মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ঠাকুরগাঁওয়ে সুমনা হত্যার বিচারের দাবিতে রাজপথ উত্তাল

ঠাকুরগাঁওয়ে সুমনা হত্যার বিচার দাবিতে উত্তাল জনতা। ইনসেটে সুমনা

রাফিক সরকার, ঠাকুরগাঁও : ঠাকুরগাঁওয়ে তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী সুমনা হক (৯) হত্যার বিচারের দাবিতে উত্তাল রাজপথ। স্কুলের সহপাঠি, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ সর্বস্তরের জনতা রাজপথে বিচারের দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন। গত শুক্রবার থেকে আন্দোলন চলছে। আজও শহরের চৌরাস্তায় বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দিয়েছেন আন্দোলনকারিরা। সমাবেশ শেষে প্রশাসনের নিকট স্মারকলিপি প্রদানের কথা রয়েছে।

নিহত সুমনার হক হত্যার সুষ্ঠু বিচার ও দোষীর যথাযথ শাস্তির দাবিতে গতকাল শনিবার বেলা এগারোটায় শহরের সরকারি বালক উচ্চবিদ্যালয় মাঠ (বড়মাঠ) থেকে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। সেই মিছিলে ব্যানার হাতে নেতৃত্ব দেন নিহত সুমনা হকের ‘মা’ মনা বেগম। মিছিল শেষে শহরের চৌরাস্তায় অনুষ্ঠিত হয় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ। এ সময় বন্ধ হয়ে যায় শহরের যান চলাচল। চার দিকে আটকা পরে শত শত যানবাহন। পরে জেলা প্রশাসক ড. কামরুজ্জামান বিক্ষোভ স্থলে এসে আন্দোলন কারিদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে বক্তব্য দেন।  এসময় তার দেয়া বিচারের আশ্বাসে আজকের মত আন্দোলন স্থগিত করেন শিক্ষার্থীসহ আন্দোলন কারিরা। এ সময় বক্তব্য দেন নিহত শিক্ষার্থী সুমনা হকের মা মনা বেগম। তিনি বলেন, ‘আমার কোমলমতি মেয়েটিকে যারা নির্মমভাবে হত্যা করেছে আমি তাদের ফাঁসি চাই। আমার মেয়ে যেভাবে ছটফট করে মারা গেছে, তাদেরও যেস সেভাবে মৃত্যু হয়। আর কোন মায়ের বুক যেন এভাবে খালি না হয়।’ প্রায় দেড় ঘন্টাব্যাপী চলা এ বিক্ষোভ সমাবেশে আরো সমাবেশে বক্তব্য দেন প্রফেসর মনতোষ কুমার দে, ঠাকুরগাঁও প্রেস ক্লাবের সভাপতি মনসুর আলী, সংস্কৃতি কর্মী সেতারা বেগম, ঠাকুরগাঁও সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষিকা সালেহা খাতুন, শিক্ষার্থী লাকী আক্তার প্রমুখ।উল্লেখ্য, গত ১৫ ডিসেম্বর বিকেলে নিখোজ হয় ঠাকুরগাঁও শহরের গোয়ালপাড়ার বাসিন্দা জুয়েল রহমান এর মেয়ে ও ঠাকুরগাঁও সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণির ছাত্রী সুমনা হক। চারদিন পর ১৯ ডিসেম্বর রাতে প্রতিবেশী ইয়াসিন হাবিব কনক এর বাসার নির্মাণাধীন টয়লেট থেকে মাটিচাপা দেয়া অবস্থায় সুমনার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগে এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ইয়াসিন হাবিব কনক তার পুত্র রিয়াজ আহমেদ কানন (১৫) কে থানায় সোপর্দ করে। কানন ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চবিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্র। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বাসার নির্মাণাধীন টয়লেট থেকে মাটিচাপা দেয়া অবস্থায় সুমনার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ব্যপারে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশিকুর রহমান জানিয়েছেন নহিত সুমনা হককে ধর্ষণের পর শ^াসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে হত্যার আসল তথ্য জানা যাবে। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ