মঙ্গলবার ২৪ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

করোনা আতঙ্কেও পেছাবে না অলিম্পিক গেমস

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস আতঙ্ক  প্রভাব পড়েছে ক্রীড়াঙ্গনেও। তবে বিপরীত অবস্থানে জাপান সরকার। করোনা আতঙ্ক ব্যাপক আকার ধারণ করলেও ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’ খ্যাত অলিম্পিক গেমস পেছাতে রাজি নয় তারা। চলতি বছরের ২৪ জুলাই থেকে শুরু হবে অলিম্পিকের ৩২তম গ্রীষ্মকালীন আসর। জাপান ১৯৬৪ সালের পর দ্বিতীয়বারের মতো অলিম্পিক আয়োজনের সুযোগ পেলো। তাই চলতি বছর যেকোনো উপায়ে অলিম্পিক আয়োজন করতে প্রস্তুত জাপান। প্রয়োজনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সরাসরি পদক্ষেপের ব্যবস্থা নিবে তারা। এমনটি জানিয়েছে জাপান সরকার।

জাপানের প্রায় ১৪২৩ জন মানুষ করোনাভাইরাস আক্রান্ত। যার মধ্যে ২৮ জনের মৃত্যু নিশ্চিত করেছে দেশটি। গত বৃহস্পতিবার জাপান সফর নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘আমি জাপানে রাস্তাঘাটে তেমন মানুষ দেখিনি। সে দেশে এখন প্রবেশও সীমিত। এমন অবস্থায় আমার মনে হয় অলিম্পিক গেমস আয়োজন করার প্রয়োজন নেই। এক বছর পিছিয়ে দেওয়া হোক।’

তবে ট্রাম্পের এমন কথার বিরোধিতা করেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। তিনি বলেন, ‘জাপান চলতি বছর অলিম্পিক গেমস আয়োজনের জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত। আমরা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রত্যক্ষ উপস্থিতিও নিশ্চিত করেছি সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে। অলিম্পিক নির্দিষ্ট সূচিতেই শুরু হবে।’

ইতোমধ্যে অলিম্পিক উপলক্ষে সম্প্রচার স্বত্ত্ব কেনার জন্য বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করা হয়ে গেছে। এ সময় এটি পিছিয়ে দিলে বিপুল ক্ষতির মুখে পড়তে হবে তাদের। এর আগে কেবল বিশ্বযুদ্ধের সময় অলিম্পিকের আসর পেছানো হয়েছে। এবার পেছানোর এখন পর্যন্ত কোনো পরিকল্পনা নেই আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটিরও, ‘আমরা চলতি বছরের টোকিও আসর নির্দিষ্ট সূচিতে করার বিষয়ে এখনো বদ্ধপরিকর।’ একই কথা জানিয়েছেন জাপানের হয়ে পদকজয়ী তারকা সেইকো হাসিমতো, ‘আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি চলতি আসর পেছানোর বা বাতিলের কোনো সিদ্ধা নেয়নি। সুতরাং এটি চলতি বছর টোকিওতে নির্দিষ্ট সময়েই হবে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ