সোমবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

তৃতীয় রাউন্ডে রাজশাহী ও চট্টগ্রামের জয়

স্পের্টস রিপোর্টার: জাতীয় লিগের তৃতীয় রাউন্ডে রাজশাহীর শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়ামে সিলেট বিভাগকে ৯ উইকেটে হারিয়েছে চট্টগ্রাম বিভাগ। অন্যদিকে কক্সবাজারে রংপুরকে ৬ রানের ব্যবধানে হারিয়েছে রাজশাহী বিভাগ। রাজশাহীতে মাঠ ভেজা থাকায় প্রথম দুই খেলা গড়ায়নি, তবে তৃতীয় দিনে মাঠ উপযুক্ত হওয়ায় মাঠে নামে দু’দল। টস জিতে সিলেট বিভাগকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠায় চট্টগ্রাম। ইরফান আহমেদের দুর্দা বোলিংয়ে মাত্র ১৬৩ রানে অল আউট হয় সিলেট বিভাগ। ইরফান ১৩.২ ওভারে ৫৬ রান দিয়ে তুলে নেন ৬ উইকেট।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে পিনাক ঘোষের শতকে ৯ উইকেট হারিয়ে ২২৯ রানে ইনিংস ঘোষণা করে চট্টগ্রাম। আবু জায়েদ রাহি তুলে নেন ৪টি উইকেট। প্রথম ইনিংসে ৬৬ রানে পিছিয়ে থেকে ব্যাট করতে নামে সিলেট। তবে প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যাট হাতে ব্যর্থ সিলেটের ব্যাটসম্যানরা। মেহেদী হাসানের পাঁচ উইকেটে সিলেটের ইনিংস গুঁড়িয়ে যায় মাত্র ১০৯ রানে।

জয়ের জন্য চট্টগ্রামের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় মাত্র ৪৪ রান। ইরফান শুকুরের ২৬ আর পিনাক ঘোষের ১০ রানে মাত্র একটি উইকেট হারিয়েই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় চট্টগ্রাম বিভাগ। বল হাতে প্রথম ইনিংসে ৬ এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ২ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছেন ইরফান শুকুর।

অন্যদিকে কক্সবাজারে রাজশাহী এবং রংপুর বিভাগের মধ্যকার ম্যাচে রংপুরকে ৬ রানের ব্যবধানে হারিয়েছে রাজশাহী বিভাগ। টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় রাজশাহী। তবে ব্যাট করতে নেমেই তরুণ লেগস্পিনার রিশাদ হোসেনের পাঁচ উইকেটে মাত্র ২০১ রানেই ইনিংস গুটিয়ে যায় রাজশাহীর। অধিনায়ক ফরহাদ হোসেনের ব্যাট থেকে আসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৬০ রান।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে মেহদি মারুফ, নাইম ইসলাম এবং নাসির হোসেনের অর্ধশতকে রংপুর তোলে ২৭৯ রান। রাজশাহীর হয়ে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নেন সানজামুল ইসলাম। দ্বিতীয় ইনিংসে ৭৮ রানে পিছিয়ে থেকে ব্যাট করতে নামে রাজশাহী। তবে রংপুরের বোলারদের তোপের মুখে মাত্র ১৯০ রানেই অল আউট হয় রাজশাহী। রংপুরের হয়ে তিনটি উইকেট নেন তানবির হায়দার আর দুটি করে উইকেট তুলে নেন সৌরাওয়ার্দি শুভ, মাহমুদুল হাসান এবং সঞ্জিত সাহা। রাজশাহীর হয়ে সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেন সানজামুল ইসলাম।

১১৮ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ২১ রানেই টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে হারায় রংপুর। তবে এরপরেই ম্যাচের হাল ধরেন নাইম ইসলাম এবং আরিফুল হক। সাকলাইন সজিব এবং সানজামুল ইসলামের দারুণ বোলিংয়ের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি রংপুরের ব্যাটসম্যান। রাজশাহীর এই দুই বোলারই তুলে নেন ৫টি করে উইকেট। আর তাতেই রংপুরের ইনিংস শেষ হয় ১১১ রানে। রাজশাহী জয় পায় মাত্র ৬ রানে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ