ঢাকা, মঙ্গলবার 2 June 2020, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৯ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

খুলনার চার উপজেলায় পৌঁছায়নি টিসিবি’র পণ্য : ভোক্তারা বঞ্চিত

 

খুলনা অফিস : করোনা পরিস্থিতির কারণে খুলনায় নিয়মিত বাজার বসছে না। প্রশাসনের তদারকিতে অস্থায়ী এবং স্থায়ী বাজার চলমান থাকলেও রয়েছে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি। রমযানেও দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ হয়নি। যার ফলে নিম্নবিত্তদের পাশাপাশি মধ্যবিত্তরাও নির্ভর হয়ে পড়েছেন ট্রেড কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)’র পণ্যের ওপর। নগরীর ২৫টি পয়েন্টে ট্রাকে করে বিক্রি হচ্ছে টিসিবির পণ্য। তবে পাইকগাছা, ডুমুরিয়া, দাকোপ এবং বটিয়াঘাটা উপজেলায় এখনও টিসিবি’র পণ্য পৌঁছায়নি। ফলে লাখ লাখ মানুষ এখনও নিয়ন্ত্রিত মূল্যে পণ্য কিনতে পারছেন না। এসব ক্ষেত্রে ডিলারদের অনীহা অনেকটা দায়ী বলে দাবি কর্তৃপক্ষের। 

জানা যায়, টিসিবি’র উদ্যোগে প্রতি রমযানেই বাজার থেকে কম মূল্যে চিনি, সয়াবিন তেল, মুসুরির ডাল, ছোলা এবং খেজুর বিক্রি করা হয়। কিন্তু এ বছর করোনা পরিস্থিতির কারণে রমযানের আগে থেকেই ছোলা এবং খেজুর বাদে অন্য পণ্য বিক্রি করা শুরু হয়েছে। বাড়ানো হয়েছে বিক্রির পয়েন্ট। বর্তমানে নগরীতে ২৫টি পয়েন্টে প্রতিদিন টিসিবি’র পণ্য বিক্রি হচ্ছে। এগুলো হচ্ছে-বান্ধা বাজার, রূপসা ট্রাফিক মোড়, রূপসা নতুন বাজার, টুটপাড়া কবর খানা মোড়, করোনেশন স্কুলের সামনে, সাউথ সেন্ট্রাল রোড, জেলা প্রশাসক কার্যালয়, সাতরাস্তা মোড়, ময়লাপোতা মোড়, পাওয়ার হাউজ মোড়, গল্লামারী, কাকলিবাগ (জাতিসংঘ পার্ক), শিববাড়ি, নিউ মার্কেট,  সোনাডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড, বয়রা বাজার, বৈকালী, ২নং নেভী গেট, গাবতলা মোড় (খালিশপুর), খালিশপুর জুট মিল চত্ত্বর, দৌলতপুর নতুন রাস্তার মোড়, ফুলবাড়িগেট, শিরোমনি বাজার, আড়ংঘাটা বাজার এবং যোগিপুল। এছাড়া জেলার ফুলতলা, দিঘলিয়া, রূপসা, তেরখাদা এবং কয়রায় প্রতিদিন একটি করে ট্রাকে টিসিবি’র পণ্য বিক্রি হচ্ছে। 

অন্যদিকে ডুমুরিয়া উপজেলার ডিলারদের অনীহার রয়েছে, একাধিকবার তাগিদ দেওয়ার পরও ট্রাকে করে পণ্য বিক্রি করতে রাজি হচ্ছে না তারা। পাশাপাশি দাকোপ, বটিয়াঘাটা এবং পাইকগাছা উপজেলায় কোন ডিলার না থাকায় সেখানে পণ্য বিক্রি করা যাচ্ছে না। এর ফলে চারটি উপজেলার লাখ লাখ মানুষ টিসিবি’র পণ্য কেনা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। 

সরেজমিনে নগরীর একাধিক টিসিবি’র পয়েন্ট গিয়ে দেখা যায়, সামাজিক দূরত্ব রেখে দীর্ঘ লাইন হচ্ছে। ভোর থেকে শুরু করে পণ্য শেষ না হওয়া পর্যন্ত লাইন থাকছে। অনেকেই ১/২ ঘন্টা অপেক্ষা করেও কিনছে পণ্য। নগরীর বয়রা ও জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনের পয়েন্টগুলোতে দেখা যায়, মোটরসাইকেলেও করে এসে অনেক নিন্মবিত্তদের সাথে মধ্যবিত্তরা পণ্য কিনছেন। 

বয়রা এলাকার ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর বলেন, বাজারে থেকে স্বল্পমূল্যে এখানে পণ্য পাওয়া যায় তাই তিনি লাইনে দাঁড়িয়ে কিনছেন। জাহানারা বেগম বলেন, সামাজিক দূরত্ব রেখেই এখানে পর্যাপ্ত পণ্য কেনা যায়। তাই বাজারে না গিয়ে এখানে এসেছেন। 

টিসিবি আঞ্চলিক কার্যালয়ের অফিস প্রধান মো. রবিউল মোর্শেদ বলেন, নগরীর ২৫টি পয়েন্টে এবং ৫টি উপজেলায় একটি করে ট্রাকে টিসিবির পণ্য বিক্রি হচ্ছে। পর্যাপ্ত পরিমাণ পণ্য আমাদের মজুদ আছে। ক্রেতাদের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই পণ্য বিক্রি করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ডিলারদের। 

তিনি আরও জানান ডুমুরিয়া উপজেলায় ডিলারদের অনীহার কারণে সেখানে পণ্য বিক্রি করা যাচ্ছে না। দাকোপ, বটিয়াঘাটা এবং পাইকগাছা উপজেলাতে ডিলার সংকটের কারণে ট্রাক যাচ্ছে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ