মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

দেশের মানুষ কর দিচ্ছেন বলে পদ্মা সেতুর মতো বড় প্রকল্প বাস্তবায়ন সম্ভব হচ্ছে

চট্টগ্রাম ব্যুরো : দেশের মানুষ স্ব-প্রণোদিতভাবে কর দিচ্ছেন বলে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর মতো এতো বড় প্রকল্প বাস্তবায়ন করা বাংলাদেশের পক্ষে সম্ভব হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ.জ.ম নাছির উদ্দীন।
তিনি গতকাল শনিবার সকালে আগ্রাবাদস্থ সিজিও বিল্ডিং-এ আয়কর দিবস ২০১৯ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
আয়কর দিবস ২০১৯ প্রস্ততি কমিটির আহ্বায়ক কর কমিশনার জিএম আবুল কালাম কায়কোবাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব সফিনা জাহান বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠান মঞ্চে আরো উপস্থিত ছিলেন কর কমিশনার সৈয়দ মোহাম্মদ আবু দাউদ, ইকবাল হোসেন, মাহ্বুবুর রহমান, মফিউজ উল্লাহ, অতিরিক্ত কর কমিশনার সামিনা ইসলাম ও কর আইনজীবি সমিতির সভাপতি এডভোকেট সৈয়দ জামাল উদ্দিন প্রমুখ। সিটি মেয়র বলেন কর সংস্কৃতি বিকাশ ও জনমনে কর ভীতি দুর করে রাজস্ব আহরণ কাঙ্খিত পর্যায়ে উন্নীত করে দেশের চলমান অর্থনৈতিক উন্নয়নের গতিকে আরো বেগবান করার লক্ষে জাতীয় আয়কর দিবস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের জনসচেতনতা মূলক কর বান্ধব কর্মসূচির ফলে পুরো নভেম্বর মাসটিই আয়কর বিষয়ক উৎসবের মাসে পরিণত হয়েছে। ১৪ থেকে ২০ নভেম্বর ৭দিন ব্যাপি আয়কর মেলা সারাদেশে ১২০টি স্পটে অনুষ্ঠিত হয়েছে।
 তিনি বলেন কর সরকারি রাজস্বের একটি অন্যতম উৎস। দেশের মানুষকে করের আওতায় আনায় দেশ আজ অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী হয়েছে। দেশকে আরো সমৃদ্ধিশালী করতে প্রচলিত আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে স্ব-প্রণোদিতভাবে কর দিতে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি আরো বলেন,অভ্যন্তরীন সম্পদ আদায়ে স্বয়ং সম্পুর্ণ হতে হচ্ছে বাংলাদেশ।
মেয়র বলেন, আয়কর প্রদান দেশ প্রেমের একটি অংশ। স্ব-প্রণোদিতভাবে সবাই কর দিলেই দেশ আরো সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাবে। চট্টগ্রাম আয়কর বিভাগ এই কর্মসূচির আয়োজন করে দেশের মানুষকে আয়কর প্রদানে উৎসাহিত করার জন্য সিটি মেয়র  আয়কর বিভাগের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ধন্যবাদ জানান। অনুষ্ঠান শেষে সিটি মেয়রের নেতৃত্বে সিজিও বিল্ডিং -২ থেকে এক শোভাযাত্র বের হয়।  চলতি করবর্ষে নিয়মিত রিটার্ন জমা দেওয়ার শেষ সময়  ছিল ৩০ নবেম্বর।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ