শনিবার ১১ জুলাই ২০২০
Online Edition

সভাপতি পদে নির্বাচন করতে চাই : সালাউদ্দিন

স্পোর্টস রিপোর্টার: বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) আসন্ন নির্বাচনে সভাপতি পদে নির্বাচন করার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছেন বর্তমান সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। আগামী এপ্রিলে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনকে ঘিরে উত্তাপ কম নয়। এতদিন ধরে মাঠে থাকা তরফদার মো. রুহুল আমিন হঠাৎ করে সভাপতি পদে নির্বাচন না করার ঘোষণা দিয়েছেন। অন্যদিকে বর্তমান সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন আগামী চার বছরের জন্য আবারও এই পদে থাকতে চাইছেন। গতকাল সোমবার বাফুফে ভবনে নির্বাহী কমিটির সদস্যদের পাশে রেখে নিজের মতামত ব্যক্ত করেছেন কাজী সালাউদ্দিন। সাবেক এই ফুটবল তারকা বলেছেন, ‘এখন আমি সভাপতি আছি। এই পদে আবারও নির্বাচন করতে চাই। আমার এখনও কিছু কাজ বাকি আছে।’ গত তিনবারের মতো চতুর্থবারও জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী সালাউদ্দিন। নির্বাচনকে সামনে রেখে বর্তমান কমিটির কেউ কেউ বিরুদ্ধাচারণ করছেন। এর মধ্যে সহ-সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ মহি অন্যতম। গণমাধ্যমকে মহি বলেছেন, ‘সালাউদ্দিন ভাই যদি কোনো প্যানেল করে, সেই প্যানেল থেকে আমি নির্বাচন করবো না।’ এ প্রসঙ্গে সালাউদ্দিন বলেছেন, ‘এটা খুব সাধারণ বিষয়। আমার কমিটিতে আপনাকে রাখব কি রাখব না সেটা আমার বিবেচনা। মহিকে আমি রাখব কি রাখব না সেটা আমি সিদ্ধান্ত নেব। তারপর সে আমাকে প্রত্যাখান করবে।’

মহির সৎসাহস নিয়ে প্রশ্ন রেখেছেন বাফুফে সভাপতি, ‘তার যদি সৎসাহস থাকতো তাহলে এজিএমে আসতেন। ১৩৯ জন কাউন্সিলর আছে। ফিফা, এএফসি ও কাউন্সিলরদের মাধ্যমে অ্যাকাউন্টস নিয়ে অডিট পাস হয়েছে। এজিএমের আগে ফিফা-এএফসির কমপ্লিট ডকুমেন্ট সবার কাছে দেওয়া হয়েছিল। সেখানে তো কোনো সমস্যা ছিল না।’ সালাউদ্দিন প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন চতুর্থ মেয়াদে নির্বাচিত হলে সব অনিয়মের বিরুদ্ধে দাঁড়াবেন, ‘আমি যদি আবার সভাপতি হই যেসব অনিয়ম হয়েছে নীতি-নৈতিকতার (এথিকসের) বাইরে, কেউ ছাড় পাবে না।’ আগামী এপ্রিলের মধ্যেই নির্বাচন হবে জানিয়ে বাফুফের বর্তমান সভাপতি আশাবাদ প্রকাশ করেছেন যে চতুর্থ মেয়াদেও তিনি নির্বাচিত হবেন। যদি ৩০ এপ্রিল অতিক্রম হয় তাহলে ফিফা ও এএফসির অনুমতি নিতে হবে। আমার ইচ্ছা এই সময়ের আগে নির্বাচন হবে। পরে হবে না। আর আমি আশাবাদী যে চতুর্থ মেয়াদে আসতে পারবো। তা নাহলে আমার মতো লোক তো নির্বাচন করে না।

নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোয় তরফদার রুহুল আমিনকে ধন্যবাদ জানিয়ে সালাউদ্দিন বলেন, ‘উনি বলেছেন ফুটবলের স্বার্থে উনি দাঁড়াবেন না। রাইট। আমি উনাকে ধন্যবাদ জানাই যে আমার ওপর উনার এই আস্থাটা আছে বলে। সর্বোপরি আমার এটাই বলার আছে, তিনি আমার সঙ্গে কাজ করেছেন। এখনও তাই। উনার সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত কোনো শত্রুতা নেই।’ ভবিষ্যতে এক সঙ্গে কাজ করার কোনো সুযোগ আছে কিনা, এই প্রশ্নে সালাউদ্দিনের কথা, ‘এই মুহূর্তে এ সম্পর্কে আমি কোনো প্রতিশ্রুতি দিতে পারছি না। ফুটবলে কেউ যদি কাজ করতে চায় করবে। সবাইকে স্বাগত এখানে। আমি সাইফকে এনেছিলাম কাজ করতে, বসুন্ধরাকে এনেছি। সবাইকে নিয়ে কাজ করা আমার উদ্দেশ্য। এটা কোনো ক্লাব না। আমরা জাতির জন্য কাজ করছি।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ