বুধবার ১৯ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

ফেনীতে প্রবাসীর সঙ্গে মিশে করোনার লক্ষণ নিয়ে ফেনী থেকে পালিয়ে ঢাকায়

ফেনী সংবাদদাতা : প্রবাসীদে সঙ্গে মেলামেশার পর জ্বর, সর্দি-কাশিসহ করোনাভাইরাসের উপসর্গ দেখা দেওয়া এক যুবক ফেনী ছেড়ে পালিয়েছে। সোমবার তার স্বজনরা জানিয়েছেন ওই যুবক সংক্রমিত হয়েছেন কিনা তা পরীক্ষা করা ঢাকায় চেষ্টা চালাচ্ছেন। তবে ফেনীর সিভিল সার্জন সাজ্জাদ হোসেন জানান, ফেনী শহরতলীর পাঁচগাছিয়া এলাকায় ফেনী-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে ‘করোনাভাইরাস সংক্রামিত’ হয়ে একজন বাসায় অবস্থান করার খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। ওই ব্যক্তির খোঁজে রবিবার রাতে তার বাড়িতে যায় স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজন। কিন্তু তিনি আগেই পালিয়ে যাওয়ায় রাতেই সেতু ভবনে বসবাসরত ওই পরিবাররকে লকডাউন করে দেওয়া হয়েছে। ঢাকার এক বেসরকারি কোম্পানির কর্মী এ যুবক গত কয়েক দিন বিদেশফেরত কয়েকজনের সঙ্গে মেলামেশা করেন। পরে তার শরীরে করোনাভাইরাসের লক্ষণ দেখা দেয়। এদিকে তার পারিবারের এক সদস্য জানান, রবিবার রাতেই ওই ব্যক্তি নিজেই করোনাভাইরাস শনাক্তের জন্য ঢাকার রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) যান বলে তাদের জানিয়েছেন। তবে তিনি কোন যানবাহনে করে কীভাবে ঢাকায় পৌঁছান তার সঠিক তথ্য দিতে পারেননি কেউ। ওই যুবকের স্বজনদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ভোররাতে ওই যুবক আইইডিসিআরে পৌঁছালেও সকাল সাড়ে ৯টার দিকে প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্টদের দেখা পান তিনি। তখন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা তাকে একটি কার্ড নিয়ে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে পাঠান। তবে সেখান থেকে পাঠানোর সময় কোনো ধরনের সুরক্ষা ব্যবস্থা ছিল না বলেও তার স্বজনরা জানান। এরপর থেকে তিনি কুর্মিটোলা হাসপাতালে অবস্থান করছেন বলেন তারা। ওই ব্যক্তির পরিবারের সদস্যরা জানান, রাজধানীর নর্থ-সাউথ ইউনিভার্সিটির অফিস সহকারী ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ