মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

খুলনায় প্রাথমিকে স্নাতক পাস সভাপতির কমিটি বাস্তবায়ন হয়নি 

খুলনা অফিস : সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক বাধ্যতামূলক করেছে সরকার। ১১ নবেম্বর জারী করা প্রজ্ঞাপনের পর থেকে এ পর্যন্ত এখনও কোনো কমিটিতে এই প্রজ্ঞাপন বাস্তবায়ন করা হয়নি। যেগুলো হয়ে গেছে সেগুলো নির্দিষ্ট মেয়াদ পর্যন্ত ওইভাবে থাকবে আর নতুন করে হলে এই প্রজ্ঞাপন বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা কর্মকর্তা।

জানা গেছে, খুলনা জেলায় এক হাজার ১৫৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। বিদ্যালয়গুলোতে বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটি রয়েছে আগের নিয়মে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির পুরনো নীতিমালা বাতিল করে সংশোধিত নীতিমালায় নতুন বিধান সংযোজন করে প্রজ্ঞাপন জারী করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। ১১ নবেম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক বাধ্যতামূলক করে সরকার এই প্রজ্ঞাপনটি প্রকাশ করে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির (এসএমসি) সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার ক্ষেত্রে প্রাথমিক যোগ্যতা হিসেবে সভাপতি প্রার্থীর সন্তানকে অবশ্যই ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হতে হবে। এছাড়া বিদ্যোৎসাহী সদস্যদেরও সন্তান বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী হতে হবে এবং তাদেরও শিক্ষাগত যোগ্যতা ন্যূনতম এসএসসি হতে হবে। কমিটির সভাপতিকে অবশ্যই স্নাতক ডিগ্রিধারী হতে হবে। ১১ সদস্যের কমিটিতে সদস্য-সচিব থাকবেন প্রধানশিক্ষক। খুলনায় এই প্রজ্ঞাপন জারীর পরও কোনো কমিটিতে বাস্তবায়ন নেই এই স্নাতক পাস সভাপতি সম্পর্কিত কমিটির।

মেহমানে আলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক সাইফুল ইসলাম বলেন, কমিটিতে যাকে খুশি তাকে সভাপতি ও সদস্য করায় শিক্ষকদের কোনো মূল্যায়ন করা হয়না। অনেক সময় মারধর পর্যন্তও করা হয় শিক্ষকদের। অভিভাবকরাও ঠিকভাবে মূল্যায়িত হয় না।

কয়লাঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক অভিভাবক সোনিয়া খাতুন বলেন, কমিটির সভাপতি স্নাতক পাস এবং অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীর অভিভাবক হলে শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকরা বিদ্যালয়ে গেলে যথাযথ মূল্যায়িত হবে। শিক্ষার্থীদের সমস্যাও কমিটি বুঝে ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

এ ব্যাপারে খুলনা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এ এস এম সিরাজুদ্দোহা বলেন, এ প্রজ্ঞাপন জারীর পর কোনো কমিটিতে এখনও এর বাস্তবায়ন করা হয়নি। এই প্রজ্ঞাপন জারীর আগে যে সব কমিটি হয়েছে তাতে আর কোনো পরিবর্তন করা হয়নি। প্রজ্ঞাপনের বিষয়টি বাস্তবায়নের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ