ঢাকা, শনিবার 30 May 2020, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৬ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

চট্টগ্রামে বেসরকারি স্কুল কলেজ শিক্ষার্থীদের বেতন পরিশোধে চাপ: নাগরিক উদ্যোগের নিন্দা

চট্টগ্রাম ব্যুরো : চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন বেসরকারি স্কুল কলেজ শিক্ষার্থীদের বেতন পরিশোধের জন্য চাপ সৃষ্টি করছে যা সম্পূর্ণ অনৈতিক বলে মত প্রকাশ করেছেন নাগরিক উদ্যোগের প্রধান উপদেষ্টা ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন। তিনি  মঙ্গলবার এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ আহবান জানান।

এ সময় সুজন বলেন, করোনা পরিস্থিতি বৈশ্বিক মহামন্দা অবস্থা সৃষ্টি করেছে। দেশের আর্থিক পরিস্থিতির ওপর করোনা ব্যাপকভাবে প্রভাব ফেলবে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস মোকাবিলায় নানামূখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে দেশবাসীকে রক্ষা করতে প্রতিদিনই প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা প্রদান করছেন। এছাড়া করোনাভাইরাসের আর্থিক প্রভাব কাটাতে ইতিমধ্যে ৭২ হাজার ৫০০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সরকার করোনা পরবর্তী সংকট সামাল দিতে আন্তরিকতার সাথে কাজ করছে। তাছাড়া এ ভাইরাস মোকাবিলায় সরকারি-বেসরকারি অফিসে সাধারণ ছুটির মেয়াদ ৫ মে পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। স্বাভাবিকভাবেই এ অবস্থায় দেশের মানুষ কিছুটা উদ্বেগ উৎকন্ঠায় দিনাতিপাত করছে। প্রয়োজন ছাড়া বেশীরভাগ অফিস, ব্যবসা প্রতিষ্টান বন্ধ রয়েছে। ফলতঃ জনগনের আয় রোজগারের পথ রুদ্ধ হয়ে গিয়েছে। অভিভাবকরা নানাবিধ অর্থ কষ্টে রয়েছেন। এ অবস্থায় নগরীর কতিপয় বেসরকারি স্কুল কলেজের পরিচালনা পরিষদ শিক্ষার্থীদের বেতন পরিশোধের জন্য অভিভাবকদের উপর চাপ সৃষ্টি করছে যা সম্পূর্ণরূপে নিষ্ঠুরতার সামিল। আমরা বিভিন্ন সূত্রে জানতে পেরেছি এসব প্রতিষ্ঠানগুলো অভিভাবকদের মোবাইলে ফোন করে এবং ম্যাসেজ পাঠিয়ে বিভিন্ন ধরণের হুমকি ধামকি প্রদান করছে যা একেবারেই অযৌক্তিক।

তিনি বলেন, শিক্ষা মানুষের মৌলিক অধিকারগুলোর মধ্যে অন্যতম। বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাই শিক্ষাকে অধিকতর গুরুত্ব দিয়ে এ খাতে সর্বোচ্চ সংখ্যক বাজেট বরাদ্ধ দিয়েছে। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় সরকারের নানা রকম উদ্যোগের পরও সরকারী নির্দেশনা অম্যান্য করে বছরের শুরুতেই বিভিন্ন বেসরকারী স্কুল কলেজে ভর্তি, পুনঃভর্তির নামে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ আদায় করে। এছাড়া নামে বেনামে বিভিন্ন উপলক্ষের নামে টাকা আদায় করার ফলে এসব প্রতিষ্ঠানে টাকার পাহাড় গড়ে উঠেছে। অথচ বর্তমান পরিস্থিতিতে ঐসব খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠানেও নানা অজুহাতে শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন ভাতা পরিশোধ করা হচ্ছে না।

তিনি এসব প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষক কর্মচারীদের নিজস্ব তহবিল থেকে বেতন ভাতা পরিশোধ করার উদাত্ত আহবান জানান। এছাড়া নগরীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত নন এমপিওভুক্ত শিক্ষক কর্মচারীদেরও করোনা অজুহাতে বেতন ভাতা পরিশোধ না করার অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। যার ফলে এসব প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষক কর্মচারীরা মানবেতর জীবন যাপন করছে। এর ফলে দেশের মেধা তৈরীর কারিগর শিক্ষক শ্রেণীকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে যা কোনভাবেই কাম্য নয়। তিনি নগরীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত নন এমপিওভুক্ত শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন ভাতা পরিশোধ করার ব্যবস্থা গ্রহণে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিকট বিনীত অনুরোধ জানান। 

এছাড়া বর্তমান পরিস্থিতিতে যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নানা ধরণের অনৈতিক কাজের সাথে যুক্ত রয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং শিক্ষা বোর্ডের নিকট সবিনয় আবেদন জানান। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ