ঢাকা, শনিবার 6 June 2020, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৩ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

সিলেটে ফাও ‘পাঠা কান্ডে’ মামলা : গ্রেপ্তার ১

সিলেট ব্যুরো: সিলেটে ফাও পাঠা (ছাগল) না পেয়ে প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তার ওপর হামলার ঘটনায় আওয়ামীলীগ নেতা সহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। মামলার আসামী ছাত্রলীগ নেতা কনক পাল অরুপকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার দিবাগত মধ্যরাতে তাকে গ্রেপ্তার করে শাহপরাণ থানা পুলিশ। এর আগে সিলেট বিভাগীয় প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ড. আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় মহানগর আওয়ামীলীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রনজিত সরকারসহ ১০ জনের নামোল্লেখ করে এবং আরো অজ্ঞাত ৮/ ১০ জনকে আসামী করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে বলা হয়, সোমবার দুপুরে নগরীর টিলাগড়ে সিলেট বিভাগীয় ছাগল গবেষণা খামারে কয়েকজন যুবককে পাঠান সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট রনজিত সরকার। যুবকরা খামারে প্রজননের জন্য আনা একটি পাঠা (ছাগল) রনজিতের খাবারের জন্য ফ্রি দেয়ার জন্য বিভাগীয় প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ড. আমিনুল ইসলামের কাছে আবদার জানায়। ড. আমিনুল পাঠা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তারা গালিগালাজ করে চলে যায়। কিছুক্ষণ পর দলবল নিয়ে রনজিত সরকার সেখানে গিয়ে কর্মকর্তাদের ওপর চড়াও হন। এসময় তিনি অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা কাজী আশরাফের উপর হামলা চালান। অফিসের অন্যান্য কর্মকর্তাদেরও লাঞ্ছিত করেন তারা।

এদিকে, এ ঘটনায় সোমবার রাতভর জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম এর মধ্যস্ততায় সমঝোতার চেষ্টা চলে বলে জানা গেছে। সমঝোতা বৈঠকে প্রাণী সম্পদ বিভাগের কর্মকর্তাবৃন্দ ছাড়াও জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু হামলায় আক্রান্ত কর্মকর্তারা সমঝোতায় রাজী না হওয়ায় এ প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। পরে মধ্যরাতে বিভাগীয় প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ড. আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে শাহপরান থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন।শাহ পরান (রহ.) থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুল কাইয়ূম চৌধুরী বলেন, ঘটনার সংবাদ পেয়ে সাথে সাথে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সেখানে পুলিশ পৌছার পূর্বে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। তবে এ বিষয়ে থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে । যার মামলা নং- ৪/২০২০। এতে ১০ জনের নাম উল্লেখ সহ আরও অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এরমধ্যে কনক পাল অরূপ’ নামের এক ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানান ওসি। অন্যদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

এদিকে, হামলায় আহত জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা কাজী আশরাফুল ইসলামকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দিয়ে বাসায় পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।#

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ