শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

প্রথমবারের মতো আফগানিস্তান সফরে ট্রাম্প

২৯ নবেম্বর, ইন্টারনেট : প্রথমবারের মতো আফগানিস্তান সফরে গেলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। হঠাৎ করেই অনেকটা অঘোষিতভাবে গতকাল শুক্রবার সেখানে যান তিনি। আফগানিস্তানে গিয়ে ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবান এখনও আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে।

 টুইন টাওয়ারে হামলার পর মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ন্যাটো আফগানিস্তানে হামলা চালিয়ে তালেবান সরকারকে ক্ষমতা থেকে উৎখাত করে। তখন থেকেই যুক্তরাষ্ট্র ও তাদের মিত্রদের বিরুদ্ধে সশস্ত্র লড়াই করে যাচ্ছে গোষ্ঠীটি। দীর্ঘ ১৮ বছরের যুদ্ধ অবসানের লক্ষ্যে গত বছরের জুন থেকে কাতারের রাজধানী দোহায় মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে ধারাবাহিক আলোচনা শুরু করেন তালেবান কর্মকর্তারা। এরই প্রেক্ষিতে একটি শান্তিচুক্তিতে একমত হয় দুই পক্ষ। সর্বশেষ তালেবানের সঙ্গে করা চুক্তির আওতায় আফগান সরকার তালেবানের নেতা আনাস হাক্কানি ও অন্য দুই শীর্ষ পর্যায়ের কমান্ডারকে তালেবানের কাছে হস্তান্তর করে। বিনিময়ে যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ার দুজন অধ্যাপককে মুক্তি দেয় তালেবান।

আফগানিস্তানে বাগ্রাম বিমানঘাঁটিতে গিয়ে ট্রাম্প বলেন, তালেবানরা চুক্তি করতে চায়। সেখানে আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির সঙ্গেও দেখা করেন তিনি। ট্রাম্প জানান, ধীরে ধীরে সেখান থেকে সেনা কমিয়ে নিচ্ছেন তিনি।

এখন মাত্র ১৩ হাজার সেনা সেখানে মোতায়েন রয়েছে। ট্রাম্প বলেছেন এই সংখ্যা ৮ হাজার ৬০০ তে নামিয়ে আনার পরিকল্পনা তার। তবে ঠিক কিভাবে এবং কবে থেকে এই প্রক্রিয়া শুরু হবে সে সম্পর্কে কিছু জানাননি তিনি। ট্রাম্প বলেন, ‘আমরা তাদের (তালেবান) সঙ্গে দেখা করছি এবং যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানাচ্ছি। আগে তারা রাজি ছিলো না। তবে এখন তরা রাজি। আমার মনে হয় এবার ফলপ্রসূ আলোচনা হবে।

আফগানিস্তান অনেকদিন ধরেই তালেবানকে যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়ে আসছে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চুক্তি নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসতে নারাজ তালেবান। গোষ্ঠীটির সিনিয়র নেতারাও নিশ্চিত করে বলেন দোহায় মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে তাদের আলোচনা চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ