বৃহস্পতিবার ০১ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

জাতীয় পার্টি কারো ব্যক্তিগত নয় -জিএম কাদের

 

স্টাফ রিপোর্টার: কাউন্সিলকে ঘিরে জাতীয় পার্টিতে (জাপা) আবারও সংকটের আভাস প্রসঙ্গে দলটির চেয়ারম্যান বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের এমপি বলেছেন, দলের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠলে প্রয়োজনে ভোটাভুটির মধ্যদিয়ে জাপার নেতারা তাদের নেতা নির্বাচন করবেন। আমাদের প্রস্তুতি আছে, কারণ নেতৃত্বে আসার ক্ষেত্রে চাকচিক্যের চেয়ে দলের প্রতি আন্তরিকতাসহ মরহুম রাষ্ট্রপতি এরশাদের রাজনৈতিক আদর্শকে গুরুত্ব দিবেন যিনি তিনিই জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হবেন।

২৮ ডিসেম্বরের কাউন্সিলের বিষয়ে দলীয় নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, সারা বাংলাদেশের দলীয় নেতাকর্মীরা সিদ্ধান্ত নিবেদন কে হবেন চেয়ারম্যান। জাপা কারোর ব্যক্তিগত সম্পত্তি নয়। পার্টির প্রতিটি নেতা-কর্মী জাপার মালিক।

জাতীয় পর্টির সাবেক এমপি শামসুল হক তালুকদার বলেন, যার কাছে নেতাকর্মী সমর্থকরা সহসাই যেতে পারবেন এবং ফোন ধরবেন পার্টির দুঃসময়ে নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করবেন তাকেই চেয়ারম্যান করা হবে। সহজ জি এম কাদের আমাদের চেয়ারম্যান। কারণ আমাদের পার্টির হওয়ার যোগ্যতা তিনিই রাখেন। তার অন্যতম কারন হচ্ছে, সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের দুঃসময়ে সাথী ছিলেন জিএম কাদের।

রওশন এরশাদ প্রসঙ্গে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জানান, দলকে ভাঙ্গনের মুখে ঠেলে দেয়ার নীলনকশা করছে ব্যারিস্টার গ্রুপ। এটা বুঝার শক্তি নেতাকর্মী ও সমর্থকদের আছে। তাই সাবেক রাস্ট্রপতি হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদের ছোট ভাই জিএম কাদের একমাত্র ব্যক্তি যিনি ভাই ভাইয়ের অসমাপ্ত কাজ সম্পন্ন করার যোগ্য। রওশন এরশাদ সে তো পদ আর পদবী ছাড়া কিছু বুঝেন না। তার সম্পর্কে বলার কিছুই নেই! তবে রওশন ম্যাডাম যদি ব্যারিস্টারদের কথায় তাদের স্বার্থে দলকে ভাঙ্গনের মুখে ঠেলে দেন, এটা হবে তার জীবনের বড় ভুল। কারণ জিএম কাদের কাউকে কন্টেক্টরী পেয়ে দেয়ার রাজনীতি করেন না । আপনি যদি দেশকে জাপা প্রতিষ্ঠাতার আদর্শকে ভালোবাসেন তাহলে নিশ্চয় জিএম কাদেরকে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চান। আপনাদের এ পদের মর্যাদা প্রতিষ্ঠা করতে অনেক মূল্য দিয়ে গেছেন মরহুম রাষ্ট্রপতি জীবন দিয়েছেন।

এদিকে সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ এর মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করলে ও তিনি ফোন ধরেননি। রওশনপন্থী জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা হলে তিনি মুঠো ফনে জানান, দু একদিনের মধ্যে কাউন্সিলের মধ্য দিয়ে গণমাধ্যমকে জানানো হবে কে হবেন দলের চেয়ারম্যান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ