শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

শীর্ষ সব খেলোয়াড়ই আছেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে

পুরুষ ও নারী বিভাগে বিশ্বের শীর্ষ ৫০জন খেলোয়াড়রই আসন্ন অস্ট্রেলিয়ান ওপেন টেনিসে নিজেদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করেছেন বলে আয়োজক সূত্রে জানা গেছে। আগামী ২০ জানুয়ারি থেকে ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মেলবোর্ন পার্কে অনুষ্ঠিত হবে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ১১৫তম আসর। দুই বিভাগের দুই শীর্ষ খেলোয়াড় রাফায়েল নাদাল ও এ্যাশলেই বার্টি বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যামের নেতৃত্বে থাকছেন। এর পাশাপাশি  আছেন  ইনজুরি কাটিয়ে কোর্টে ফেরা বিশ্বের সাবেক তিন নম্বর খেলোয়াড় হুয়ান মার্টিন ডেল পোত্রো। র‌্যাঙ্কিংয়ের সম্ভাব্য ২২ নম্বর স্থান নিয়ে এই আর্জেন্টাইন কোর্টে নামবেন। ইনজুরির কারনে দীর্ঘ ছয় মাস ডেল পোত্রো কোর্টের বাইরে ছিলেন। সাতবারের বিজয়ী সেরেনা উইলিয়ামস সর্বকালের সর্বোচ্চ গ্র্যান্ড স্ল্যাম বিজয়ী অস্ট্রেলিয়ান মার্গারেট কোর্টের রেকর্ড ২৪তম শিরোপা স্পর্শেল লক্ষ্যে কোর্টে নামবেন। সেরেনার সাথে আরো একটি বছর শুরু করতে যাচ্ছেন বড় বোন ৩৯ বছর বয়সী ভেনাস উইলিয়ামস।  দুইবারের চ্যাম্পিয়ন ভিক্টোরিয়া আজারেঙ্কা বর্তমানে শীর্ষ ৫০ জনের বাইরে রয়েছেন। শনিবার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের এন্ট্রির সময় সীমা শেষ হবার কিছু আগে ব্যক্তিগত কারনে তিনি নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। টুর্নামেন্ট পরিচালক ক্রেইগ টিলে বলেছেন, ‘মেলবোর্নে অত্যন্ত শক্তিশালী কিছু খেলোয়াড়কে স্বাগত জানাতে পেরে আমরা দারুন উচ্ছসিত। তাদেরকে নিয়ে দারুন একটি টুর্নামেন্ট আয়োজনের আশা করছি।’ গত এক দশকে শুধুমাত্র ২০১৪ সালে সুইস তারকা স্ট্যান ওয়ারিঙ্কা শিরোপা জয় করেছিলেন। আর রাফায়েল নাদাল ক্যারিয়ারের একমাত্র অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জিতেছিলেন ২০০৯ সালে। এছাড়া বাকি শিরোপাগুলো নোভাক জকোভিচ ও রজার ফেদেরারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল। ক্যারিয়ারের অষ্টম অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জয়ের লক্ষ্যে কোর্টে নামবেন বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জকোভিচ। অন্যদিকে ৩৮ বছর বয়সী ফেদেরার লড়বেন সপ্তম শিরোপার জন্য। তবে নারী বিভাগের চ্যাম্পিয়নশীপটি গত ১০ বছরে সাতজন ভিন্ন ভিন্ন খেলোয়াড় জয় করায় এটা অনেক বেশী উন্মুক্ত হয়ে গেছে। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জাপানী তরুনী নাওমি ওসাকার দিকে এবারও সকলের দৃষ্টি থাকবে। সাবেক বিজয়ী ক্যারোলিন ওজনিয়াকি সম্প্রতি ঘোষনা দিয়েছেন অবসরের আগে এটাই তার সর্বশেষ টুর্নামেন্ট। ইন্টারনেট। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ