শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

যাদের কিছুই ছিল না তাদের এতো তাড়াতাড়ি গাড়ি-বাড়ি কিভাবে হলো?

টঙ্গী পশ্চিম থানা বিএনপির সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন গাজীপুর মহানগর বিএনপির সভাপতি হাসান উদ্দিন সরকার

গাজীপুর সংবাদদাতা : গাজীপুর মহানগর বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকার বলেছেন, গাজীপুরে ২০ বছর আগে যাদের কিছুই ছিল না, তাদের এতো গাড়ি-বাড়ি তাড়াতাড়ি হলো কিভাবে গাজীপুরবাসী জানতে চায়। গাজীপুরে দুর্নীতিবাজদের তালিকা ও তাদেরকে অতিসত্বর গ্রেফতার দেখতে চায়। তিনি বলেন, স্কুল-কলেজ করেছি ব্যবসা-বাণিজ্য করার জন্য নয়। এলাকার মানুষ ধান-চাল-বাঁশ দিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করেছেন। আজকে এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লক্ষ লক্ষ টাকার দুর্নীতি হচ্ছে। অথচ কোন প্রতিবাদ করা হচ্ছে না।
সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কারা ও রোগমুক্তি কামনায় মঙ্গলবার টঙ্গী পশ্চিম থানা বিএনপির সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। টঙ্গী পশ্চিম থানা বিএনপির আহ্বায়ক মাহবুবুল আলম শুক্কুরের সভাপতিত্বে ও মহানগর বিএনপির প্রকাশনা সম্পাদক আজিজুল হক রাজু মাস্টারের সঞ্চালনায় সম্মেলনে
প্রধান আলোচক হিসেবে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ডা. মাজহারুল আলম বক্তৃতায় বলেন, ১৮ কোটি মানুষের একমাত্র মুক্তির উপায় বেগম খালেদা জিয়া। সাবেক তিন বারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে পরিকল্পিতভাবে জেলে আটকে রাখা হয়েছে, ৩০ তারিখের নির্বাচন ২৯ তারিখে করার জন্য, ১৫ টাকা কেজির পেঁয়াজ ১৩০ টাকা কেজিতে খাওয়ানোর জন্য, দেশের অন্যতম রপ্তানি আয়ের উৎস্য চামড়া মাটিতে পুঁতে ফেলার জন্য। তিনি বলেন, আমাদের দেশের রাজনীতির উপকারিতা ছিল শহীদ জিয়ার হাতে, বেগম খালেদা জিয়ার হাতে, মাওলানা ভাসানীর হাতে, রাজনীতি মানুষের উপকার করেছে শেরে বাংলার একে ফজলুল হকের হাতে। বর্তমানে রাজনীতি আগুনের মতো সারা দেশ পুড়ে সারখার করে দিয়েছে শেখ মুজিবের কন্যা শেখ হাসিনার হাতে।
মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সোহরাব উদ্দিন আগামীতে যে কোন আন্দোলন সংগ্রাম ও নির্বাচনে পুলিশী বাধা উপেক্ষা করে মাঠে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে বলেন, আগামীতে আর কাউকে খালি মাঠে গোল দিতে দেওয়া হবে না। আন্দোলন করতে গিয়ে যদি মৃত্যুও হয় তবুও মাঠ ছাড়বো না। সেই মৃত্যু হবে আমাদের শহিদী মৃত্যু।
সম্মেলনে আরো বক্তব্য দেন, টঙ্গী পূর্ব থানা বিএনপির আহ্বায়ক রাশেদুল ইসলাম কিরণ, বাসন থানা বিএনপির আহ্বায়ক বসির উদ্দিন বাচ্চু, মহানগর বিএনপির দপ্তর সম্পাদক আব্দুর রহিম খান কালা, টঙ্গী পশ্চিম থানা বিএনপির যুগ্ন আহ্বায়ক নাসির উদ্দিন নাসু শাহ, গাসিক কাউন্সিলর মোসলেহ উদ্দিন চৌধুরী মুসা, সফিউদ্দিন সফি, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শাহীন, জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, মুক্তিযোদ্ধা মমতাজ উদ্দিন, খাদিজা আক্তার বীনা, সাইফুল ইসলাম, নাজমুল খন্দকার সুমন, সেলিম কাজল, আতাউর রহমান আতিক, জামাল উদ্দিন, ওমর ফারুক, আব্দুস সাত্তার, আ.ন.ম আক্তারুজ্জামান নূর প্রমুখ। আরো উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপির সহসভাপতি আফজাল হোসেন কায়সার, আহমেদ আলী রুশদী, কাশিমপুর থানা বিএনপির আহ্বায়ক শওকত হোসেন সরকার প্রমুখ।
সম্মেলনে কাউন্সিলরদের কণ্ঠ ভোটে মাহবুবুল আলম শুক্কুরকে সভাপতি ও শাহ নাসির উদ্দিন নাসুকে সাধারণ সম্পাদক করে টঙ্গী পশ্চিম থানা বিএনপির কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সিনিয়র সহসভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন, হাজী মুজিবুল হক দুলাল, সিনিয়র যুগ্ন সম্পাদক ৫৩ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আতাউর রহমান আতিক ও সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান সবুজ।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় হাসান উদ্দিন সরকার আরো বলেন, জুলুম নির্যাতন হলো রাজনীতির পুরষ্কার। সত্যকে বুকে ধারণ করে বেঈমান-মুনাফেকদের বিরুদ্ধে লড়াই করে মরতে চাই। অন্যায়, অনাচার, জুলুম, অবিচারের বিরুদ্ধে লড়াই করে একটি সত্য সন্দুর সমাজ গড়তে চাই। যদি আমাদের ত্যাগের বিনিময়ে একটি সুন্দর সমাজ প্রতিষ্ঠা হয় তাহলে এদেশের আপামর জনসাধারণ আজীবন আমাদেরকে স্মরণ করবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ