শুক্রবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২০
Online Edition

কবিতা

লকডাউন

সৈয়দ আসাদুজ্জামান সুহান

 

আমি তাদের কথা ভেবে কখনো চিন্তিত নই,

যারা আতঙ্কিত হয়ে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছে।

 

তাদের সময়টাও কিন্তু বেশ ভালোই কেটে যাচ্ছে

পায়ের উপর পা তুলে টিভির পর্দায় মুভি কিংবা

সিরিয়াল দেখে রোজ মাটর বিরিয়ানি খাচ্ছে

আর ফেসবুকে মিছিমিছি হাহুতাশ প্রকাশ করছে।

 

আমি সেই সব মেহনতি মানুষের কথাই ভাবছি,

যাদের মনে করোনা ভাইরাস নিয়ে কোন ভয় নেই।

 

তারা দিন আনে-দিন খায়, পান আনতে পান্তা ফুরায়

ঘাম ঝরিয়ে কাজ করলেই পেটে দানা জুটে, নয়তো

অনাহারে রাস্তার পাশে চুপটি করে উপুড় শুয়ে থাকে

এই লকডাউনের সময়ে তাদের কথা কে-বা মনে রাখে?

 

 

অবর্ণনীয়

শঙ্খশুভ্র পাত্র

 

অবর্ণনীয় । নিও এই ভালোবাসা,কল্পনার রং...

ধুকপুক-বুকে আর কিছু থাকে ?

                               তোমাকে বরং

মনে-মনে চাওয়া ছাড়া Í কবিতায় ছন্দ-লয়-মিল

কিছুতে সাজে না । লাজেরাঙা বেদনানিখিল

মন নিয়ে কতদূর যাবে ?

এই যে দখিন হাওয়া,

                             মধুমাস, পলাশের লাল Í

দুইচোখ জুড়ে তুমি, অফুরন্ত, প্রেমিকা-সকাল...

 

 

স্বাধীনতা

রেজাউল করিম রোমেল

 

স্বাধীনতা...

তোমার জন্য

অন্যায়ের বিরুদ্ধে জেগে উঠেছিল

বিদ্রোহী বাঙ্গালী জনতা।

 

স্বাধীনতা...

তোমার জন্য

একাত্তরের নরপিশাচ ভয়ে পালিয়ে ছিল

শত প্রলোভন ছেড়ে।

 

স্বাধীনতা...

তোমার জন্য

পিরোজপুরের ছেলেহারা ছখিনা বিবি

আজো কাঁদে-

রক্তে ভেজা জামাটি বুকে নিয়ে।

 

স্বাধীনতা...

তোমার জন্য

আজ আমরা পেয়েছি

লাল সবুজ পতাকায়

পৃথিবীর বুকে এক স্বাধীন ভূখন্ড।

 

 

প্রিয় স্বাধীনতা 

লাভলী ইসলাম 

 

আমি কেঁদেছি শুনে শুনে কত রাত জাগা করুণ কথার জ্বালা 

সাধ্য হয়নি কোলের শিশুকে দুধ না দিতে পারার ব্যথা

আমি শুনেছি মায়ের মুখে মায়ের কষ্ট বেদনা কত সহস্র গল্পকথা

বুকের পাঁজর ভেঙ্গেছি কত মায়ের পাঁজর ভাঙ্গার গল্প শুনে 

আমি নিয়েছি বুঝে শতভাগ সত্যি পাকিস্তানিরা ছিল যে কে ?

মুক্তিযুদ্ধে গিয়ে প্রিয় বাবা গিয়েছিলো হারিয়ে

শিশুসন্তান বুকে জড়িয়ে মায়ের অনাহারে অর্ধাহারে

কেটেছে কত রাত দিন গেছে চলে ।

আটপৌরে জীর্ণ তাঁতের শাড়ি পরে 

দশ মাস যুদ্ধ করেছে মা জননী অমানুষিক দুঃখ কষ্ট সয়ে ।

রাতদিন হানাদারের ভয়ে কেটেছে বনে জঙ্গলে 

ছোট শিশু বাচ্চাদের বাঁচাতে প্রাণ ।

সেই সাথে নিজেকে বাঁচাতে রক্ষা করতে নিজের সম্মান ।

কত ক্ষয়ে কত রক্ত ঢেলেছে বাঙ্গালী পথে ঘাটে প্রান্তরে  ।

কত ত্যাগের ফসল আজ স্বাধীনতা করছে বাস প্রতি বাঙ্গালীর ঘরে 

বিজয়ের সুফল বয়ে নিতে এসো সবাই করি পণ 

এ দেশ তোমার এ দেশ আমার 

প্রিয় স্বাধীনতার রাখব তার সম্মান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ