শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ফায়ার সার্ভিস সপ্তাহ শুরু আজ

স্টাফ রিপোর্টার : আজ ৬ নবেম্বর বুধবার থেকে সারা দেশে শুরু হচ্ছে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ-২০১৯। এ বছর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ পালনের মূল প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে “সচেতনতা, প্রস্তুতি ও প্রশিক্ষণ দুর্যোগ মোকাবেলার সর্বোত্তম উপায়”। আগামী ১২ নভেম্বর পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ পালনের মাধ্যমে দেশব্যাপী চালু থাকা ৪১১টি ফায়ার স্টেশনে বিস্তারিত কর্মসূচি পালন করা হবে।
ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী বাণী প্রদান করেছেন। রাষ্ট্রপতি তাঁর প্রদত্ত বাণীতে বলেন, “উদ্ধার, অগ্নি প্রতিরোধ ও অগ্নি নির্বাপণ কার্যক্রম সম্পর্কে জনসাধারণকে অবহিতকরণ এবং সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে দেশব্যাপী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ পালন একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ। সপ্তাহব্যাপী বিভিন্ন আয়োজন জনগণের সাথে এ বিভাগের কর্মীদের ঘনিষ্ঠতা ও পারস্পরিক যোগাযোগ আরো বাড়াতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে বলে আমার বিশ্বাস।”
প্রধানমন্ত্রী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ কার্যক্রমের সার্বিক সাফল্য কামনা করে তাঁর প্রদত্ত বাণীতে বলেন, “আমি আশা করব, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স-এর কর্মীরা নতুন উদ্যমে সাহস, দক্ষতা, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবেন এবং নিরাপদ বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার বাস্তবায়নের মাধ্যমে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের ‘সোনার বাংলাদেশ’ গড়ে তুলতে সহায়তা করবেন।”
সপ্তাহের প্রথম দিন আজ ৬ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জের পূর্বাচলে অবস্থিত ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স মালটিপারপাস কমপ্লেক্স থেকে সকাল সাড়ে ৯টায় আনুষ্ঠানিকভাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান সপ্তাহের শুভ উদ্বোধন করবেন। অনুষ্ঠানে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। অন্যদের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মোঃ শহিদুজ্জামান উপস্থিত থাকবেন। আগামী ১২ নভেম্বর সন্ধ্যায় পূর্বাচলে অবস্থিত ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স মালটিপারপাস কমপ্লেক্সে সমাপনী অনুষ্ঠানের পর ফায়ার কনসার্টের মাধ্যমে সপ্তাহ পালনের কার্যক্রম সম্পন্ন হবে।
ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ সাজ্জাদ হোসাইন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহের সকল কর্মসূচি বাস্তবায়নে সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন। তিনি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ পালনের গুরুত্ব তুলে ধরে জানিয়েছেন, “ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের সেবাধর্মী কার্যক্রমের সঙ্গে জনসাধারণের সম্পৃক্ততা নিশ্চিতকরণ এবং জনসচেতনতা বৃদ্ধিই এর মূল লক্ষ্য। প্রতিরোধ নিরাময়ের চেয়ে উত্তম। দেশব্যাপী ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে প্রতিরোধ ব্যবস্থা জোরদার করা গেলে দুর্যোগ-দুর্ঘটনার সংখ্যা এবং সংঘটিত দুর্যোগে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমিয়ে আনা সম্ভব হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ