শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে ব্রেষ্ট ক্যান্সারের প্রকোপ আশংকাজনক বৃদ্ধি পাচ্ছে, বাংলাদেশের গ্রামাঞ্চলের ৯০% শতাংশ মহিলা এই রোগটির নামের সাথে পরিচিত নয়

চট্টগ্রাম ব্যুরো : অক্টোবর ’১৯ সারাবিশ্বে ব্রেষ্ট ক্যানসার সচেতনতা মাস হিসাবে পালিত হচ্ছে। এ উপলক্ষে সিএসসিআর এর উদ্যোগে ধারাবাহিক স্বাস্থ্য সচেতনতা মূলক অনুষ্ঠান আয়োজনের আওতায় গতকাল শনিবার সকাল ১১ টায় চট্টগ্রাম ক্লাব অডিটোরিয়ামে ব্রেষ্ট ক্যানসার সচেতনতা বিষয়ক (Breast Cancer Awareness) কর্মশালার আয়োজন করা হয়।
সিএসসিআর এর অধ্যাপক জিনাত মেরাজ চৌধুরী (স্বপ্না) এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্রের প্রখ্যাত ব্রেষ্ট ক্যানসার শল্য চিকিৎসক সুজানে এলিসা হোক্সট্রা (SUZANNE ALISA HOEKSTRA) মুখ্য আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক ছাত্রী, বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার মহিলাবৃন্দ, সাংবাদিক, ব্যাংকার, আইনজীবি, পুলিশ কর্মকর্তা, আয়কর কর্মকর্তা, সরকারী বেসরকারী কর্মকর্তা, মহিলা উদ্যোক্তা এবং বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকবৃন্দ ও সুধীজন অংশগ্রহণ করেন।
অনুষ্ঠানে প্যানেল এক্সপার্ট হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সিএসসিআর এর কনসালটেন্ট শল্য চিকিৎসক অধ্যাপক খন্দকার এ কে আজাদ ও সিএসসিআর এর কনসালটেন্ট ক্যান্সার রোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক সাজ্জাদ মোহাম্মদ ইউসুফ। বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য ওয়াসেকা আয়েশা খান, সিএসসিআর এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক অধ্যাপক এম এ কাশেম, এবং সিএসসিআর এর কনসালটেন্ট স্ত্রীরোগ চিকিৎসক অধ্যাপক রওশন মোরশেদ। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন স্পন্সর প্রতিষ্ঠান রোস (Roche) বাংলাদেশ এর কর্মকর্তা জনাব আরেফিন মোস্তফা। মূখ্য আলোচক কে সম্মাননা ক্রেষ্ট প্রদান করেন সিএসসিআর এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং অন্যান্য পরিচালকবৃন্দ। প্রশ্নোত্তর পর্বে বিপুল সংখ্যক অংশগ্রহনকারীর প্রশ্নের জবাব দেন ডাঃ সুজানে এলিসা হোক্সট্রা,অধ্যাপক খন্দকার এ কে আজাদ, অধ্যাপক সাজ্জাদ মোহাম্মদ ইউসুফ।
মূখ্য আলোচক ডাঃ সুজানে বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে ব্রেষ্ট ক্যান্সারের প্রকোপ আশংকাজনক বৃদ্ধির কথা উল্লেখ করে জানান তৃতীয় বিশ্বের দেশ গুলোতে মহিলাদের ক্ষমতায়ন,শিক্ষার হার বৃদ্ধি এবং কুসংস্কার থেকে মুক্তি ব্রেষ্ট ক্যান্সারের প্রকোপ কমাতে পারে। তিনি বলেন মহিলারা নিজের পরিবারের প্রতি যত্নশীল হওয়ার সাথে সাথে নিজের স্বাস্থের প্রতি ও যত্নশীল হতে হবে। তিনি সাথে সাথে কায়িক পরিশ্রম, পরিমিত খাওয়ার এবং স্নায়ুচাপ মুক্ত জীবন যাপনের জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান। অধ্যাপক খন্দকার এ কে আজাদ বলেন বাংলাদেশের গ্রামাঞ্চলের ৯০% শতাংশ মহিলা এই রোগটির নামের সাথে পরিচিত নয়। তিনি ১৮ বছরের পর থেকে সকল মহিলার স্বউদ্যোগে স্তন পরীক্ষার উপর গুরুত্বারোপ করেন। অধ্যাপক সাজ্জাদ মোহাম্মদ ইউসুফ চট্টগ্রামে ক্যান্সার রোগের সামগ্রিক চিত্র, পরীক্ষার সুবিধা এবং সুলভে সম্ভাব্য চিকিৎসার বর্ননা করে ৪০ থেকে ৫৪ বছর বয়সের মহিলাদের বৎসরে একবার মেমোগ্রাফি করার পরামর্শ দেন। তিনি স্কুল স্বাস্থ্য কার্যক্রমের আওতায় প্রতিটি স্কুলে ক্যান্সার সচেতনতামুলক ভিডিও প্রদশর্নীর ব্যবস্থা করার পরামর্শ দেন। সংসদ সদস্য ওয়াসেকা আয়েশা খান তাঁর মাতা এবং শাশুড়ির ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর কথা উল্লেখ করে বলেন সময়মত রোগ নির্ণয় হলে ক্যান্সার এর মৃত্যুর হার অনেক হ্রাস পেতে পারে। তিনি আজকের এই উদ্যোগের জন্য সিএসসিআর কে ধন্যবাদ জানান। অধ্যাপক রওশন মোরশেদ বলেন এক সময় মহিলাদের জরায়ুমুখ ক্যান্সারে আক্রান্তের পরিমান আশংকাজনক হলেও সচেতন হওয়ার পর এই রোগে আক্রান্তের হার এখন অনেক কম। আমরা সচেতন হলে ব্রেষ্ট ক্যানসার থেকেও পরিত্রান পাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হবে। অধ্যাপক এম এ কাশেম বলেন সিএসসিআর এর পক্ষ থেকে ভবিষ্যতেও এ ধরনের উদ্যোগ গ্রহন করা অব্যাহত থাকবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ