মঙ্গলবার ০৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

নিষেধাজ্ঞার মধ্যেও বাফুফের সংবাদ সম্মেলন

স্পোর্টস রিপোর্টার : করোনা ভাইরাসের কারনে সরকার দেশের সকল ক্রীড়া ফেডারেশনের কার্যক্রম স্থগিত করলেও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) নানা ইস্যুতে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। সভা করছে, এমনকি সংবাদ সম্মেলন ও করলো গতকাল শনিবার। পুরোনো এক ইস্যুতেই অর্থাৎ বাফুফের নির্বাচন নিয়েই। নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) প্রতিদিন অনলাইনে সংবাদ সম্মেলন করছে। সেখানে পুরোনো ইস্যুতে কেন এই সংবাদ সম্মেলন? এমন প্রশ্নের জবাবে সরকার দলীয় সাংসদ সালাম মুর্শেদী বলেন, ‘নির্বাচন সংক্রান্ত অনেক বিষয়েই সাংবাদিকরা জানতে চেয়েছিলেন এজন্যই এই আয়োজন।’ সংবাদ সম্মেলনে নতুন কোনো তথ্য নেই। সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগের আশাবাদ,‘ আমরা ফিফা ও এএফসিকে আমাদের সিদ্ধান্ত ও দেশের চলমান অবস্থা নিয়ে চিঠি দিয়েছি। চলতি সপ্তাহের মধ্যে আশা করি তারা একটি সিদ্ধান্ত দেবে।’নির্বাচন অনির্দিষ্টকাল স্থগিত করলেও নির্বাচনী প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখছে বাফুফে। নির্বাচনের জন্য বাফুফের অধিভুক্ত সংস্থাগুলোর কাছে ৩০ মার্চের মধ্যে নাম চেয়েছিল। বর্তমান পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে সাত দিন সময় বাড়িয়ে ৭ই এপ্রিলের মধ্যে নাম দিতে বলা হয়েছে। যেখানে নির্বাচন অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত সেখানে কাউন্সিলরশিপ বেশ তাড়াহুড়ো বাফুফের। 

চলমান পরিস্থিতির মধ্যে বেশ বেকায়দায় জেলাগুলো। কারণ জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনকে সভা করে এর পর ডাক যোগে কাউন্সিলরের নাম  পাঠাতে হবে। এই পরিস্থিতিতে যা বেশ কষ্টাসাধ্য। ঢাকার ক্লাবগুলো হয়তো খুব প্রয়োজনে পায়ে হেঁটে চিঠি দিতে পারলেও প্রয়োজনীয় সভা করতে পারবে না। এই প্রসঙ্গে সালাম মুর্শেদী বলেন, ‘নির্বাচন সুবিধাজনক পরিস্থিতি হলেও ভোটার তালিকাটা আমরা প্রস্তুত রাখতে চাই। যাতে নির্বাচন কমিশন দ্রুত কার্যকরি পদক্ষেপ নিতে পারেন।’ প্রকৃতপক্ষে এখানে অনেক জটিলতা রয়েছে। অনেক সংস্থা ইতোমধ্যে কাউন্সিলরের নাম পাঠালেও এর পর আবার অভিযোগ এবং অনিয়ম শোনা যাচ্ছে।

দেশের সকল ক্রীড়া ফেডারেশন বন্ধ। ব্যক্তিক্রম শুধু এই প্রতিষ্ঠানটি। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এখনো কাজ করছেন ফেডারেশনটির একাধিক কর্মকর্তা ও কর্মচারী। ২৬শে মার্চ আনুষ্ঠানিকভাবে সরকারি বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠান বন্ধ হলেও নানা কারণে তাদের আসতে হচ্ছে।  এ নিয়ে সালাম মুশের্দী বলেন, আমাদের বেশ কিছু কাজ বাকী ছিল। এ কারনে হয়তো কারো কারো অফিস করতে হয়েছে। তবে যারা এসেছেন তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এখানে এসে কাজ করেছেন। এখন নির্বাচন যেহেতু স্থগিত হয়েছে। খেলাও নেই। আমরাও আমাদের প্রতিষ্ঠানের সকলকে বাড়িতে বসে কাজ করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনের আরো উপস্থিত ছিলেন বাফুফের দুই নির্বাহী সদস্য আমিরুল ইসলাম বাবু, জাকির হোসেন চৌধুরী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ