শুক্রবার ০৭ আগস্ট ২০২০
Online Edition

প্রযুক্তি বিপ্লবে জিততে হলে নিজেদেরকে দক্ষ প্রযুক্তিবিদ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে

আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রামের (আইআইইউসি)-এর প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলী আজাদী বলেছেন, আগামী দিনের প্রযুক্তি বিপ্লবে জিততে হলে দেশপ্রেম নিয়ে নিজেদেরকে দক্ষ প্রযুক্তিবিদ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তিনি বলেন, দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের কল্যাণে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে ব্যবহার করতে হবে।
গতকাল মঙ্গলবার সকালে আইআইইউসি’র বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের আয়োজনে কুমিরাস্থ আইআইইউসি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইআইইউসি’র প্রোভিসি এ কথা বলেন। অনুষ্টানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. মোহাম্মদ শামসুল আরেফিন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডীন ও টেক ফেস্ট ২০২০ এর অর্গানাইজিং কমিটির কনভেনর প্রফেসর ড. মোঃ দেলোয়ার হোসেন, কো-কনভেনর ও সিএসই বিভাগের প্রফেসর মোহাম্মদ সামসুল আলম, কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারম্যান তানভীর আহসান, ফার্মেসী বিভাগের এসিস্টেন্ট প্রফেসর ও চেয়ারম্যান এ. টি. এম. মোস্তফা কামাল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর ড. আবদুল হামিদ চৌধুরী। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের এসোসিয়েট প্রফেসর মোহাম্মদ এমদান হোসেন এবং স্ট্যাড এর ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার কর্নেল মোহাম্মদ কাশেম,পি.এস.সি (অবঃ), বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও ছাত্রছাত্রীরা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইআইইউসি’র প্রো ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড, মোহাম্মদ আলী আজাদী বলেন, একটি উট কিভাবে তপ্ত মরুভুমিতে নিজের তাপমাত্রা বাড়িয়ে আবার মরুভুমিতে তাপমাত্রা কমিয়ে নিজেকে মানিয়ে নেয়, সেখানেও শিক্ষণীয় অনেক কিছু আছে। তিনি বলেন, জোনাকী পোকার শরীরে যে আলো প্রজ¦লিত হয়, তাতে ২% থাকে তাপমাত্রা আর ৯৮% থাকে আলো, আর বর্তমানে বাজারে যে লাইটগুলো পাওয়া যায় তাতে মাত্র ১০% আলো থাকে আর বাকীটা তাপমাত্রা, এখান থেকে নতুন প্রযুক্তির লাইট বানানোর ক্ষেত্রে জোনাকী পোকার সেই প্রযুক্তিটি গবেষনা করা যেতে পারে। অক্টোপাসের উদাহরন টেনে বলেন, এই প্রাণীটি এক প্রকার গরম তরল নিক্ষেপের মাধ্যমে নিজেকে শত্রু থেকে রক্ষা করে। মেয়েদের আত্নরক্ষার্থে তিনি এরূপ একটি ডিভাইস তৈরীর আহ্বান জানান, যখন একটি মেয়ে কোন আক্রমনের স্বীকার হতে যাবে, তাৎক্ষনিক একটি বার্তা আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে পৌছে যাবে এবং সাথে সাথে তারা মেয়েটিকে উদ্ধারে তৎপর হয়ে যেতে পারবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. মোহাম্মদ শামসুল আরেফিন বলেন, বর্তমান বিশ্বে গার্মেন্টস শিল্পসহ অন্যান্য শিল্পেও প্রযুক্তির অনেক উৎকর্ষ সাধিত হয়েছে। তাই এসব ক্ষেত্রে দক্ষ শ্রমিক যেমন প্রয়োজন তেমনি প্রযুক্তির জ্ঞানে সমৃদ্ধ প্রযুক্তিবিদেরও প্রয়োজন রয়েছে। এই বিষয়টাতে ফোকাস করার উপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

অনুষ্ঠানে কম্পিউটার ক্লাব, ইইই ক্লাব, টেলেকম ক্লাব, সিসিই ক্লাব ও ফার্মা ক্লাবের পক্ষে শিক্ষার্থীরা প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করে। এরপর বিভিন্ন ভেন্যুতে সেমিনার, সাইভার গেমিং কনটেস্ট, টেক অলিম্পিয়াড, ইন্টার-ইউনিভার্সিটি আইডিয়া জেনারেশন কম্পিটিশন, মোবাইল গেইমস্ এন্ড অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কম্পিটিশন, এম্বেডেড সিসটেম ডিজাইন এন্ড সার্কিট সলিউশন চ্যালেঞ্জ বিষয়ে প্রতিযোগিতা সম্পন্ন হয়। উল্লেখ্য যে, প্রতিযোগিতায় ১০টি সরকারী-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়সহ অসংখ্য কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেছেন। বিজয়ীদের আজ আনুষ্ঠানিকভাবে পুরস্কার বিতরণ করা হবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ