শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

রংপুরে মেডিকেল কলেজে পিসিআর মেশিন স্থাপনের কাজ চলছে

রংপুর অফিস : রংপুর মেডিকেল কলেজে এসে পৌঁঁচেছে করোনাভাইরাস সনাক্তকরণ মেশিন পিসিআর ও কিট। এখন চলছে এর স্থাপনের কাজ। আজ শনিবারই এর কার্যক্রম শুরু হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার রাত পৌনে দশটায় ঢাকা থেকে ট্রাকযোগে আসে এসব মালামাল। কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের ল্যাবরেটরিতে সেটি স্থাপনের প্রক্রিয়া চলছে। 

রংপুর মেডিকেল কলেজ কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাক্তার একেএম নূর-উন-নবী লাইজু জানান, বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই আইইডিসিআর থেকে বলা হয় মেশিন আসার কথা শেষ পর্যন্ত রাত পৌনে দশটায় মেশিনটি এসে পৌঁচেছে। শুক্রবার রাত থেকেই কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের ল্যাবরেটরীর দুটি রুমে মেশিনটি স্থাপনের কাজ করছে গণপূর্ত বিভাগের কর্মকর্তাগন। আজ শনিবারের মধ্যেই এর স্থাপনের কাজ সম্পন্ন হবে বলে আশা করা হচ্ছে। তিনি জানান, শিক্ষকদের সাথে প্রয়োজনীয় আলোচনা করে মেশিনটি পরিচালনা এবং পরীক্ষা নিরীক্ষা করার জন্য জনবল নিয়োগ দিয়ে শনিবারের মধ্যে করোনা ভাইরাস পরীক্ষা শুরু করতে পারবো বলে আশা করছি। পিসিআর মেশিনের মাধ্যমে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে হলে রোগীর রক্ত, ঘাম ও কফ পরীক্ষা করা হবে। এজন্য মেডিকেল কলেজের  একটি টিম গঠন করা হয়েছে। তিনি জানান, হাসপাতালের মাইক্রো বায়োলজি বিভাগে স্থাপনের জন্যে কোভিড ১৯ পরীক্ষার মেশিন আনা হয়েছে। রংপুর বিভাগের সন্দেহভাজন করোনা আক্রান্ত রোগীদের এ মেশিনে পরীক্ষা করা হবে। শিগগিরই পিসিআর মেশিন চালু হবে।

 গত ২৫ মার্চ বুধবার লাইভ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রেস ব্রিফিংয়ে ঢাকা ও ঢাকার বাইরের সব বিভাগীয় হাসপাতালে করোনাভাইরাস শনাক্ত করার পরীক্ষার ব্যবস্থা করার জন্য পিসিআর মেশিন সরবরাহের কথা জানান আইইডিসিআর পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। সেই আলোকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা শনাক্ত করার পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

উল্লেখ্য, রংপুর জেলায় এখন পর্যন্ত কোন ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হননি। বর্তমানে সঙ্গরোধে (হোম কোয়ারেন্টাইন) থাকা ব্যক্তির সংখ্যা ৪০০ জন। আর প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে একজন ব্যক্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ