মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

প্রচণ্ড শীত উপেক্ষা করে পাবনার লালপুর পার্কে পর্যটকদের ভিড়

সলঙ্গা (সিরাজগঞ্জ) থেকে ফারুক আহমেদ : তীব্র শীতকে উপেক্ষা করে পর্যটকের উপচে পড়া ভিড় এখন পাবনা লালপুরে। শুক্রবার সকাল থেকে শুরু করে রাত ৮ পর্যন্ত পার্কের ভিতর কোথাও তিল ধারণের জায়গা নেই। পর্যটকদের টিকেট দিতে হিমশিম খাচ্ছেন পার্ক কর্তৃপক্ষ। অনেকে আবার আগে থেকেই পার্কের ভিতর ঢোকার জন্য টিকেট কাউন্টারে ফোন দিয়ে অগ্রিম টিকেট কেটে নিচ্ছেন। প্রতিবছর শীতে মৌসুমে প্রচুর পর্যটকের আগমন ঘটে পাবনা জেলা লালপুর পার্কে। ডিসেম্বর মাস ছেলেমেয়েদের পরীক্ষা শেষে হয়ে যায়। এই সময় ভ্রমণপিপাসুরা ছুটে আসেন লালপুর পার্কের সৌন্দর্য দেখতে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। ডিসেম্বর মাসের তীব্র শীত উপেক্ষা করে পর্যটকরা ঘুরে বেড়াচ্ছেন এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায়। বেড়াতে এসে অনেকে শীতের কাপুরসহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয়ও জিনিস পত্র ক্রয় করছেন স্থানীয় পার্কের ভিতর থেকেই। শুক্রবার সরকারি ছুটি থাকায় এ দিনে পর্যটকের সংখ্যা বেড়ে যায় অনেকগুণে। একসঙ্গে এত পর্যটক আসায় টিকেট দিতে হিমশিম খাচ্ছেন পার্কমালিকেরা। লালপুর পার্কের এক কর্মকর্তা বলেন, এখন সিজন,তার ওপর বন্ধের দিন হওয়ায় ভ্রমণপিপাসুরা ছুটে এসেছেন পাহাড়ের সৌন্দর্য দেখতে। টিকেট এখন খুব কম যারা আগে টিকেট মোবাইলে বুকিং দিয়ে রেখেছেন তাদেকেই শুধু টিকেট দিতে পারছি তাই নতুন করে যারা আসছেন, তাদের কম দিতে পারছি।

সাংবাদিক মাসুম বিল্লাহ বলেন, শুক্রবার দুপুরে লালন সেতু, পাবনা লালপুর পার্কসহ বিভিন্ন পর্যটন স্পট ঘুরে দেখা গেছে,পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়। এছাড়া লালন সেতুতেও পর্যটকদের পদচারণায় মুখর। শিশু, বৃদ্ধা, যুবক-যুবতীরা প্রিয়জনদের নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন দর্শনীয় সব স্থানে। অনেকদিন পর এত পর্যটকের আগমনঘটায় খুশি হোটেল-মোটেল, রেন্টুরেন্ট ও পরিবহন মালিকরা। 

লালপুর পার্কের কর্মকর্তাদের কাছে পর্যটকদের নিরাপত্তা সম্পর্কে জানতে চাইলে তারা বলেন, পর্যটকদের যাতে কোনো অসুবিধা না হয় সে লক্ষ্যে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ