শনিবার ৩০ মে ২০২০
Online Edition

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ

 

স্টাফ রিপোর্টার: শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটিও সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির আওতাভুক্ত হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সে হিসাবে আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি গণনা করা হবে জানিয়েছেন তিনি।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি আগামী ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। ১৪ এপ্রিল পহেলা বৈশাখের ছুটিও সাধারণ ছুটির মধ্যে পড়বে।

এর আগে সাধারণ ছুটি ২৬ মার্চ হতে ৪ এপ্রিল এবং পরে ৫-৯ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল। আর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর ছুটি ১৮-৩১ মার্চ এবং পরে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটিও ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। তবে স্থগিত থাকা এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে এখনই কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া যাচ্ছে না।

২০২০ শিক্ষাবর্ষের ছুটির তালিকা ও শিক্ষাপঞ্জিতে সরকারি মাধ্যমিক ও নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পবিত্র রমজান, মে দিবস, বুদ্ধ পূর্ণিমা, বৈশাখি পূর্ণিমা, শব-ই-কদর, জুমাতুল বিদা ও ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষ্যে ২৫ এপ্রিল থেকে ৩০ মে ৩১ দিন ছুটি রয়েছে। আর এসব উপলক্ষ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২৫ এপ্রিল হতে ২৮ মে পর্যন্ত ছুটি রয়েছে ৩০ দিন।

বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ হতে গতকাল পর্যন্ত দেশে করোনা ভাইরাসে মোট মৃত্যু ৯ জন এবং মোট সংক্রমণ হয়েছেন ৮৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১ জনের মৃত্যু ও নতুন ১৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি রোজা ও ঈদের ছুটির সঙ্গে সংযুক্ত হবে বলেও আভাস পাওয়া গেছে সরকারের বিভিন্ন পর্যায় থেকেই।

সব অফিস আদালত ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ রাখার যে ঘোষণা সরকার দিয়েছিল, তাও ইতোমধ্যে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

এর আগে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হলেও তা বাড়িয়ে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত করা হয়।

১০ এপ্রিল শুক্রবারের সাপ্তাহিক ছুটি রয়েছে। নতুন করে ১১ থেকে ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়িয়ে আদেশ জারি করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ১৪ এপ্রিল বাংলা নববর্ষের ছুটিও এরসঙ্গে যুক্ত হবে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যত দিন বন্ধ থাকবে ততদিন সব ধরনের কোচিং সেন্টারও বন্ধ রাখা হবে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান টানা বন্ধ থাকায় পাঠদানের ধারাবাহিকতা রাখতে ২৯ মার্চ থেকে সংসদ টিভিতে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির ক্লাস দেখানো শুরু করেছে সরকার। শিগগিরই প্রাথমিককেও সেই ব্যবস্থা করার চেষ্টা করছেন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ