স্রষ্টা তাঁর সৃষ্টিকে ভালোবাসেন। তিনি আমাদের রক্ষা করবেন। তাঁর প্রতি ভরসা,আস্থা ও নিখাদ আনুগত্যই  মুক্তির বার্তা বয়ে আনতে পারে। আমরা আবার আলো ঝলমল পৃথিবীতে ফিরে যাবো এবং করোনা-পূর্ব অর্থনৈতিক সক্ষমতার আলোকিত অধ্যায়ে আবার ফিরে  যাবো-এই হোক পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরে আমাদের সকলের সম্মিলিত প্রত্যাশা।
সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন তাঁর বার্তায় উল্লেখ করেন যে, সরকারি নির্দেশনানুযায়ী এবার করোনা সংক্রমণজনিত উদ্ভুত পরিস্থিতির কারণে এবার নগরীতে কোন খোলা জায়গায় ও ঈদগাহে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে না। তবে মসজিদগুলোতে  চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রত্যক্ষ তদারকিতে  ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।
 তিনি আরো উল্লেখ করেন যে, মসজিদ কর্তৃপক্ষকে ঈদ জামাতের আয়োজনে স্বাস্থ্যবিধি অবশ্যই মেনে চলতে হবে। সামাজিক দূরত্ব বা শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদের জামাত অনুষ্ঠানের  জন্য মসজিদ পরিচালনা কর্তৃপক্ষকে যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে তা অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে।
 তিনি সম্মানিত মুসল্লীগণকে মাস্ক পরিহিত অবস্থায় সম্ভব হলে নিজ নিজ জায়নামায হাতে নিয়ে  মসজিদে প্রবেশের অনুরোধ জানান।  মসজিদ পরিচালনা কর্তৃপক্ষকে  মসজিদের ফ্লোর জীবাণুনাশক দিয়ে পরিস্কার করারএবং মুসল্লীদের জন্য সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা ও স্যানিটাইজার রাখার অনুরোধ জানান। একই সাথে সামাজিক দূরত্ব মানার স্বার্থে প্রয়োজনে একই মসজিদে একাধিক জামাত অনুষ্ঠানের ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট মসজিদ কমিটি সমূহের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ