সোমবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

আগৈলঝাড়ায় স্কুলে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি অবমাননা প্রধান শিক্ষক বরখাস্ত ॥ মামলা দায়ের

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) সংবাদদাতা : বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি অবমাননার অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় উপজেলা সদরের শতবর্ষী বিদ্যাপীঠ ভেগাই হালদার পাবলিক একাডেমীর সেই প্রধান শিক্ষক যতীন্ত্র নাথ মিস্ত্রীকে বরখাস্ত করা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিপুল চন্দ্র দাস স্বাক্ষরিত ৫০৩ নং স্বারকে প্রধান শিক্ষক যতীন্দ্র নাথ মিস্ত্রীর বিরুদ্ধে তদন্ত রিপোর্টে বলা হয়, বিভিন্ন অভিযোগ প্রধান শিক্ষক যতীন্দ্র নাথ মিস্ত্রীর বিরুদ্ধে ১২ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার শহরে বিক্ষোভ মিছিল হয়। উদ্ধুদ্ধ পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার বিকেলে এডহক কমিটির জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। জরুরী সভার মাউশি এর এসআরও নং-৯৯/আইন/২০০৯ এর বিধি ৩৯ এর (২) মোতাবেক এবং ৪১ (ঘ) এর আলোকে সভার ২নং সিদ্ধান্ত মোতাবেক প্রধান শিক্ষক যতীন্ত্র নাথ মিস্ত্রীকে চাকুরী থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এর আগে ঘটনার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নজরুল ইসলামের তদন্ত রিপোর্টে রাষ্ট্রীয় ছবি অবমাননার সত্যতা পাওয়ায় শুক্রবার ৫০২ নং স্বারকে থানা অফিসার ইন চার্জ আগৈলঝাড়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি অবমাননার প্রেক্ষিতে প্রধান শিক্ষক যতীন্ত্র নাথ মিস্ত্রীর বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলা দায়েরের শুপারিশ করেন ইউএনও বিপুল চন্দ্র দাস। 
এদিকে বৃহস্পতিবার আন্দোলন করা সাবেক শিক্ষার্থী ফুল্লশ্রী গ্রামের ইদ্রিস হাওলাদারের ছেলে খায়রুল বাশার বাপ্পি বাদী হয়ে প্রধান শিক্ষক যতীন্ত্র নাথ মিস্ত্রীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় ছবি অবমাননার অভিযোগে শুক্রবার শেষ বিকেলে আগৈলঝাড়া থানায় মামলা ১৪৩/ ৫০০/ ৫০৪ ধারায় মামলা দায়ের করেন, মামলা নং-৬ (১৩.১২.১৯)।
মামলা দায়ের সত্যতা স্বীকার করে অফিসার ইন চার্জের দ্বায়িত্বে থাকা ওসি (তদন্ত) মো. নকিব আকরাম বলেন, মামলার তদন্ত শেষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। 
উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার দুপুরে ভেগাই হালদার পাবলিক একাডেমীর (বিএইচপি একাডেমী) পরীক্ষা শেষে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা শিক্ষক মিলনায়তনের সামনে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি অবমাননাসহ প্রধান শিক্ষক যতীন্দ্র নাথ মিস্ত্রীর বিভিন্ন অনিয়মের প্রতিবাদ জানিয়ে তার অপসারণ দাবি করে বিক্ষোভ মিছিল করে ইউএনও’র কাছে ১২দফা অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সাথে সংহতি প্রকাশ করেছিলে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষক কাউন্সিল নেতৃবৃন্দসহ সাধারণ জনগন। ওই সকল অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইউএনও তদন্ত কমিটি গঠন করেন এবং নিজেও ঘটনার তদন্ত করে সত্যতা পেয়ে উরোক্ত ব্যবস্থা গ্রহন করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ