সোমবার ১৩ জুলাই ২০২০
Online Edition

ওমানের পরলোকগত সুলতানের প্রতি জনগণ ও বিশ্বনেতাদের শ্রদ্ধা

১৩ জানুয়ারি, বিবিসি : ওমানের জনগণ ও বিশ্বনেতারা ওমানের প্রয়াত সুলতান কাবুস বিন সাঈদ আল সাঈদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। শনিবার তাকে শেষ বিদায় জানাতে সমবেত হন কয়েক হাজার ওমানি নাগরিক। শুক্রবার ৭৯ বছর বয়সে আরব বিশ্বের সবেচেয় দীর্ঘদিন শাসন করা সুলতানের মৃত্যু হয়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম এখবর জানিয়েছে।

১৯৭০ সালে রক্তপাতহীন অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় আসার পর ওমানকে উন্নয়নের পথে নিয়ে যান কাবুস।

 তিনি দেশটিতে বেশ জনপ্রিয়। তার জ্ঞাতিভাই হাইতাশ বিন তারিক আল সাঈদকে তার উত্তরসূরী নির্বাচন করা হয়েছে। কাবুসের কোনও উত্তরাধীকারী ছিলেন বা উত্তরসূরী হিসেবে কাউকে ঘোষণা দিয়ে যাননি। পারিবারিক কাউন্সিল তিনদিন সময় নেয় নতুন নেতা ঘোষণা করতে।

সুলতানকে শ্রদ্ধা জানাতে ওমান তিনদিনের শোক ঘোষণা করেছে। রাজধানীতে সুলতান কাবুস গ্র্যান্ড মসজিদে শনিবার লোকজন সমবেত হন। এখানে জানাযা শেষে তাকে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়। সরকারিভাবে তার মৃত্যুর কোন কারণ ঘোষণা করা হয়নি। তবে সংবাদমাধ্যমের খবরে ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে তিনি কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও প্রিন্স অব ওয়ালেস সুলতানের শেষ বিদায়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে রাজধানী মাস্কটে পৌঁছেছেন। আল-আলম প্রাসাদে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছেন কুয়েত, কাতার ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের আমির, বাহরাইনের বাদশাহ, তিউনেসিয়ার প্রেসিডেন্ট। জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবেও তাকে শ্রদ্ধা জানাবেন।

অন্যান্য বিদেশী রাষ্ট্রনেতাদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু, ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন ওমানের প্রয়াত সুলতানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ