সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

বাতিল হতে পারে টোকিও অলিম্পিক গেমস

স্পোর্টস রিপোর্টার: সর্বাধিক দেশের অংশগ্রহনে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়া আসর অলিম্পিক গেমসের এবারের আয়োজন নিয়ে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে।জাপানের টোকিও শহর এবারের গেমসের আয়োজক। সবকিছু ঠিক থাকলে চার বছরের প্রস্তুতি শেষে আগামী জুলাইয়ে জাপানের টোকিওতে বসবে অলিম্পিকের আসর। কিন্তু বিশ্বব্যাপী ছুড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে আক্রান্ত জাপানও। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে টোকিও অলিম্পিক আয়োজন নিয়ে শঙ্কাটা বেশ অনেক দিন ধরেই। ইভেন্টটি অন্য কোথাও আয়োজন বা পিছিয়ে নেয়ার বিকল্প চিন্তাও ছিল। তবে এবার শোনা যাচ্ছে ভিন্ন কথা। স্থগিত বা স্থানান্তর নয়, বাতিলই হতে পারে আগামী জুলাইয়ে জাপানের টোকিওতে হতে যাওয়া বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়া আসরটি।আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির (আইওসি) একজন সিনিয়র সদস্য মঙ্গলবার বলেছেন, যদি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে এই গ্রীষ্মে টোকিও অলিম্পিক আয়োজন বিপজ্জনক মনে করা হয়, তবে আয়োজকরা সম্ভবত স্থগিত বা স্থানান্তরের চিন্তা বাদ দিয়ে ইভেন্টটি বাতিলই করতে পারেন।

আইওসির জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা ডিক পাউন্ড বলেন, ‘যদি এই রোগটি এতটাই বিপজ্জনক থাকে, তাহলে অলিম্পিক সরাসরি বাতিলই করতে হবে। কারণ এটা আয়োজনের জন্য অনেক কিছু আমাদের পক্ষে যেতে হবে। অ্যাথলেটদের নিরাপত্তা, স্পোর্টস ভিলেজ, খাবার দাবার, হোটেল, সাংবাদিক বন্ধুদের নিরাপত্তা। এসব ঠিক না হলে বাতিলই করতে হবে। কিছুদিন পরই আমরা পর্যবেক্ষণ করব। যদি সব ঠিকঠাক ব্যবস্থা করা সম্ভব হয়, তাহলেই শুধু খেলা হবে, নাহলে নয়। এটা স্থগিত বা স্থানান্তরের কোনো সুযোগ নেই।’

আগামী ২৪ জুলাই টোকিওতে শুরু হওয়ার কথা অলিম্পিকের এই ইভেন্ট। এখানে ১১ হাজারের মতো অ্যাথলেটের অংশ নেবেন। পাউন্ড অবশ্য এই অ্যাথলেটদের হতাশ করছেন না। তাদের ট্রেনিং চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শই দিলেন তিনি। জানিয়েছেন, এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে আগামী মে মাসের শেষে।এরই মধ্যে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকে বৈশ্বিক জরুরি অবস্থা হিসেবে ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। মাসদুয়েক আগে চীনের উহান থেকে শুরু করে এখন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস। বিভিন্ন দেশে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছেই। এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৮০ হাজার ৯৬৭ জন এবং মারা গেছে ২ হাজার ৭৬৩ জন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ