মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০
Online Edition

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরলেন ২৪২ বাংলাদেশী নাগরিক

স্টাফ রিপোর্টার: করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিশেষ ফ্লাইটে দেশে ফিরেছেন ২৪২ জন বাংলাদেশি। গতকাল রোববার ভোরে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান তারা। কাতার এয়ারলাইন্সের বিশেষ চার্টার্ড এ ৩৫০-৯০০ এয়ারবাসটি গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় রাত ১১টা ০৪ মিনিটে ডুলস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করে।
ওয়াশিংটনে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস জানিয়েছে, কাতারের দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এক ঘণ্টা প্রযুক্তিগত বিরতির পর গতকাল রোববার ভোর ৪টায় বিমানটি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। যাত্রীদের মধ্যে বেশিরভাগ যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করা বাংলাদেশি শিক্ষার্থী, পর্যটন ও ব্যবসায় ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া বাংলাদেশি নাগরিক এবং কিছু সরকারি ও বেসরকারি কর্মকর্তা রয়েছেন।
এছাড়া যাত্রীদের মধ্যে স্কুল এবং কলেজের ৪৯ শিক্ষার্থীও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে যারা শিক্ষামূলক এবং সাংস্কৃতিক বিষয়াদি (ইসিএ) কার্যক্রমের আওতায় যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন। দেশে ফেরত আসা যাত্রীদেরকে বিমানবন্দরে বিদায় জানান যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন। এসময় দূতাবাসের অন্যান্য কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।
যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রেস মিনিস্টার শামীম আহমেদ জানিয়েছেন, যারা রওনা হয়েছেন, তারা সবাই যে করোনাভাইরাসমুক্ত সে বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসকদের কাছ থেকে সনদ নিয়েছেন। ঢাকায় পৌঁছে সেই সনদ তাদেরকে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে দেখাতে হবে বলে জানান তিনি।
মালদ্বীপ থেকে ফিরলেন ৩৫৩ : করোনাভাইরাসের কারণে মালদ্বীপে আটকে পড়া ৩৫৩ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। গত শনিবার রাতে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ (চার্টার্ড) ফ্লাইটে তাদের দেশে ফিরিয়ে আনা হয়।
হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়, রাত ৯টা ৫৮ মিনিটে বিমানের ওই ফ্লাইটটি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। ফ্লাইটে ৩৫৩ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন।
মালদ্বীপফেরত সবাই ওই দেশ থেকে হেলথ সার্টিফিকেট নিয়ে ফিরেছেন। তাদের কারো শরীরে করোনার সংক্রমণ নেই। তবে তাদের সবাইকে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এর আগে গত ৩ মে মালদ্বীপে অবস্থিত বাংলাদেশ হাইকমিশন জানায়, সে দেশে অবস্থানরত অনিয়মিত অথবা অবৈধ প্রবাসী বাংলাদেশি যাদের কাছে ওই দেশের সরকারের রেগুলারাইজেশন কার্ড আছে শুধু তারা বাংলাদেশে ফিরতে পারবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ