বৃহস্পতিবার ০২ জুলাই ২০২০
Online Edition

ইসলামি সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকাশে মহানবীর (সা.) অবদান অবিস্মরণীয় -পীর ছাহেব বায়তুশ শরফ

বায়তুশ শরফ আনজুমনে ইত্তেহাদ বাংলাদেশ কর্তৃক আয়োজিত পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (স্ঃ) উদ্যাপন উপলক্ষে চারদিন ব্যাপি ইসলামী সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠানমালায় মনোজ্ঞ ইসলামী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান “পাখ-পাখালির আসর” ৭ নবেম্বর বৃহষ্পতিবার বাদে মাগরিব চট্টগ্রাম বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্সে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম আধ্যাত্মিক দ্বীনি শিক্ষা নিকেতন বায়তুশ শরফ দরবারের পীর ছাহেব বাহ্রুল উলূম শাহসূফী আলহাজ্ব হযরত মাওলানা মোহাম্মদ কুতুব উদ্দিনের (মঃজিঃআঃ) সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। তিনি বলেন- মানব সভ্যতার ইতিহাসে ইসলামি সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকাশে মহানবী (সা.) এর প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ অবদান অবিস্মরণীয়। রাসূলে খোদা একজন পূর্ণাঙ্গ বোধের মানুষ ছিলেন এবং এই পূর্ণাঙ্গ বোধই হচ্ছে ইসলামি সংস্কৃতির পৃষ্ঠভূমি। রাসূল (সা.) ছিলেন সকল কালের, সকল দেশের সকল মানবের আদর্শ পুরুষ। আল্লাহ্ সুবহানাহু তা’আলা তাঁর সম্বন্ধে বলেছেন- লাকাদ কানা লাকুম ফী রাসূলুল্লাহি উসওয়াতুন হাসানা- নিশ্চয় তোমাদের জন্য রয়েছে আল্লাহ ও রাসূলের উত্তম আদর্শ।  শিশুকালে তিনি অনাথ-দরিদ্র, বাল্যকালে মেষপালক, যৌবনে ব্যবসায়ী, বিবাহিত জীবনে তিনি স্ত্রী পুত্র-কন্যাদের নিয়ে পূর্ণ সংসারী। সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক প্রতিটি মানুষ। সংস্কৃতির বিকাশে রাসূল (সা.) এর অবদান অপরিসীম। মহানবী স. সাহিত্য সংস্কৃতির প্রতি উদার পৃষ্ঠপোষকতার উদাহারণ স্বরূপ বলা যায়- ইসলাম গ্রহণের পর কা’ব ইবনে যুহায়র একটি বিখ্যাত প্রশস্তি গাথা- ‘বানাত সু’আদ’ রচনা করেন। এই ‘বানাত সু’আদ’ কবিতাটি শুনে রাসুল সা. এতোই অভিভূত হয়ে পড়েন যে, তিনি তাঁর নিজ কাঁধ থেকে অতিমূল্যবান চাদরটি কবিকে উপটৌকন হিসেবে দিয়ে তাঁকে বিরল সম্মানে ভূষিত করেন। এমনকি রাসুল পাক স. মসজিদে নববীতে কবি হাস্সান ইবনে সাবিত রা. এর জন্য একটি উঁচু মিম্বরও তৈরি করে দিয়েছেন। সুতরাং সমাজ উন্নয়নে চাই ইসলামী সাংস্কৃতির বিকাশ। সুস্থ সাংস্কৃতিক কর্মকা- উপহার দেয়ার জন্য ইসলামী সাংস্কৃতিক শিল্পীদেরকে নৈতিক গুণে বলীয়ান হতে হবে।
এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আই.এম.এস.গ্রুপের চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট শিল্পপতি ও শিক্ষানুরাগী জনাব আলহাজ্ব আবুল বশর আবু, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আল্লামা শাহ্ আবদুল জব্বার ফাউন্ডেশন, চট্টগ্রাম এর চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও গবেষক আলহাজ্ব মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল হাই নদ্ভী, ইসলামি ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড ঢাকা এর এক্সিকিউটিব ভাইস প্রেসিডেন্ট জনাব মুহাম্মদ শামসুল হুদা, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন-বায়তুশ শরফ আনজুমনে ইত্তেহাদ বাংলাদেশ এর সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ি আল্হাজ্ব এম.এ আবদুল আউয়াল, অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-কেন্দ্রীয় বায়তুশ শরফ জামে মসজিদের খতিব- আলহাজ্ব মাওলানা নুরুল ইসলাম, ইসলামিক ফাউ-েশন চট্টগ্রাম এর সাবেক বিভাগীয় পরিচালক জনাব মাওলানা আবুল হায়াত মোহাম্মদ তারেক, মজলিসুল ওলামা বাংলাদেশের মহাসচিব মাওলানা মামুনুর রশিদ নুরী, মাওলানা কাজী জাফর আহমদ, মাওলানা নুরুল আলম ফারুকী, বায়তুশ শরফ আন্জুমনে ইত্তেহাদ বাংলাদেশ এর সহ-সভাপতি আলহাজ্ব ইদ্রিস মিয়া, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব লুৎফুল করিম, ঈদে মিলাদুন্নবী (স.) উদ্যাপন কমিটির আহ্বায়ক মাওলানা মুহাম্মদ ওবায়দুল্লাহ, যুগ্ম আহ্বায়ক মাওলানা ওবায়দুল্লাহ, যুগ্ম আহ্বায়ক হাফেজ মোহাম্মদ আমান উল্লাহ প্রমুখ।
অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন- মাসিক দ্বীন-দুনিয়ার সম্পাদক আলহাজ্ব মুহাম্মদ জাফর উল্লাহ।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ