মঙ্গলবার ০২ জুন ২০২০
Online Edition

দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়ালো ৩০ হাজার

স্টাফ রিপোর্টার : দেশে করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেল। গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৯ হাজার ৭২৭ টি। এতে আরও ১৬৯৪ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, ফলে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৩০ হাজার ২০৫ জন।
এছাড়াও গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর মিছিলে যোগ হয়েছে আরও ২৪ প্রাণ। যা দেশে একদিনের মৃত্যুর সর্বোচ্চ রেকর্ড। ফলে দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ৪৩২ জনে।
করোনার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে শুক্রবার (২২ মে) দুপুরে সরকারের জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) নিয়মিত বুলেটিনে এতথ্য জানানো হয়।
ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বুলেটিনে সংযুক্ত হয়ে এ স্বাস্থ্য অধিদফতরের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক (অতিরিক্ত মহাপরিচালক প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা জানান,  আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫৮৮ জন। ফলে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন মোট ৬ হাজার ১৯০. জন।
তিনি জানান, চব্বিশ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণ করা ২৫ জনের ১৩ জনই ঢাকা বিভাগের। চট্টগ্রাম বিভাগের নয়জন, বরিশালে একজন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে একজন। হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন ১৫ জন, বাড়িতে আটজন এবং মৃত অবস্থায় হাসপাতালে এসেছেন একজন।
তাদের বয়স ২১-৩০ বছরের মধ্যে পাঁচজন, ৩১-৪০ বছরের মধ্যে তিনজন, ৪১-৫০ বছরের মধ্যে দুজন, ৫১-৬০ বছরের মধ্যে পাঁচজন, ৬১-৭০ বছরের মধ্যে ছয়জন, ৭১-৮০ বছরের মধ্যে দুজন এবং ৮১-৯০ বছরের মধ্যে একজন।
তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নুমনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৯ হাজার ৯৯৩টি, আর পরীক্ষা করা হয়েছে ৯ হাজার ৭২৭টি। মোট ৪৭টি ল্যাবে এসব নমুনা পরীক্ষা করা হয়।
নাসিমা সুলতানা বলেন, চব্বিশ ঘণ্টায় আইসোলেশনে আনা হয়েছে ২২৫ জনকে; ছাড় পেয়েছেন ৬২ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ৪ হাজার ৬০ জন। একদিনে কোয়ারেন্টাইনে আনা হয়েছে ২ হাজার ৫০৭ জনকে, ছাড় পেয়েছেন ২ হাজার ১৯ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৫৪ হাজার ৯২৩ জন।
এদিকে ঢাকার হটস্পট হয়ে উঠছে চট্টগ্রাম। দিন দিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। নতুন করে চিকিৎসকসহ ৯০ জনের দেহে করোনা ভাইরাসের সংক্রমন ধরা পড়েছে। এর মধ্যে নগরের ৭৭ জন ও উপজেলা পর্যায়ে ১৩ জন রয়েছে। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা গেছেন আরও চারজন। এ নিয়ে চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৩১৮ জনে। করোনায় মারা গেছেন এ পর্যন্ত ৪৯ জন।
গতকাল সকালে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি এ তথ্য জানান।
বৃহস্পতিবার (২১ মে) বি আইটিআইডিতে ২৬৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তার মধ্যে ফলাফল পজিটিভ আসে চট্টগ্রামের ২০ জনের। এরমধ্যে ১০ নগরের বাসিন্দা ও বাকি ১০ জনের মধ্যে সন্দ্বীপের ২ জন, হাটহাজারীর ৫ জন, সীতাকুণ্ডের ১ জন ও রাউজানের ২ জন রয়েছেন। এছাড়া দুইজন পুরনো রোগীর নমুনা ফের পজিটিভ পাওয়া গেছে।
চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) ল্যাবে বৃহস্পতিবার ১২৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭০ জনের করোনা পাওয়া গেছে। এর মধ্যে মহানগর এলাকার ৬৭ জন আছেন, এর মধ্যে একজন আগে মারা গেছেন। বাকি ৩ জনের মধ্যে পটিয়া, সাতকানিয়া ও ফটিকছড়ির একজন করে রয়েছেন।
চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে বৃহস্পতিবার ৬৯টি নমুনা পরীক্ষা করে কারও দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়নি। অন্যদিকে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের কারও নমুনা পরীক্ষা হয়নি।
এদিকে বি আইটিআইডি ও চমেক ল্যাব থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার চার চিকিৎসকের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে দুই চিকিৎসক চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের। তাদের একজন ৪০ বছর বয়সী পুরুষ এবং অপরজন ২৯ বছর বয়সী গাইনি বিভাগের নারী। পাথরঘাটা এলাকার ৩২ বছর বয়সী এক চিকিৎসকও রয়েছেন। হাটহাজারীতেও ৩৪ বছর বয়সী একজন ডাক্তার আক্রান্ত হয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ