বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

তাওহিদী জনতার সমাবেশে পুলিশের নির্বিচার গুলীবর্ষণ মেনে নেয়া যায় না -ড. আহমদ আবদুল কাদের

 

খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের বলেছেন, ভোলায় তাওহিদী জনতার সমাবেশে পুলিশের নির্বিচার গুলীবর্ষণের ঘটনা কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। ভোলায় সমাবেশে গুলীবর্ষণের বিচার বিভাগীয় তদন্ত করতে হবে। ভোলার বোরহানউদ্দিনের পুলিশের গুলীতে নিহতের ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিদের বিচার করতে হবে। ধর্মপ্রাণ সাধারণ জনতার উপর পুলিশের দায়েরকৃত মামলা তুলে নিতে হবে। আহত ও ক্ষতিগ্রস্তদের সুচিকিৎসা ও ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। আল্লাহ-রাসুল সা. তথা ইসলাম অবমাননার বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির বিধান রেখে আইন করতে হবে। ভোলায় তাওহিদী জনতার সমাবেশে গুলীবর্ষণের প্রতিবাদে খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরী আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। 

কেন্দ্রঘোষিত দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচীল অংশ হিসেবে গতকাল শুক্রবার বাদ জুম্মা বায়তুল মোকাররম উত্তর গেইটে হাউজ বিল্ডিংয়ের সামনে খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরী সভাপতি শেখ গোলাম আসগরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মাওলানা আজীজুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন  যুগ্মমহাসচিব মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা তোফাজ্জল হোসেন মিয়াজী, অধ্যাপক মোহাম্মদ আবদুল জলিল, মাওলানা শামসুজ্জামান চৌধুরী, মাস্টার সিরাজুল ইসলাম, বোরহান উদ্দিন সিদ্দিকী, মুক্তিযোদ্ধা ফয়জুল ইসলাম, মাওলানা আহমদ বিলাল, প্রভাষক আবদুল করিম, ইঞ্জিনিয়ার মাহফুজুর রহমান, ডাক্তার রিফাত মালিক, সাহাব উদ্দিন আহমদ খন্দকার, ছাত্র মজলিসের সেক্রটারী জেনারেল মনির হোসাইন প্রমুখ। 

সমাবেশের আগে এক বিক্ষোভ মিছিল জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেইট থেকে শুরু হয়ে পল্টন মোড় ঘুরে হাউজবিল্ডিংয়ের সামনে এসে সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশ শেষে ভোলার বোরহানউদ্দিনে পুলিশের নির্বিচার গুলিবর্ষণে শাহাদৎবরণকারীদের জন্যে এবং আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করে দোয়-মুনাজাত করেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য মুফতি শিহাবুদ্দিন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ