শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

লালমনিরহাটে ওয়ালটনের ত্রাণ নিয়ে কুচক্রীদের গুজব

লালমনিরহাটে একটি স্বার্থান্বেষী কুচক্রী মহল ওয়ালটনের ত্রাণ নিয়ে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করে গুজব ছড়াচ্ছে। তারা ওই বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ এবং ফেসবুকে তা ভাইরাল করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ধরনের অপপ্রচারে ওয়ালটন মর্মাহত। এ বিষয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। 

জানা গেছে, লালমনিরহাটের হাতিবান্ধা শহরে ওয়ালটন প্লাজার একজন ক্রেতা কিস্তিতে কিছু পণ্য কিনে টাকা পরিশোধ নিয়ে ঝামেলা করেন। যদিও এটা আগের ঘটনা। টাকা চাইতে গেলে ওই ক্রেতার লোকজন ওয়ালটনকে ‘সময়মতো’ দেখে নেয়ার হুমকি দেন। করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে সরকারের নির্দেশনা মেনে ওয়ালটন প্লাজা বন্ধ রাখা হলে সেই সুযোগে ওই ব্যক্তি গত ৩০ মার্চ ওয়ালটন প্লাজার সামনে কিছু দরিদ্র মানুষকে তার অসৎ উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য ত্রাণ দেয়ার মিথ্যা কথা বলে ডেকে নিয়ে ভিডিও করে, ছবি তোলে। এরপর ষড়যন্ত্রকারীদের ফাঁদে পড়া ওইসব নীরিহ মানুষদের সেখান থেকে চলে যেতে বলে। সে সময় ওয়ালটন প্লাজার কর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রাণ দেয়ার কাজে ব্যস্ত ছিলেন। পরে কুচক্রী মহলটি সেই ভিডিও এবং ছবি ফেসবুকে পোস্ট করে। সেইসঙ্গে তাদের ইন্ধনে কিছু অনলাইন নিউজ পোর্টাল ওই সাজানো সংবাদ প্রকাশ করে। 

তৎক্ষণাৎ বিষয়টি মৌখিকভাবে স্থানীয় প্রশাসন এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীকে জানানো হয়। তারা এ বিষয়ে দ্রুত সাড়া দিয়ে ওই কুচক্রী মহলকে চিহ্নিত করে ফেসবুক থেকে তা মুছে ফেলার ব্যবস্থা করেন। 

কিন্তু ওই ষড়যন্ত্রকারীদের অপপ্রচার এখনো থামেনি। তারা নিজেদের স্বার্থ হাসিল, ওয়ালটনের সুনাম ক্ষুণœ এবং জনগণের কাছে ওয়ালটনকে হেয় প্রতিপন্ন করার হীন উদ্দেশ্যে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম ও ফেসবুকে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে ফেসবুকে তা ভাইরাল হয়ে গেছে। কিছু লোক বুঝে না বুঝে মিথ্যা সংবাদটি ফেসবুকে শেয়ার করছেন। ব্যাপক সংখ্যক মানুষ তাতে অযাচিতভাবে বাজে এবং নি¤œরুচির মন্তব্য করছেন।  

এ বিষয়ে ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক উদয় হাকিম বলেন- ওয়ালটন সুদিন, দুর্দিন সব সময়ে দেশের মানুষের পাশে থেকেছে, আছে। করোনা দুর্যোগের সময় দেশের হাজার হাজার পয়েন্ট থেকে ত্রাণ কার্যক্রম চলছে। এ ধরনের গুজব, বানোয়াট সংবাদ পরিবেশন করায় ওয়ালটন মর্মাহত। এই অপপ্রচার বন্ধ না হলে তাদের ত্রান কার্যক্রম চালানো সম্ভব হবে না। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সারা দেশের ওয়ালটন কর্মীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ত্রান কার্যক্রম চালাচ্ছেন, মানুষর পাশে দাঁড়াচ্ছেন। এর কোনো এ্যাপ্রিসিয়েশন নেই। উল্টো দুর্নাম কুড়াচ্ছি। অন্যের বদনাম না করে সবাইকে যার যার জায়গা থেকে সাধ্যমতো মানুষের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ জানান তিনি। 

সূত্র জানায়, এ ঘটনায় ওয়ালটন বিব্রত। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক এবং পুলিশ সুপারকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। 

উল্লেখ্য, চলমান করোনা দুর্যোগের সময়ে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ৩ কোটি টাকা দিয়েছে ওয়ালটন। সরকারের শ্রমিক কল্যাণ তহবিলে ৭ কোটি ৬৮ লাখ টাকা দিচ্ছে। সারা দেশের সরকারি হাসপাতালগুলোতে পিপিই সহ বিভিন্ন চিকিৎসা সরঞ্জাম দেয়া হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী এবং সংবাদ কর্মীদের জন্য করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষার বিভিন্ন সামগ্রী দেয়া হচ্ছে। এছাড়া দেশের হাজার হাজার পয়েন্ট থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রেখেছে ওয়ালটন। 

এ ছাড়া সরকারের জরুরী আহবানে সাড়া দিয়ে ওয়ালটন নিজস্ব কারখানায় ভেন্টিলেটর (অক্সিজেন সরবরাহকারী যন্ত্র)সহ বিভিন্ন সুরক্ষা সামগ্রী উৎপাদনের উদ্যোগ নিয়েছে। সরকার এবং জনগণের বন্ধু হিসেবে ওয়ালটন কর্মীরা আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। 

এ অবস্থায় সমাজের কিছু হীন রুচিবোধহীন মানুষের অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য সবার প্রতি বিনীত আহবান জানিয়েছে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ