শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ বাতিল না করার আকুতি ফুটবলারদের

স্পোর্টস রিপোর্টার : করোনা মহামারির কারণে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ মাঝ পথে বন্ধ হয়ে আছে। কবে পরিস্থিতির উন্নতি হবে আর কবে খেলা মাঠে গড়াবে তা অনিশ্চিত। ইতোমধ্যে লিগ কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। যেখানে ক্লাবগুলো লিগ দাবি বাতিলের দাবি জানিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ফুটবলাররা পড়েছে বিপাকে। তারা লিগ বাতিলের পক্ষে নয়। তাদের দাবী দুই লেগ না করে প্রয়োজনে সিঙ্গেল লেগ করার। একাধিক ভেন্যুতে না হলেও একটি ভেন্যুতেই থেমে থাকা লিগের আয়োজন করতে পারে বাফুফে।তবুও মাঠে গড়াক খেলা, কোনভাবেই যেন প্রিমিয়ার লিগ ভেস্তে না যায়, সেই আকুতি ফুটবলারদের।

তারা বলছেন, এখনও লিগ বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় আসেনি। কারণ শেষ পর্যন্ত এ মৌসুমের জন্য বিপিএল বাতিল হয়ে গেলে, শুধু ক্লাব ফুটবলই নয় তার নেতিবাচক প্রভাব পড়বে জাতীয় দলের পারফর্মেন্সেও। কিট হচ্ছে প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলের ১২তম আসরের ভবিষ্যৎ, জানেনা কেউই। তবে ক্লাবগুলোর সঙ্গে পেশাদার লিগ কমিটির গেলো রোববারের জরুরী সভায় এটা স্পষ্ট দু'একটা দল ছাড়া এ মৌসুমে আর খেলতে চায়না কোন পক্ষই।

আর শেষ পর্যন্ত যদি তাই হয় তবে সবচাইতে বেশি ভুক্তভোগী হবেন খেলোয়াড়রা। কারণ এই লিগই যে তাদের রুটিরুজির একমাত্র উৎস। ক্লাবগুলো পরিকল্পনা করছে বর্তমান চুক্তিতেই আগামী মৌসুমে খেলানো হবে ফুটবলারদের। তবে ফুটবলাররা অনুরোধ করছেন সিঙ্গেল লেগ হলেও যেন শেষ হয় মৌসুম।

মৌসুম শেষ হয়ে গেলে কার্যত আগামী ৬ মাসের জন্য জাতীয় দল ছাড়া আর কোন ব্যস্ততা থাকবেনা অধিকাংশ ফুটবলারদের৷ যা প্রভাব ফেলবে তাদের ফিটনেসে, প্রভাব ফেলবে পাইপলাইনে এমনটাই বলছেন ফুটবলাররা।

২০০৭ এর প্রথম আসরের লিগ শেষ হয়েছিলো আগস্টে। যে ধারা ছিলো প্রায় প্রতিবারই। তাইতো তাইতো এখনই লিগ বন্ধের মতো আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত না নিতে বাফুফে কে আকুতি খেলোয়াড়দের। এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত আসবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) কার্যনির্বাহী আগামী সভায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ