মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

চীন-যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্য যুদ্ধে তাইওয়ান-ভিয়েতনাম লাভবান

২৯ নবেম্বর, ইন্টারনেট : পরস্পরের পণ্যের ওপর অতিরিক্ত শুল্ক আরোপের মাধ্যমে চীন-যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্য যুদ্ধ শুরুর পর প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হয়েছিল বাংলাদেশ ও ভারত এতে লাভবান হবে। তবে ২০১৯ সালের প্রথমার্ধ শেষে দেখা গেছে এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে কেবল তাইওয়ান ও ভিয়েতনামই যুক্তরাষ্ট্রে তাদের পণ্য রফতানি বাড়াতে পেরেছে। সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নিজস্ব কোম্পানিগুলো। এর পাশাপাশি মেক্সিকোর প্রতিষ্ঠানগুলো লাভের বড় অংশ পেয়েছে।

জাতিসংঘের বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও উন্নয়ন সংক্রান্ত সংস্থা ইউএনসিটিএডি পরিচালিত এক জরিপে এসব তথ্য উঠে এসেছে। জাতিসংঘের বিশ্লেষকরা জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্র ও চীন পাল্টাপাল্টি শুল্ক আরোপ করায় অর্থনীতির গতি কমেছে আর আক্রান্ত হয়েছে সারাবিশ্বের উন্নয়ন।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে চীনের রফতানি কমেছে ৩ হাজার ৫০০ কোটি ডলার। তবে এই ক্ষতি এড়াতে বেশ কিছু পাল্টা পদক্ষেপ নিয়েছে চীন। যেমন যুক্তরাষ্ট্র থেকে সয়াবিন ও অন্য কৃষি পণ্য কেনা বন্ধ করা হয়েছে। এতে যুক্তরাষ্ট্রের কৃষকেরা খুবই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া চীনা প্রতিষ্ঠানগুলো বেশ কিছু রফতানি পণ্যের দাম কমিয়েছে, ফলে আরও বেশি প্রতিযোগিতার সুযোগ পাচ্ছে তারা। সাম্প্রতিক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, বাণিজ্য যুদ্ধে কেবল চীনই ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। দেশটিতে যুক্তরাষ্ট্রের সয়াবিন ও অন্য খাদ্য পণ্যের রফতানি ২৬ হাজার কোটি ডলার থেকে নেমে এসেছে মাত্র নয় হাজার কোটি ডলারে। মিনেসোটা, ইলিনয়ের মতো অঙ্গরাজ্যগুলোর কৃষকদের আয় সরাসরি ২৫ শতাংশ কমেছে। বিভিন্ন উদ্যোগের মধ্য দিয়ে ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র। এর বেশিরভাগই নিজস্ব অর্থায়নের মধ্য দিয়ে ঘাটতি পুষিয়ে নেওয়ার চেষ্টা। অপরদিকে চীনের তরফে ইলিনয় ও মিনেসোটার কৃষকদের লক্ষ্যবস্তু বানানোরও উদ্দেশ্য রয়েছে। এসব রাজ্যগুলোতে রয়েছে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শক্ত অবস্থান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ