বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলা লক্ষ্য বাংলাদেশের ---- অধিনায়ক রুমানা

স্পোর্টস রিপোর্টার : বিশ্বকাপের মুল পর্বে খেলার লক্ষ্য বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দলের। এমনটাই জানান বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের অধিনায়ক রুমানা আহমেদ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিয়মিত অংশগ্রহণ করলেও ওয়ানডে বিশ্বকাপে খেলা হয়নি বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের। ২০১১ ও ২০১৭ সালে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে অংশগ্রহণ করলেও মূল পর্বের টিকিট পায়নি মহিলা দল। এদিকে বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব পিছিয়ে দেওয়ায় খুশি বাংলাদেশ অধিনায়ক রুমানা আহমেদ। তিনি জানান, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর বাছাই পর্বের জন্য পর্যাপ্ত অনুশীলনের সুযোগ পাবে বাংলাদেশ। তাতে মূল বিশ্বকাপে অংশগ্রহণের সুযোগ আরও বেড়ে যাবে। চলতি বছরের জুলাইয়ে বাছাই পর্বের পঞ্চম আসরেও অংশগ্রহণ করত বাংলাদেশ। কিন্তু করোনার কারণে পিছিয়ে গেছে বাছাই পর্ব। সূচি অনুযায়ী বাছাই পর্ব অনুষ্ঠিত হলে পর্যাপ্ত প্রস্তুতি হতো কিনা তা নিয়ে চিন্তিত ছিল বাংলাদেশ শিবির। প্রতিযোগিতা পিছিয়ে যাওয়ায় নিজেদের প্রস্তুতির ভালো সুযোগ আছে বলে মনে করছেন ওয়ানডে অধিনায়ক রুমানা আহমেদ। রোমানা বলেন,‘আমাদের ধারনা ছিলো, হয়তো এই দুর্যোগের সময়ে টুর্নামেন্ট স্থগিত হবে। তবে নিশ্চিত ছিলাম না। আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসায় এখন কিছুটা স্বস্তিতে আছি। কারণ দীর্ঘদিন আমরা মাঠের বাইরে। যত-ই বাসায় ফিটনেস নিয়ে কাজ করি না কেন, মাঠে থেকে ফিটনেস নিয়ে কাজ করার মতো হচ্ছিলো না, হচ্ছেও না। এখন অনুশীলনের জন্য যথেষ্ট সময় পাওয়া যাবে। সেই সময়টাকে কাজে লাগিয়ে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের জন্য নিজেদের পুরোপুরি ফিট করতে পাবে ক্রিকেটাররা। এখন নতুন করে পরিকল্পনা সাজাতে হবে আমাদের।’ ১০ দলের বাছাই পর্বে আইসিসির পূর্ণাঙ্গ পাঁচটি সদস্য দেশ অংশ নেবে। বাংলাদেশ সহ এই তালিকায় রয়েছে আয়ারল্যান্ড, পাকিস্তান, শ্রীলংকা এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ শুধু আয়ারল্যান্ডের থেকে এগিয়ে আছে। বাকি তিন দলের থেকেই রয়েছে পিছিয়ে। এছাড়া অঞ্চলভিত্তিক প্রতিযোগিতা থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে আসা পাঁচটি দল, থাইল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে, পাপুয়া নিউ গিনি, যুক্তরাষ্ট্র ও নেদারল্যান্ডস বাছাই পর্বে অংশ  নবে। টুর্নামেন্টের নতুন সূচি এখনও তৈরি করেনি আইসিসি। তবে বাছাই পর্বে বাংলাদেশকে কঠিন প্রতিদ্বন্ধিতার মুখোমুখি হতে হবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ২০১১ সালে ঘরের মাঠের বাছাই পর্বে বাংলাদেশ পঞ্চম হয়েছিল। ২০১৭ সালে শ্রীলংকার মাটিতেও একই ফল দেখে টাইগ্রেসরা। গ্রুপ পর্ব পেরোতে পারলেও বাংলাদেশ নকআউট পর্বে গিয়ে তালগোল পাকিয়ে ফেলছে। বাছাই পর্ব থেকে তিনটি দল আগামী বছর নিউজিল্যান্ডে হতে যাওয়া বিশ্বকাপের মূল পর্বে অংশগ্রণের সুযোগ পাবে। সেই চ্যালেঞ্জ নিয়েই শ্রীলংকার মাঠে নামবে বাংলাদেশ। আত্মবিশ্বাসী কন্ঠে বলেছেন টাইগ্রেস অধিনায়ক। তিনি বলেন,‘আমরা শেষ বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব যেটা খেলেছিলাম, সেখানে কিন্তু মাত্র একটা ম্যাচ হেরে আমার মূল পর্বে খেলতে পারিনি। এবার যেন  সেই ভুল না হয় আমরা সে চেষ্টাই করবো। অধিনায়ক হিসেবে বলতে চাই, আমাদের প্রধান লক্ষ্যই কিন্তু মূল বিশ্বকাপে খেলা। ইনশাআল্লাহ এবার আমরা সেটা করতে পারবো।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ