শনিবার ১১ জুলাই ২০২০
Online Edition

বর্ষসেরা ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব হলেন মেসি

কোন ফুটবলার হিসেবে প্রথমবারের মত লরিয়াস বর্ষসেরা ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব হিসেবে মনোনীত হয়েছেন সুপারস্টার লিওনেল মেসি। ২০১৯ সালে ফুটবলে দারুন ছন্দে থাকা এই আর্জেন্টাইনকে অবশ্য বর্ষসেরার এই পুরস্কারটি ফর্মুলা ওয়ান চ্যাম্পিয়ন লুইস হ্যামিল্টনের সাথে ভাগাভাগি করে নিতে হয়েছে। ছয়বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ৩৫ বছর বয়সী হ্যামিল্টনের সাথে পুরস্কার ভাগ করে নেবার বিষয়টিও ২০ বছরের লরিয়াস এ্যাওয়ার্ড ইতিহাসে প্রথম ঘটনা। এই পুরস্কারে ভূষিত হবার পর এক ভিডিও বার্তায় মেসি বলেছেন, ‘একটি দলীয় ইভেন্ট থেকে প্রথমবারের মত এই পুরস্কার অর্জন করতে পেরে আমি দারুন সম্মানিত বোধ করছি।’ ২০১৯ সালে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশীপে পাঁচটি স্বর্ণপদক জয় করা যুক্তরাষ্ট্রের জিমন্যাস্ট সুপারস্টার সিমোনে বিলেস লরিয়াস বর্ষসেরা নারী ক্রীড়া ব্যক্তিত্বের পুরস্কারটি ছিনিয়ে নিয়েছেন। এই নিয়ে তৃতীবারের মত বিলেস এই পুরস্কার জয় করলেন। গত বছর বিশ্বকাপ জয় করা দক্ষিণ আফ্রিকা রাগবি দল জার্গেন ক্লপের লিভারপুল ও বিশ্বকাপ জয়ী যুক্তরাষ্ট্রের নারী ফুটবল দলকে পিছনে ফেলে বর্ষসেরা দলের পুরস্কার জয় করেছেন। এদিকে একই রাতে ইতিহাস গড়েছেন শচীনও। যদিও ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন আগেই, তবু তার প্রতি ক্রিকেটভক্তদের ভালোবাসায় যে এতটুকু কমেনি তার উদাহরণ এবারের লরিয়াস পুরস্কার।  বিশ বছরের সেরা ক্রীড়া মুহূর্তের পুরস্কার পেয়েছেন এই কিংবদন্তী লিটল মাস্টার। সব ক্যাটাগরির মাঝে একটি পুরস্কারই কেবল সাধারণ মানুষের ভোটে নির্ধারিত হয়েছে। ২০১১ সালে বিশ্বকাপে জেতার পর টেন্ডুলকারকে ঘাড়ে তুলে ভারতীয় দলের উদযাপনের সেই স্মৃতিময় মুহূর্তের কথা আজও ভারতীয় সমর্থকদের মনে গেঁথে আছে, তার একটা বড় উদাহরণ এই পুরস্কার পাওয়ার ঘটনা। ইতিহাসের সাক্ষী হতে পুরস্কার গ্রহণ করতে কাল বার্লিনে উড়ে গিয়েছিলেন টেন্ডুলকার। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন বিশ্বকাপজয়ী সাবেক অজি অধিনায়ক স্টিভ ওয়াহ। জার্মান বাস্কেটবল তারকা ড্রিক নাউটিজকি আজীবন সম্মাননা পেয়েছেন। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ