শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু ব্যক্তিকে মারধরের অভিযোগ

রামপাল সংবাদদাতাঃ রামপালের বাঁশতলী ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ৪ নং ওয়ার্ড সাধারন সম্পাদকের বিরুদ্ধে এক সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ব্যাক্তিকে মারধরের অভিযোগে প্রতিবাদ সমাবেশ করা হয়েছে। শুক্রবার সকাল ৯ টায় বাঁশতলী ইউনিয়নের সুন্দরপুর গ্রামে প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রেস ব্রিফিং করা হয়। প্রেস ব্রিফিং এর লিখিত বক্তব্য এবং এলাকার লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, গত ২৪ অক্টোবর সুন্দরপুর গ্রামের কিরন চন্দ্র মিস্ত্রির পুত্র ক্ষিতিশ চন্দ্র মিস্ত্রি (৫০) গিলাতলা বাজারে সিরাজের চায়ের দোকানে গেলে ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আশ্বাব আলী মল্লিকের সাথে দলীয় বিষয়কে কেন্দ্র করে বাকবিতন্ডা হয়। এ সময় আশ্বাব তাকে মারধর করে। এ ঘটনার সূত্র ধরে একইদিন বিকালে ৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি হাওলাদার বাকী বিল্লাহ তাকে প্রকাশ্যে জুতাপেটা করে। এর পর থেকে তিনি চরম নিরাপত্তাহীনতায় আছেন বলে প্রেস ব্রিফিংয়ে উল্লেখ করেন। এ ঘটনায় স্থানীয়দের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয় এবং পরদিন সকালে উপজেলার সুন্দরপুর পল্লীমঙ্গল প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্তরে বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে শতশত এলাকাবাসী ও আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ সমাবেশ করে। এলাকাবাসী ও তৃণমূল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে এবং এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, রামপাল উপজেলা চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ মোঃ আবু সাইদ, বাঁশতলী ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী, আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজুর রহমান, ইউপি সদস্য ফকির নজরুল ইসলাম মুক্ত, হরিপদ সরকার, সুধীর কুমার মৈত্রসহ অন্যান্যরা। এ সময় তৃণমূল আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ