বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

রিয়ালের শেষটা সুন্দর হলো না

লা লিগায় অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। বলের দখল, আক্রমণে এগিয়ে থেকেও গোল পায়নি রিয়াল মাদ্রিদ। বিলবাওয়ের গোলরক্ষক আজ দারুণ ব্যস্ত সময় পার করেছেন। গোলমুখে রিয়াল খেলোয়াড়দের একের পর এক শট ঠেকাতে কঠিন পরীক্ষায় উতরে গেছেন বিলবাও গোলরক্ষক উনাই সিমন। এল ক্লাসিকো ম্যাচের পর জিদানের চিন্তার বিষয় ছিল সুযোগগুলো কাজে লাগানোর ব্যর্থতা। বিলবাওয়ের বিপক্ষে কপালের ভাঁজ আরও কিছু বেড়েছে বৈ কমেনি! দুর্দান্ত সব আক্রমণ শেষ মুহূর্তে গোলের মুখ না দেখায় বারবার হতাশ হয়েছেন রিয়াল বস। বার্নাব্যুতে ম্যাচের শুরু থেকেই অতিথিদের চেপে ধরে রিয়াল। ম্যাচের তৃতীয় মিনিটে গোলমুখে প্রথম শট নেন ভিনিসুয়াস জুনিয়র। মডরিচের বাড়ানো বল এই ব্রাজিলিয়ান সেনসেশন গোলপোস্টের বেশ বাইরে দিয়ে শট নিয়ে সুযোগ হাতছাড়া করেন। দশ মিনিটের মধ্যে ফের ভালো সুযোগ পায় স্বাগতিকেরা। দারুণ ক্ষিপ্রতায় বল নিয়ে ছোটা লুকা মডরিচ শেষ মুহূর্তে হড়বড় করে ফেলেন। রদ্রিগোকে বাড়িয়ে দিতে পারলেই কাজ হতো হয়তো। প্রথমার্ধে এমন বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করেও ফিনিশিংয়ের অভাবে গোলের মুখ দেখেনি রিয়াল সমর্থকেরা। ম্যাচের ১১তম ভিনিসুয়াসের শট ঠেকিয়ে দেন বিলবাওয়ের গোলরক্ষক। বিলবাওয়ের এই গোলরক্ষকের কথা না বললেই নয়। ম্যাচে দুর্দান্ত সব সেভ করে দলকে বারবার রক্ষা করেন উনাই সিমন। তবে বিলবাও যে কয়টা আক্রমণ করেছে সেগুলোও গোলের সুযোগ তৈরি করেছিল। রিয়ালের মতো তারাও ফিনিশিংয়ের অভাবে গোলমুখ খুলতে ব্যর্থ হয়েছে। বার্সেলোনাকে টপকে লিগ টেবিলের শীর্ষে উঠতে রিয়াল মাদ্রিদের  ম্যাচ জয় আবশ্যিক ছিল। যদিও ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুইয়ে থেকেই বছর শেষ করল রিয়াল। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ