শুক্রবার ২৩ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

নতুন বছরের প্রথম শিরোপা জয় এলিনার

মোহাম্মদ জাফর ইকবাল : মনটেরি ওপেনে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন কিম ক্লাইস্টার্স। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সফলতা আসেনি। অনেককে অবাক করে দিয়ে শিরোপার ছোঁয়া পেলেন এলিনা সিতলিনা। মনটেরি ওপেনের ফাইনালে মারি বৌজকোভাকে হারিয়ে নতুন বছরের প্রথম শিরোপা জয়ের স্বাদ পেলেন ইউক্রেনের এই তারকা খেলোয়াড়। সেই সঙ্গে দীর্ঘ দেড় বছরের শিরোপা খরাও ঘুচালেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ পাঁচে থাকা এলিনা সিতলিনা।
 অন্যদিকে আশা জাগিয়েও আবারও পরাজয়ের স্বাদ পেলেন দুবাই চ্যাম্পিয়নশিপের তারকা কিম ক্লাইস্টার্স। প্রথম ম্যাচে হারের স্বাদ পেলেন বেলজিয়ান তারকা। গ্রেট ব্রিটেনের জোহানা কন্টা ৬-৩ এবং ৭-৫ সেটে পরাজিত করেন কিম ক্লাইস্টার্সকে। সেই সঙ্গে ২০২০ সালের প্রথম জয় তুলে নেন কন্টা। এমন জয়ে মনটেরি ওপেন শুরু করে দারুণ খুশি ছিলেন জোহানা কন্টাও। তবে কিম ক্লাইস্টার্সকে হারিয়ে যেন ব্রিটিশ তারকার উচ্ছ্বাসটা আরও বেড়ে গেছে। অথচ এমন অভিজ্ঞ তারকার বিপক্ষে যে খেলতে পারবেন সেটাই কখনও চিন্তা করেননি কন্টা।
এ প্রসঙ্গে জয়ের পর ব্রিটিশ তারকা জোহানা কন্টা বলেন, ‘সত্যিই এটা আমার জন্য অনেক বড় একটা সুযোগ এবং তার মতো একজন চ্যাম্পিয়ন খেলোয়াড়ের সঙ্গে কোর্ট ভাগাভাগি করতে পেরে আমি সম্মানিত। তার ফেরাটা আমার কাছে দারুণ ভাল লাগছে। একজন তরুণ খেলোয়াড় হিসেবে আমি কখনই চিন্তা করিনি যে এই ক্যারিয়ারে তার সঙ্গে খেলতে পারব।’ গত বছর হঠাৎ করেই অবসর ভেঙ্গে আবারও টেনিসে ফেরার ঘোষণা দেন নারী এককের সাবেক নম্বর ওয়ান তারকা কিম ক্লাইস্টার্স। একক টেনিসে চারবার গ্র্যান্ডস্লাম জয়ী এই তারকার অবসর ভেঙ্গে ফিরে আসার ঘটনা এবারই প্রথম নয়। এর আগেই ২০০৭ সালে সবাইকে অবাক করে দিয়ে অবসর নিয়েছিলেন তিনি। যদিও সে ‘অবসর’ টিকেছিল দুই বছর। পরে কোর্টে আরও তিনটি গ্র্যান্ডস্লাম জেতেন ক্লাইস্টার্স। এরপর ২০১২ সালে আবারও অবসর নিয়েছিলেন তিনি। দীর্ঘ ৭ বছর কোর্ট থেকে দূরে থাকার পর আবারও কোর্টে ফিরেন ৩৬ বছর বয়সী এই বেলজিয়ান তারকা। সদ্য সমাপ্ত দুবাই টেনিস চ্যাম্পিয়নশিপের মাধ্যমে টেনিসে ফিরেন তিনি। তবে ফেরার প্রথম ম্যাচটা সুখকর ছিল না তার জন্য। রাউন্ড অব বত্রিশে স্প্যানিশ টেনিস তারকা গারবিন মুগুরুজার কাছে হেরে নতুন অধ্যায় শুরু করেছিলেন ক্লাইস্টার্স। মনটেরি ওপেন তার দ্বিতীয় টুর্নামেন্ট। কিন্তু এখানেও পরাজয়ে শুরু করলেন তিনি।
অর্থাৎ মহিলা এককের প্রথম দুই টুর্নামেন্টের দুটিতেই লজ্জাজনক পরাজয় কিম ক্লাইস্টার্সের। তৃতীয়বার টেনিসে ফেরার পেছনে কিম ক্লাইস্টার্স জানিয়েছিলেন বেশ কিছু কারণ। তিনি বলেছিলেন, ‘সেরেনা উইলিয়ামস বা ভিক্টোরিয়া আজারেঙ্কার মতো খেলোয়াড়রা মা হওয়ার পরও নিয়মিত সর্বোচ্চ পর্যায়ে টেনিস খেলে যাচ্ছেন, তাই এটা একটা অনুপ্রেরণা আমার জন্য। আমার মনে হয় না আমি কোন কিছু প্রমাণ করতে চাই। আমার কাছে এই সিদ্ধান্তটা স্রেফ একটা চ্যালেঞ্জ। আমি নিজেকে চ্যালেঞ্জ জানাতে চাই। আবারও শক্তিশালী খেলোয়াড় হিসেবে নিজেকে দেখতে চাই। এটা আমার ম্যারাথন।’
অন্যদিকে বেশ কিছুসময় অপেক্ষার পর অবশেষে শিরোপার ছোঁয়া পেলেন এলিনা সিতলিনা। মনটেরি ওপেনের ফাইনালে মারি বৌজকোভাকে হারিয়ে নতুন বছরের প্রথম শিরোপা জয়ের স্বাদ পেলেন ইউক্রেনের এই তারকা খেলোয়াড়। সেই সঙ্গে দীর্ঘ দেড় বছরের শিরোপা খরাও ঘুচালেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ পাঁচে থাকা এলিনা সিতলিনা। স্থানীয় সময় রবিবার রাতে মনটেরি ওপেনের ফাইনালে এলিনা সিতলিনা ৭-৫, ৪-৬ এবং ৬-৪ ব্যবধানে পরাজিত করেন টুর্নামেন্টের নবম বাছাই মারি বৌজকোভাকে। তবে জয়টা সহজ ছিল না মোটেও। চেকপ্রজাতন্ত্রের এই তরুণ প্রতিভাবান খেলোয়াড়কে হারাতে এদিন তার সময় লাগে তিন ঘণ্টা।
ব্রিসবেন ইন্টারন্যাশনাল টেনিস টুর্নামেন্টের মাধ্যমে নতুন মৌসুমের সূচনা করেছিলেন সিতলিনা। শুরুতেই ভক্ত-অনুরাগীদের হতাশ করেন তিনি। ড্যানিয়েল কোলিন্সের কাছে হেরে সেই টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ড থেকেই ছিটকে যান সিতলিনা। এর পরের চার টুর্নামেন্টেও ইউক্রেনের এই তারকা খেলোয়াড় ছিলেন নিজের ছায়া। মৌসুমের প্রথম গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্ট অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের তৃতীয় পর্ব থেকেই বিদায় নেন তিনি। হুয়া হিন চ্যাম্পিয়নশিপের কোয়ার্টার ফাইনাল ছিল তার এই মৌসুমের সেরা ফলাফল। দুবাই টেনিস চ্যাম্পিয়নশিপ কিংবা কাতার ওপেনেও লজ্জাজনকভাবে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছেন এলিনা সিতলিনা। অবশেষে বছরের ষষ্ঠ টুর্নামেন্টে এসে সাফল্যের দেখা পান তিনি। এমন জয়ের পর তাই দারুণ রোমাঞ্চিত এলিনা সিতলিনা।
ম্যাচ শেষে ইউক্রেনের এই তারকা খেলোয়াড় বলেন, ‘মারি অসাধারণ লড়াই করেছে। আমি মনে করি, অনেক উঁচু মানের একটা ম্যাচ খেলেছি আমরা। ম্যাচে আমরা উভয়েই খুব ভাল পারফর্ম করেছি। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত লড়াই করেছি। এবং ম্যাচে কোন গেমস সহজ ছিল না। আমার মনে হয় এখানকার মানুষগুলোই আমাদের ভেতর থেকে সেরাটা আনতে বাধ্য করেছে। মেক্সিকান মানুষের কাছ থেকে সমর্থন পাওয়ার বিষয়টি আমাকে সত্যি বিস্মিত করেছে।’ ২০১৮ সালে সর্বশেষ কোন টুনামেন্টের চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন সিতলিনা। এরপর থেকেই যেন নিষ্প্রভ হয়ে পড়েন তিনি। তবে হাল ছাড়েননি কখনোই। এই সময়টাতে নিয়ম করে লড়ে গেছেন সিতলিনা। এবার যেন সেটারই ফল পেলেন ইউক্রেনের এই তারকা। দুই বছরের শিরোপা খরা ঘুচাতে পেরে আনন্দে উচ্ছ্বসিত সিতলিনা। এ প্রসঙ্গে বর্তমান বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের সাত নম্বরে থাকা এই খেলোয়াড় বলেন, ‘এই শিরোপা জয়ের অনুভূতিটা আমার কাছে বিস্ময়কর। মনে হচ্ছে আমার লক্ষ্য পৌঁছানোর আরেকটি ধাপ অতিক্রম করেছি। সেইসঙ্গে এটাও মনে হচ্ছে যে, সঠিক পথেই এগিয়ে চলেছি আমি। সেজন্য আমি খুব আনন্দিত।’ প্রথম সেট সিতলিনা জিতে এগিয়ে গেলেও দ্বিতীয় সেটেই দুর্দো-প্রতাপে লড়াইয়ে ফেরেন বৌজকোভা। কিন্তু তথাপি হতাশ হননি ইউক্রেনের এই তারকা। বরং মানসিকভাবে শক্ত থেকে নিজের সেরাটা ঢেলে দেয়ার লক্ষ্যে কোর্টে লড়াই করে যান তিনি। এ বিষয়ে এলিনা সিতলিনা বলেন, ‘দ্বিতীয় সেটে যখন হেরে যাই তখন পথটা মোটেও সহজ ছিল না। কিন্তু মানসিকভাবে আমি আরও প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হই। সেইসঙ্গে নিজের কাজটা সঠিকভাবে করে যাই।’
সিতলিনার বর্তমান বয়স ২৫। এই সময়ের মধ্যেই বিশ্ব টেনিসের পাদপ্রদীপের আলোয় নিয়ে এসেছেন নিজেকে। কিন্তু দুর্ভাগ্য তার। এখন পর্যন্ত মেজর কোন শিরোপা জয়ের স্বাদ পাননি তিনি। যদিওবা দুইবার গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টের ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছিলেন ইউক্রেনের এই তারকা খেলোয়াড়। ২০১৯ সালে উইম্বলডন এবং ইউএস ওপেন, টানা দুটি গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টের সেমিফাইনাল খেলেছেন তিনি। শুধু তাই নয়, সে বছরে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালেও জায়গা করে নিয়েছিলেন সিতলিনা। কিন্তু এখন পর্যন্ত সেমিফাইনালটাই গ্র্যান্ডস্লামে তার সেরা ফলাফল। তবে মনটেরি ওপেনের শিরোপা উঁচিয়ে ধরার ফলে নিঃসন্দেহে আত্মবিশ্বাসটা এখন আরও বেড়েছে তার। যার ফলে এ মৌসুমের বাকি টুর্নামেন্টগুলোতে নিশ্চয়ই নিজেকে মেলে ধরতে পারবেন আরও দারুণভাবে। এদিকে, চেক প্রজাতন্ত্রের মারি বৌজকোভার বয়স মাত্র ২১।
টেনিস বিশ্বে সেরা কোন দৃশ্য এখনও রচনা করতে পারেননি তিনি। তবে মনটেরি ওপেনে যেভাবে পারফর্ম করেছেন তাতে এই মুহূর্তে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে অবস্থান করছেন বৌজকোভা। কেননা, মনটেরি ওপেনের সেমিতে গ্রেট ব্রিটেনের জোহানা কন্টাকে যে হারিয়ে ফাইনালের টিকেট কেটেছিলেন তিনি। ফাইনালে সিতলিনার বিপক্ষেও লড়াই করেছেন দুর্দো-প্রতাপে। তার পারফর্মেন্সের প্রশংসা করেছেন সিতলিনাও। যদিওবা শেষ পর্যন্ত আর ইউক্রেনের তারকার কাছে পেরে উঠতে পারেননি বৌজকোভা। চেক তারকাকে হারিয়েই ২০২০ সালের প্রথম ট্রফি জয়ের আনন্দের দেখা পেলেন সিতলিনা। সেইসঙ্গে বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়েও অগ্রগতি হয়েছে তার। দুইধাপ এগিয়ে সপ্তম স্থান থেকে পাঁচে উঠে এসেছেন তিনি।
সিতলিনার স্বরূপে ফেরার দিনে ট্রফি জয়ের উচ্ছ্বাসে ভেসেছেন সোফিয়া কেনিনও। আমেরিকান টেনিসের এই প্রতিভাবান খেলোয়াড় নতুন বছরের শুরুতেই গোটা টেনিস বিশ্বকে চমকে দেন। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের শিরোপা জিতে। কিন্তু মেলবোর্নের পরের সময়টাতে আর পারফর্মেন্সের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেননি তিনি। দুবাই টেনিস চ্যাম্পিয়নশিপ কিংবা কাতার ওপেন, এই দুটি টুর্নামেন্টের কোর্টে নেমে দুটিতেই নিজের প্রথম ম্যাচ থেকেই ছিটকে যান কেনিন। যে কারণে সমালোচনার মুখে পড়ে যান আমেরিকান তারকা। তবে লিওন ওপেনেই স্বরূপে ফিরলেন।
শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে কেনিন এদিন ৬-২, ৪-৬ এবং ৬-৪ ব্যবধানে পরাজিত করেন এ্যানা লিনা ফ্রেইডসামকে। সেইসঙ্গে চলতি মৌসুমে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে দুটি টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করলেন সোফিয়া কেনিন। লিওন ওপেনের শিরোপা জিতে দারুণ উচ্ছ্বসিত সোফিয়া কেনিন। নিজের অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে ২১ বছরের এই তরুণী বলেন, ‘এটা বেশ কঠিন একটা টুর্নামেন্ট। প্রকৃতপক্ষে এ রকম টুর্নামেন্টে যে কোন কিছুই হতে পারত।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ