বৃহস্পতিবার ০৬ আগস্ট ২০২০
Online Edition

ঈদের আগেই আল্লামা সাঈদীকে মুক্তি দেয়ার আহবান জানিয়েছেন তার সহধর্মিনী বেগম সালেহা সাঈদী

ঈদ-উল-ফিতরের আগেই বিশ্ববরেণ্য মুফাসসিরে কুরআন সাবেক এমপি আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে মুক্তি দেয়ার আহবান জানিয়েছেন আল্লামা সাঈদীর সহধর্মীনি বেগম সালেহা সাঈদী।
গতকাল বৃহস্পতিবার দেয়া বিবৃ্তেিত তিনি বলেন, আমার স্বামী আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী দীর্ঘ ১০ বছর যাবৎ কারাগারে বন্দী জীবন যাপন করছেন। তার বয়স ৮১ বছর। তিনি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, আর্থাইটিজ, ফ্রোজেন শোল্ডারসহ নানান জটিল রোগে আক্রান্ত। তার হার্টে পাঁচটি রিং বসানো আছে। বর্তমানে তিনি কারো সহযোগিতা ছাড়া একাকী হাঁটাচলা পারেন না। এমনকি বিছানা উঠতেও তাকে কারো না করো সহযোগিতা নিতে হয়। তিনি এখন চলাফেরার শক্তি প্রায় হারিয়ে ফেলেছেন। তিনি বয়স জনিত কারণে ক্রমেই দুর্বল হয়ে পড়ছেন।
তিনি বলেন, আমি নিজেও শারীরিক ভাবে অসুস্থ। আমার বয়স এখন ৭২ বছর। আমিও ডায়াবেটিসসহ নানান জটিল রোগে আক্রান্ত। আল্লামা সাঈদী কারাগারে থাকা অবস্থায় ২০১১ সালে তিনি তার মাকে হারিয়েছেন। ২০১২ সালে আমাদের বড় সন্তান রাফীক বিন সাঈদী হার্ট এ্যাটাক করে দুনিয়া থেকে বিদায় নেয়। ২০১৭ সালে আল্লামা সাঈদীর আপন ছোট ভাই ইন্তিকাল করেন। মা, নিজের কলিজার টুকরা সন্তান ও আপন ছোট ভাইয়ের মৃত্যুর শোক বুকে ধারন করে আল্লামা সাঈদী কারাগারে অতি কষ্টে সময় অতিবাহিত করছেন। আমার স্বামীর কষ্টদায়ক জীবন, শারীরিক অসুস্থতা, বৃদ্ধ বয়সে কারাবাসসহ নানান প্রতিকূলতা আজ আমাদের পরিবারে এক বিধস্ত পরিবেশের সৃষ্টি করেছে।
তিনি আরো বলেন, আমার স্বামী পবিত্র কুরআনের একজন খাদেম। গ্রেফতারের পূর্ব পর্যন্ত তিনি জীবনের অধিকাংশ সময় মহাগ্রন্থ আল-কুরআনের তাফসীরের কাজে ব্যয় করেছেন। তার তাফসীর শুনে হাজার হাজার মানুষ ইসলামের পথে চলার প্রেরনা পেয়েছে।
তিনি বলেন, জীবনের শেষ মুহূর্তে তিনি আজ কারাগারে কঠিন জীবন যাপন করছেন। বার্ধক্য, নানান জটিল রোগ ও অসুস্থতার মধ্যে বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারণে তিনি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছেন। সামনে পবিত্র ঈদ। ঈদের আগেই আমার স্বামী আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে অসুস্থতা, বয়স ও মানবিক বিবেচনায় মুক্তি দেয়ার জন্য আমি সরকারের প্রতি বিশেষভাবে আহবান জানাচ্ছি। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ