ঢাকা, বৃহস্পতিবার 12 August 2020, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ জিলহজ্ব ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

করোনায় আর্থিক ক্ষতি পোষাতে ফিফা ও এএফসির সহযোগিতা চেয়েছে বাফুফে

স্পোর্টস রিপোর্টার : কয়েকদিন আগেই করোনা ভাইরাসের কারনে বিশেষ ফান্ড ঘোষনা করেছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা । এই বিশেষ ফান্ডে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) পাচ্ছে ৫ লাখ ডলার । যা বাংলাদেশের মূদ্রায় ৪ কোটি ২৫ লাখ টাকা । কিন্তু বাফুফের  আর্থিক ক্ষতির পরিমান আরো বেশী।তারপর আবার ক্লাবগুলো ও আর্থিক সহযোগিতা চেয়েছে। সব মিলিয়ে  ৫ থেকে ৭ কোটি টাকা ক্ষতির মুখে বাফুফে। এমন  তথ্যই মিললো বাফুফে সেক্রেটারীর কাছে।

সাধারন সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ জানালেন,করোনার আগে প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ, মেয়েদের ফুটবল লিগসহ চলছিল জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপ ও স্কুল ফুটবল। এছাড়া পেশাদার ফুটবলের দ্বিতীয় স্তর চ্যাম্পিয়নশিপ লিগের দলবদলও শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনার প্রকোপে সবকিছু এখন স্থগিত। যে কারণে বড় রকমের আর্থিক ক্ষতির মধ্যে পড়েছে বাফুফে। সোহাগ বলেছেন, ‘আমাদের যে লিগগুলো চলছিল। এছাড়া স্কুলসহ অন্য যে প্রতিযোগিতাগুলো ছিল, সবই এখন বন্ধ। করোনার কারণে কবে আবার এগুলো শুরু হবে, তা বলা কঠিন। এর জন্য আমরা ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি। বলতে পারেন, সবকিছুর জন্য পাঁচ থেকে সাত কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে।’

আর্থিক ক্ষতির বিষয়ে ফিফা ও এএফসিকে জানানো হয়েছে। এমন তথ্য দিয়ে সোহাগ বলেছেন, ‘এই আর্থিক ক্ষতির বিষয়ে আমরা ফিফা ও এএফসিকে জানিয়েছি। এখন দেখা যাক সেখান থেকে কোনও সহযোগিতা পাই কি না। তার ওপর প্রিমিয়ারের ক্লাবগুলো আর্থিক সহযোগিতা চেয়েছে। আশা করছি, ফিফা-এএফসি থেকে ইতিবাচক সাড়া পাবো।’

সম্প্রতি করোনা ইস্যুতে ফিফা তার প্রত্যেক সদস্য দেশকে পাঁচ লাখ ডলার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এ বিষয়ে বাফুফের সাধারণ সম্পাদকের ব্যাখ্যা, ‘আমরা বার্ষিক বরাদ্দ যেটা পেতাম, তারই একটি অংশ আগে-ভাগে পাচ্ছি। করোনার জন্য অতিরিক্ত কোনও অর্থ পাচ্ছি না। এই অর্থের হিসেবও দিতে হবে আগের মতোই। এই অর্থ দিয়ে আমাদের দৈনন্দিন যে খরচ আছে, সেটা মেটানো হবে। তাই ফিফা ও এএফসির কাছে আর্থিক সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ