রবিবার ০৯ আগস্ট ২০২০
Online Edition

লৌহজংয়ে শ্রমিকদের উপর গুলি বর্ষণ ॥ আহত ৮

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) সংবাদদাতা : মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মেদিনী ম-ল ইউনিয়নের সিতারামপুরে পদ্মা সেতুর রেলওয়ে প্রজেক্টের মেরিন সিকিউরিটি গার্ডদের গুলিতে ৮ শ্রমিক আহত হয়েছে। বুধবার রাত পোন ৯টার দিকে ঘটনাটি ঘটে। আর এ ঘটনায় আহত শ্রমিকরা হলো নাঈম ইসলাম (২১), রাসেল শেখ (২৫), জাকির হোসেন (২৫), সুমন হাওলাদার (২৭), আলী মুনসুর (৫০), শুভ ফকির (২২), রাজু আহম্মেদ (২৩) ও পারভেজ হোসেন (২০)। আহতদের শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

লৌহজং থানার ওসি আলমগীর হোসেন জানান, করোনার কারণে পদ্মা সেতু রেলওয়ে প্রজেক্টের শ্রমিকরা লৌহজংয়ের মেদিনী মন্ডল ইউনিয়নের সিতারামপুর এলাকার প্রকল্পের ভেতরে বাংলা ম্যাচে থেকে কাজ করে চলছিল। করোনা উপলক্ষে শ্রমিকদের বৃহস্পতিবার থেকে অতিরিক্ত দেড় শত টাকা করে দেবার কথা ছিল। কিন্তু এ টাকা শ্রমিকরা পাবে কিনা এ নিয়ে সন্দিহান হয়ে তারা বাংলা ম্যাচের সামনে হট্টগোল ও জটলা পাকাতে থাকে। এ সময় প্রকল্পের মেরিন সিকিউরিটি গার্ডরা এগিয়ে গেলে শ্রমিকরা গার্ডদের উপর চড়াও হয়। এনিয়ে দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা তৈরী হলে সিকিউরিটি গার্ডারা শ্রমিকদের পা লক্ষ্য করে শর্ট গানের গুলি বর্ষণ করে। এতে ৮ শ্রমিক গুলি বিদ্ধ হয়ে আহত হয়। আহতদের তৎনিক চিকিৎসার জন্য শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নেয়া হয়েছে। এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রকল্পে কর্মরত শ্রমিকরা জানান ঠিকাদার কর্তৃক থাকা খাওয়া বাবদ প্রতেক শ্রমিকে প্রতিদিন ৩০০ টাকা করে নগদ দেওয়ার কথা ছিলো। আর ২০ শে এপ্রিলের পর থেকে শ্রমিকদের কোন টাক দেয়নি প্রতিষ্ঠানটি। আর এনিয়ে ঝামেলাও হয়েছিলো। এ ঘটনার খবর পেয়ে মুন্সীগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেনসহ প্রশাসনের কর্তাব্যাক্তিরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং শ্রমিকদের সাথে কথা বলে তাদের শান্ত করেন। এ ঘটনায় এখনো কোনা মামলা বা কাউকে আটক করা হয়নি। 

গুজবে কান দেবেন না-পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার: মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে পদ্মা রেলওয়ে সেতু প্রকল্পে ঠিকাদারদের সঙ্গে শ্রমিকদের মজুরি নিয়ে অসন্তোষের বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা গুজব ছড়ানো হচ্ছে। একটি গোষ্ঠীর ছড়ানো এই গুজবে কান না দেয়ার অনুরোধ করেছে পুলিশ সদরদফতর। বুধবার মধ্যরাতে এক জরুরি প্রেস নোটে বিষয়টি জানিয়েছেন পুলিশ সদরদফতরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি) মো. সোহেল রানা। এদিকে পদ্মা সেতুর রেল প্রকল্পের শ্রমিকদের গুলির ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। 

পদ্মা রেলওয়ে সেতু প্রকল্পে চীনা ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান চাইনিজ রেলওয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (সিআরইসি) স্থানীয় শ্রমিকদের নিয়ে কাজ করছে। বুধবার মজুরি নিয়ে স্থানীয় শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা যায়। এতে শ্রমিকদের সঙ্গে বাংলাদেশি বেসরকারি নিরাপত্তাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনাপূর্ণ পরিবেশ তৈরি হয়। এআইজি মো. সোহেল রানা বলেন, এই ঘটনায় কয়েকজন শ্রমিক সামান্য আহত হয়। পরে পুলিশ ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ঘটনাস্থলে এসে পরিবেশ নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে ঘটনাটি নিয়ে কোনো মহল গুজব ছড়াতে পারে। সেই গুজবে কান না দিতে অনুরোধ করা হচ্ছে। এ বিষয়ে আর কোনো আপডেট থাকলে সাংবাদিকদের জানিয়ে দেয়া হবে বলে জানান এআইজি।

ঘটনায় তদন্ত কমিটি: এদিকে বুধবার পদ্মাসেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের শ্রমিকদের বিক্ষোভের সময় গুলি চালানোর ঘটনায় বুধবার রাতেই তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান পদ্মাসেতু রেল সংযোগ প্রকল্প পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) প্রকৌশল গোলাম ফখরুদ্দিন এ চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘এ ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটি কাজ করছে। আগামীকালই (শুক্রবার) তারা তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেবে।’

গোলাম ফখরুদ্দিন এ চৌধুরী আরও বলেন, ‘এটা জাস্ট মিস আন্ডারস্টেন্ডিং, আর কিছু না। পেমেন্ট নিয়ে এই মিস আন্ডারস্টেন্ডিং। শ্রমিকদের অতিরিক্ত ৩০০ টাকা করে দেয়ার কথা ছিল ঠিকাদারের। সেই পেমেন্ট নিয়ে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। সেটাই আমরা দূর করে দিচ্ছি।’ গুলির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা যারা করছে, সেটা তদন্তের পরে বলতে পারব। এটা এখন তো বলা যাচ্ছে না। তদন্ত শেষ হোক, তখন বলতে পারব।’ ওই ঘটনায় আহতদের বিষয়ে জানতে চাইলে পদ্মাসেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের পরিচালক বলেন, ‘সিম্পল, জাস্ট পায়ে গুলি লাগছে সবার। ছয়জনের পায়ে গুলি লাগছে।’

পদ্মাসেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের আন্দোলনকারী শ্রমিকরা নির্ধারিত সময়ের চেয়ে অতিরিক্ত সময় কাজ করে আসছিলেন। ঠিকাদার বলেছিলেন, এই অতিরিক্ত সময়ের জন্য তাদের বাড়তি ৩০০ টাকা করে দেয়া হবে। তবে সেই টাকা দেয়া নিয়ে টালবাহানা শুরু করলেন সেখানে বুধবার রাতে অসন্তোষ দেখা দেয়। এরই একপর্যায়ে শ্রমিকদের ওপর গুলি চালায় সেখানকার নিরাপত্তাকর্মীরা। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ