সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

সিলেটে ওসমানী মেডিকেলের ৫ নার্স সহ করোনা আক্রান্ত আরো ১৩জন

সিলেট ব্যুরো: গত ২৪ ঘন্টায় সিলেট এমএজি ওসমানী  মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৫জন নার্স ও একজন ওয়ার্ডবয় সহ ১৩ জন করোনা শনাক্ত হয়েছেন। শুক্রবার সিলেটে এই ১৩ জনের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ওসমানী হাসপাতালের ৬জন ছাড়াও  বিভিন্ন উপজেলার ৭জন রয়েছেন।
হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৫জন নার্স ও এক ওয়ার্ডবয়, দক্ষিণ সুরমায় পাঁচজন, সদর উপজেলায় ১ জন এবং ওসমানীনগরের একজন সনাক্ত করা হয়েছে।
শুক্রবার সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে মোট ৮৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষায় ১৩ টি রিপোর্ট আসে পজেটিভ এবং নেগেটিভ রিপোর্ট আসে ৭২টি।
এদিকে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ওসমানী মেডিকেলের করোনা আক্রান্ত ৪ নার্সের জ্বর ও শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় তাদেরকে শামসুদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্য জনের শারীরিক অবস্থা বেশি খারাপ নয়, তাই তিনি বাসায় আইসোলেশনে আছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

আক্রান্ত দুই চিকিৎসক আইসিইউতে
অবস্থার চরম অবনতি ঘটায় সিলেটে করোনা আক্রান্ত দুইজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসককে আইসিইউতে নেয়া হয়েছে। তারা সিলেটে করোনা রোগিদের চিকিৎসা কেন্দ্র শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের আইসিইউতে নিবিড় পরিচর্যায় রয়েছেন বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।
দুই চিকিৎসক হলেন, একজন গাইনি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. দিলীপ কুমার ভৌমিক ও অন্যজন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (ইমার্জেন্সি মেডিকেল অফিসার)। দিলীপ কুমার করোনা পজিটিভ হলেও ওই কর্মকর্তা করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (আরএমও) সুশান্ত কুমার মহাপাত্র। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ডা. দিলীপ কুমার ভৌমিক ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি বিভাগের প্রধান ছিলেন। অবসরে যাওয়ার পর একটি বেসরকারি হাসপাতালে গাইনি বিভাগের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। নমুনা পরীক্ষায় গত ৪ মে দিলীপ কুমার ভৌমিক করোনাক্রান্ত বলে শনাক্ত হন। প্রথমে তাকে বাসায় রেখেই চিকিৎসা দেওয়া হয়। গত ১০ মে তীব্র শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে তাকে শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে নেওয়া হয়। এরপর তাকে আইসিইউতে রাখা হয়।
এদিকে, ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওই জরুরি স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে গত কয়েকদিন ধরে করোনার উপসর্গ নিয়ে ভুগছিলেন। তার বাসা উপশহরে। অবস্থার অবনতি হলে গত বৃহস্পতিবার তাকে শামসুদ্দিনে ভর্তি করা হয়। এরপর তাকে রাখা হয়েছে আইসিইউতে।
সুশান্ত কুমার মহাপাত্র জানিয়েছেন, এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তার করোনা পরীক্ষা করানো হয় শুক্রবার। তবে ফলাফল নেগেটিভ আসে। শনিবার আরেকবার তার করোনা পরীক্ষা করানো হয়েছে। এখনো ফলাফল হাতে আসেনি।
প্রসঙ্গত, করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে চিকিৎসকদের মধ্যে মারা যাওয়া মঈন উদ্দিন সিলেটের বাসিন্দা ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জের ছাতকে। ৫ এপ্রিল আক্রান্ত শনাক্ত হওয়ার পর ১৫ এপ্রিল তিনি ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে মারা যান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ