বুধবার ৩০ নবেম্বর ২০২২
Online Edition

চৌগাছায় উৎপাদিত ধানের মাত্র আড়াই ভাগ ক্রয় করবে সরকার॥ কৃষকরা হতাশ

চৌগাছা (যশোর) সংবাদদাতা : যশোরের চৌগাছা উপজেলা থেকে চলতি আমন মওসুমে ১ হাজার ৮'শ ৬৮ মেট্রিক টন ধান ক্রয় করবে সরকার। যা এই উপজেলায় উৎপাদিত ধানের মাত্র আড়াই (২.৫) ভাগ। সরকারী তথ্যমতে চলতি আমন মওসুমে উপজেলার ১৭ হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে ধানের চাষ করা হয়। যা থেকে ৭৪ হাজার ১'শ ৭০ মেট্রিক টন ধান উৎপাদন হবে। চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদুল ইসলাম জানান সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ১ হাজার ৮'শ ৬৮ মেট্রিক টন ধান ক্রয় করা হবে। আমন ধানের আবাদকারী ১৮ হাজার ৮'শ ৪৩ জন কৃষকের মধ্য থেকে লটারীর মাধ্যমে ভাগ্যবান কৃষকদের বাছাই করা হবে। আজ বৃহস্পতিবার যশোর -২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. নাসির উদ্দিন সরকারীভাবে ধানক্রয় কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। পরবর্তীতে লটারী কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে এবং ধান ক্রয়ও অব্যাহত থাকবে। হিসাব অনুযায়ী ধান উৎপাদনকারী কৃষকদের মধ্য থেকে মাত্র ১০ ভাগ কৃষক সরকারের কাছে ধান বিক্রয় করতে পারবে। এদিকে ধান ক্রয়ের এ ন্যূনতম অবস্থার খবর পেয়ে চরম হতাশ হয়ে পড়েছেন এলাকার ধান উৎপাদনকারী চাষীরা। এব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলার সিংহঝুলি গ্রামের সাবের আলী সরদার, ইছহাক দফাদার ,মিজানুর রহমান কাটু, আব্দুল আলিম বুড়ো, সামছুল হুদা দফাদারসহ আরো অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন আমরা ভুতের মতো খেটে ধান উৎপাদন করি অথচ সরকার ন্যায্য মুল্য দিতে পারে না। তারা আরো বলেন যেখানে বাজারে ধান বিক্রয় হচ্ছে ৫'শ৫০ টাকা থেকে ৬'শ টাকা সেখানে সরকার ক্রয় করছে ১হাজার ৫০ টাকা অর্থাৎ সরকারের কাছে ধান বিক্রয় করতে পারলে আমরা লাভবান হতাম।
উপজেলার হুদাফতেপুর গ্রামের ধানচাষী মাওলানা আলী আকবর বলেন আমার নিজের কয়েক হাজার মন ধান উদপাদন হয় প্রতি বছর লোকসান দিয়ে ধান বিক্রয় করছি। কি করবো কোন উপায়ও বের করতে পারছিনা। এব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রইচ উদ্দিন বলেন, ফসল উৎপাদনের সাথে জড়িত বিপননটা আমাদের হাতে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ