শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

হামদর্দ পাবলিক কলেজে নবীনবরণ ও কৃতী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা

হামদর্দ পাবলিক কলেজের ৮ম ব্যাচের কৃতী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা ও ১০ম ব্যাচের নবীনবরণ ২০১৯ অনুষ্ঠান গত ০৮ ডিসেম্বর, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল এমপি। হামদর্দ পাবলিক কলেজের গবর্নিং বডির সভাপতি ও হামদর্দ বাংলাদেশের পরিচালক অর্থ, হিসাব ও ক্রয় মো. আনিসুল হকের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন হামদর্দ পাবলিক কলেজের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান পৃষ্ঠপোষক, হামদর্দ ল্যাবরেটরীজ (ওয়াক্ফ) বাংলাদেশ-এর চীফ মোতাওয়াল্লী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. হাকীম মো. ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট বাঙালি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর অবদান শিক্ষার্থীদের মাঝে তুলে ধরেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে এই মহান নেতা তাঁর জীবন উৎসর্গ করেছেন। এ ছাড়াও তিনি বলেন, জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা জনদরদী মানবতাবাদী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশের সর্বক্ষেত্রে সাফল্যের ধারা অব্যাহত রয়েছে। তিনি কোমলমতি শিক্ষার্থীদের বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হওয়ার আহ্বান জানান।  বিশেষ অতিথি ড. হাকীম মো. ইউছুফ হারুন ভূঁইয়া বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ স্বাধীন না করলে আমরা আজ এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে পারতাম না। তিনি আরো বলেন, স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঠিক দিক-নির্দেশনায় বাংলাদেশে শিক্ষাক্ষেত্রে অভাবনীয় সাফল্য এসেছে। প্রধানমন্ত্রী শিক্ষাবৃত্তি প্রদানের মাধ্যমে সমাজের সর্বস্তরে শিক্ষার আলো পৌঁছে দিচ্ছেন। শিক্ষার আলো সমাজকে আলোকিত করবে। তিনি নবীন শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে হামদর্দ পাবলিক কলেজে তাদের বরণ করে নেন ও কৃতী শিক্ষার্থীদের ভালো ফলাফলের ধারা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান। তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে শহিদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে তার বক্তব্য শেষ করেন।

সভাপতির বক্তব্যে মো. আনিসুল হক বলেন হামদর্দ পাবলিক কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয় ১৩ জুন, ২০১০। কলেজটি ২০১৪ সালে ঢাকা শিক্ষাবোর্ডে ১৯তম স্থান অর্জন করে এবং ধানমন্ডি থানা ধারাবাহিকভাবে ১ম স্থান অর্জন করে। কলেজ থেকে পাশ করা ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে বুয়েট, কুয়েট, চুয়েট, রুয়েট, বুটেক্সসহ ইঞ্জিনিয়ারিং বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬১ জন; সরকারি মেডিকেল কলেজে ৪৬ জন; ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৮১ জন; অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৪০ জন অধ্যয়ন করছে। তিনি কলেজের সাফল্যের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন হামদর্দ পাবলিক কলেজের গবর্নিং বডির সদস্য এবং হামদর্দ বাংলাদেশে উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন রাসেল, হামদর্দ বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের ভাইস চ্যান্সেলর, অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল মান্নান, হামদর্দ বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. আবুল খায়ের, হামদর্দ পাবলিক কলেজের গবর্নিং বডির সদস্য ও হামদর্দ বাংলাদেশের পরিচালক প্রশাসন অধ্যাপক হাকীম শিরী ফরহাদ, হামদর্দ পাবলিক কলেজের গবর্নিং বডির সদস্য ও হামদর্দ ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের পরিচালক লে. কর্নেল মাহবুবুল আলম চৌধুরী (অব.), হামদর্দ পাবলিক কলেজের গবর্নিং বডির সদস্য ও হামদর্দ বাংলাদেশের পরিচালক মানব সম্পদ উন্নয়ন ডা. হাকীম নার্গিস মার্জান। 

 

পরবর্তীতে হামদর্দ পাবলিক কলেজের শিক্ষার্থীরা মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ