মঙ্গলবার ০২ জুন ২০২০
Online Edition

দ্রুততম মানবী সোনিয়া আক্তার

স্পোর্টস রিপোর্টার : জুনিয়র অ্যাথলেটিকস মানেই বিকেএসপির আধিপত্য। দ্রুততম কিশোরের ক্ষেত্রে অবশ্য দেশের ক্রীড়া বিজ্ঞান এই প্রতিষ্ঠান সাফল্য দেখাতে পারেনি। তবে কিশোরীদের ১০০ মিটার স্প্রিন্টে দ্রুততম মানবীর খেতাব জিতে নিয়েছে বিকেএসপির সোনিয়া আক্তার। ইলেক্ট্রোনিক্স টাইমিংয়ে ১২.৬৬ সেকেন্ড হলেও হ্যান্ড টাইমিংয়ে ছিল ১২.১০। আর হ্যান্ড টাইমিংয়েই নতুন জাতীয় রেকর্ড দেখানো হয়েছে তার নামের পাশে। 

২০১৫ সালে বিকেএসপির অ্যাথলেটিকস বিভাগে ভর্তি হয় সোনিয়া। তখন থেকেই জাতীয় জুনিয়র মিটে অংশ নিয়ে আসছে। এ নিয়ে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে দু’বার স্বর্ণপদক জেতে সে। এর ্আগে ২০১৬ আসরে একবার দ্রুততম কিশোরী হয়েছিল। তার কথায়, ‘স্বর্ণ জেতার ব্যাপারে খুবই আত্মবিশ^াসী ছিলাম। জিতে খুব ভাল লাগছে। এজন্য আমার বিকেএপসিকে ধন্যবাদ জানাবো। তারা আমাকে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিয়েছে। আমার সাফল্যের জন্য আমার কোচ নিজাম উদ্দিনের অবদান অনেক। এটাই আমার ক্যারিয়ারের সেরা টাইমিং। ভবিষ্যতে আরও ভাল টাইমিং করতে পারবো বলে আশা করি।’ কৃষক বাবার মেয়ে সোনিয়া। দু’ভাই বোনের মধ্যে বড় সে। ছোট  ভাই চতুর্থ শ্রেণীতে পড়ে। নওগাঁর এই অ্যাথলেট জানায়, ‘অ্যাথলেট হবো কোনদিনও ভাবিনি। তবে স্কুলে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় ১০০ ও ২০০ মিটার এবং লং জাম্পে অংশ নিয়ে সবসময় প্রথম হতাম। সেই থেকে অ্যাথলেট হওয়ার ভুত চাপে মাথায়। এখনতো দেশের বড় ক্রীড়া প্রতিষ্ঠানের উচ্চ মাধ্যমিকের প্রথম বর্ষে পড়ছি। আমার আপাতত লক্ষ্য ভবিষ্যতে সিনিয়র ন্যাশনালে অংশ নিয়ে সফল হতে চাই।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ